জুয়ার টাকা চাওয়ায় প্রধান শিক্ষককে পিটিয়ে হত্যা - বিবিধ - দৈনিকশিক্ষা

জুয়ার টাকা চাওয়ায় প্রধান শিক্ষককে পিটিয়ে হত্যা

নোয়াখালী প্রতিনিধি |

নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলার চর আমানুল্লা গ্রামে পাওনা টাকা নিয়ে বিরোধের জের ধরে এক স্কুলশিক্ষককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। গতকাল রোববার দিবাগত রাত দুইটার দিকে হাতিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তাঁর মৃত্যু হয়।

ওই শিক্ষকের নাম কাজল চন্দ্র দাস (৫৫)। তিনি উপজেলার সুখচর ইউনিয়নের ইন্দুরসরি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ছিলেন।

এর আগে গতকাল বিকেলের দিকে পাওনা টাকা নিয়ে একই এলাকার শান্ত মজুমদার (৪০) স্কুলশিক্ষক কাজলকে পিটিয়ে আহত করেন। পুলিশ অভিযুক্ত শান্তকে আজ সোমবার সকাল ছয়টার দিকে শহর আমানুল্লাহ গ্রামের বাড়ি থেকে আটক করেছে।

হাতিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল খায়ের জানান, গতকাল বিকেলের দিকে পাওনা টাকা নিয়ে একই এলাকার শান্ত মজুমদারের সঙ্গে স্কুলশিক্ষক কাজল চন্দ্র দাসের ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে শান্ত মজুমদার স্কুলশিক্ষক কাজলকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন। পরে পরিবারের লোকজন তাঁকে হাসপাতালে না নিয়ে বাড়িতে রেখে চিকিৎসা দেন। রাতে তাঁর অবস্থার অবনতি ঘটলে তাঁকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত দুইটার দিকে তাঁর মৃত্যু হয়।

ওসি আবুল খায়ের আরও জানান, গতকাল রাতে হাসপাতাল থেকে হামলায় আহত স্কুলশিক্ষকের মৃত্যুর খবর তাঁদের জানানো হয়। এরপর প্রাথমিক তথ্যের ভিত্তিতে সকাল ছয়টার দিকে পুলিশের একটি দল অভিযান চালিয়ে ঘটনায় অভিযুক্ত শান্তকে আটক করে। তাঁকে থানায় জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। এ ছাড়া এ ঘটনায় অন্য কেউ জড়িত আছে কি না, সেটিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এ ঘটনায় পরিবারের দেওয়া অভিযোগের ভিত্তিতে পরবর্তী আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

এলাকার কয়েকজন বাসিন্দার সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, গতকাল বিকেলে কাজলের সঙ্গে জুয়া খেলার টাকা নিয়ে শান্তসহ কয়েকজনের কথা-কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে শান্তসহ কয়েকজন তাঁকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন। ঘটনার পর পরিবারের লোকজন তাঁকে বাড়িতে নিয়ে যান। পরে রাতে অবস্থার অবনতি হলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তাঁকে ভর্তি করা হয়। সেখানে তিনি মারা যান।

অনুপস্থিত শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি নিশ্চিত করতে হবে শিক্ষকদের - dainik shiksha অনুপস্থিত শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি নিশ্চিত করতে হবে শিক্ষকদের স্কুলে বসেই ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের অনলাইন ক্লাস নিতে হবে শিক্ষকদের - dainik shiksha স্কুলে বসেই ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের অনলাইন ক্লাস নিতে হবে শিক্ষকদের স্কুলে নিয়মিত ম্যানেজিং কমিটি গঠনের নির্দেশ - dainik shiksha স্কুলে নিয়মিত ম্যানেজিং কমিটি গঠনের নির্দেশ শিক্ষকের করোনা শনাক্ত, স্কুলের সবার নমুনা পরীক্ষার নির্দেশ - dainik shiksha শিক্ষকের করোনা শনাক্ত, স্কুলের সবার নমুনা পরীক্ষার নির্দেশ ইবতেদায়ি মাদরাসা সরকারিকরণের দাবি - dainik shiksha ইবতেদায়ি মাদরাসা সরকারিকরণের দাবি করোনা আক্রান্ত একই কলেজের তিন ছাত্রী - dainik shiksha করোনা আক্রান্ত একই কলেজের তিন ছাত্রী ২৫ নম্বর পেলেই শেকৃবিতে পোষ্য কোটায় ভর্তি নিশ্চিত! - dainik shiksha ২৫ নম্বর পেলেই শেকৃবিতে পোষ্য কোটায় ভর্তি নিশ্চিত! please click here to view dainikshiksha website