ঢাবিতে খাতা দেখতে চাওয়ায় শিক্ষার্থীদের হুমকি - বিশ্ববিদ্যালয় - দৈনিকশিক্ষা

ঢাবিতে খাতা দেখতে চাওয়ায় শিক্ষার্থীদের হুমকি

দৈনিকশিক্ষা ডেস্ক |

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি অনুষদের ওষুধপ্রযুক্তি বিভাগের দুটি কোর্সের ফলাফলে সন্তুষ্ট হতে না পেরে কোর্স শিক্ষকের কাছে খাতা দেখতে চেয়েছিলেন কয়েকজন শিক্ষার্থী। কিন্তু খাতা না দেখিয়ে সেই শিক্ষক উল্টো শিক্ষার্থীদের হুমকি দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। পরে শিক্ষার্থীরা বিভাগের চেয়ারম্যান বরাবর খাতা দেখানোর আবেদন জানিয়েছেন।

২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের স্নাতকোত্তর শ্রেণির ‘পিএচটি ৬০২’ ও ‘পিইচটি ৬০২’ কোর্সের দ্বিতীয় ইনকোর্স পরীক্ষার ফলাফল নিয়ে এই ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার (১৭ সেপ্টেম্বর) প্রথম আলো পত্রিকায় প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা যায়। 

পরীক্ষার্থীদের অভিযোগ, ফল ভালো না হওয়ায় তাঁরা খাতা দেখতে চেয়েছেন। কিন্তু কোর্স শিক্ষক অধ্যাপক আবু সারা শামসুর রউফ তাতে সম্মত হননি। উল্টো তাঁদের হুমকি প্রদর্শন করেছেন। এ বিষয় ক্ষুব্ধ নয়জন শিক্ষার্থী গত সোমবার বিভাগের চেয়ারম্যান সৈয়দ সাব্বির হায়দার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন।

লিখিত আবেদনে শিক্ষার্থীরা বলেছেন, দুটি কোর্সে তাঁদের নম্বর আশানুরূপ হয়নি। তাঁদের দৃঢ় বিশ্বাস, তাঁরা প্রাপ্ত নম্বরের চেয়ে বেশি নম্বর পাওয়ার যোগ্যতা রাখেন। দুটি কোর্সের অসামঞ্জস্যপূর্ণ নম্বরের জন্য তাঁদের চূড়ান্ত ফলাফল হুমকির মুখে পড়েছে। খাতা দেখতে চাইলে কোর্স শিক্ষক তাতে অপারগতা প্রকাশ করেন এবং হুমকি প্রদর্শন করেন। শিক্ষার্থীরা চেয়ারম্যানের কাছে দুটি কোর্সের পরীক্ষার খাতা দেখানোর ব্যবস্থা ও প্রয়োজনে পুনর্মূল্যায়নের আবেদন করেছেন।

আবেদনপত্রটি পেয়েছেন জানিয়ে বিভাগের চেয়ারম্যান সৈয়দ সাব্বির হায়দার বলেন, ‘আমাদের একাডেমিক কমিটির পরবর্তী সভায় বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হবে।’

তবে এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি কোর্স শিক্ষক আবু সারা শামসুর রউফ।

আসছে বছর থেকেই পাঠ্যপুস্তকে অন্তর্ভুক্ত হচ্ছে প্রোগ্রামিং - dainik shiksha আসছে বছর থেকেই পাঠ্যপুস্তকে অন্তর্ভুক্ত হচ্ছে প্রোগ্রামিং ৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত সংসদ টিভিতে মাধ্যমিকের ক্লাস রুটিন - dainik shiksha ৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত সংসদ টিভিতে মাধ্যমিকের ক্লাস রুটিন এসএসসির ৭৫ শতাংশ ও জেএসসির ২৫ শতাংশে এইচএসসির ফল - dainik shiksha এসএসসির ৭৫ শতাংশ ও জেএসসির ২৫ শতাংশে এইচএসসির ফল ইবতেদায়ি ও দাখিল শিক্ষার্থীদের পঞ্চম সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ - dainik shiksha ইবতেদায়ি ও দাখিল শিক্ষার্থীদের পঞ্চম সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বেতনও ইএফটিতে - dainik shiksha প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বেতনও ইএফটিতে ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষার দায়িত্ব মাদরাসা বোর্ডের - dainik shiksha ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষার দায়িত্ব মাদরাসা বোর্ডের প্রতি স্কুলের তিন শিক্ষককে করতে হবে কৈশোরকালীন পুষ্টি প্রশিক্ষণ - dainik shiksha প্রতি স্কুলের তিন শিক্ষককে করতে হবে কৈশোরকালীন পুষ্টি প্রশিক্ষণ please click here to view dainikshiksha website