তৃতীয় গণবিজ্ঞপ্তিতে নিয়োগ পাওয়া পঁয়ত্রিশোর্ধ্ব শিক্ষকদের এমপিওভুক্তির নির্দেশ - দৈনিকশিক্ষা

তৃতীয় গণবিজ্ঞপ্তিতে নিয়োগ পাওয়া পঁয়ত্রিশোর্ধ্ব শিক্ষকদের এমপিওভুক্তির নির্দেশ

দৈনিকশিক্ষাডটকম প্রতিবেদক |

দৈনিকশিক্ষাডটকম প্রতিবেদক : তৃতীয় গণবিজ্ঞপ্তিতে নিয়োগ পাওয়া পঁয়ত্রিশোর্ধ্ব শিক্ষকদের এমপিওভুক্ত করার নির্দেশ দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। আপিল বিভাগের রায়ের প্রেক্ষিতে তাদের নিয়োগ সুপারিশ করেছিলো বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ)। তৃতীয় গণবিজ্ঞপ্তিতে সুপারিশপ্রাপ্ত এ শিক্ষকদের অধিকাংশ এমপিওভুক্ত হলেও অনেকে জটিলতায় ছিলেন। অবশেষে বুধবার তাদের এমপিওভুক্ত করতে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরকে নির্দেশ দিলো মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ।

জানা গেছে, ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দের ১২ জুন বেসরকারি স্কুল-কলেজের এমপিও নীতিমালা জারি করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এ নীতিমালায় এন্ট্রি লেভেলের শিক্ষক পদে নিয়োগের বয়সসীমা ৩৫ নির্ধারণ করে দেয়া হয়। ফলে, ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দের ২য় চক্রে শিক্ষক নিয়োগে পঁয়ত্রিশোর্ধ্বরা আবেদনের সুযোগ পায়নি।
 
পঁয়ত্রিশোর্ধ্বরা দৈনিক শিক্ষাডটকমকে জানান, নীতিমালা জারির পর পঁয়ত্রিশোর্ধ্বদের প্রার্থীরা শিক্ষক নিয়োগের আবেদনের সুযোগ চেয়ে একটি রিট আবেদন করেন। সে রিট শুনানি শেষে হাইকোর্ট পঁয়ত্রিশোর্ধ্বদের আবেদনের সুযোগ দিয়ে রায় দেন। রায়ে বলা হয়, ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দের ১২ জুন এমপিও নীতিমালা জারির আগে যারা শিক্ষক নিবন্ধন সনদ পেয়েছেন তাদের আবেদনের সুযোগ দিতে। পরে এনটিআরসিএ রায়টি আপিল করে। আপিল বিভাগ শুনানি শেষে দেয়া রায়ে, পঁয়ত্রিশোর্ধ্বদের আবেদনের সুযোগ দেয়ার নির্দেশ দেয়। সেই রায় রিভিউ আবেদন না করেই তৃতীয় গণবিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়। ফলে পঁয়ত্রিশোর্ধ্বরা আবেদনের সুযোগ পান। তবে তাদের অনেকে এমপিওভুক্ত হতে পারলেও অনেকে পারেননি। 

তাদের এমপিওভুক্তির বিষয়ে ২০২২ খ্রিষ্টাব্দের ১৭ এপ্রিল ও ২০২৩ খ্রিষ্টাব্দের ৯ আগস্ট মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সিদ্ধান্ত চেয়েছিলো মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ। সে প্রেক্ষিতে বুধবার সিদ্ধান্ত জানানো হলো। 

সিনিয়র সহকারী সচিব মোহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম স্বাক্ষরিত আদেশে বলা হয়, লিভ টু আপিল মামলার আলোকে এনটিআরসিএর জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে এমপিওভুক্তির বিষয়ে কোনো বাধা না থাকায় এনটিআরসিএর তৃতীয় গণবিজ্ঞপ্তিতে পঁয়ত্রিশোর্ধ্ব নিয়োগ সুপারিশ পাওয়া অধিকাংশ শিক্ষক ইতোমধ্যে এমপিওভুক্ত হওয়া তাদের এমপিও বহাল রাখা ও অবশিষ্ট শিক্ষকদের এমপিওভুক্ত করার বিষয়ে কার্যক্রম গ্রহণের জন্য বলা হলো।

আদেশটি মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের কাছে পাঠিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ।  

 

শিক্ষাসহ সব খবর সবার আগে জানতে দৈনিক আমাদের বার্তার ইউটিউব চ্যানেলের সঙ্গেই থাকুন। ভিডিওগুলো মিস করতে না চাইলে এখনই দৈনিক আমাদের বার্তার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন এবং বেল বাটন ক্লিক করুন। বেল বাটন ক্লিক করার ফলে আপনার স্মার্ট ফোন বা কম্পিউটারে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভিডিওগুলোর নোটিফিকেশন পৌঁছে যাবে।

দৈনিক আমাদের বার্তার ইউটিউব চ্যানেল  SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

উপবৃত্তির সব অ্যাকাউন্ট নগদ-এ রূপান্তরের সময় ফের বৃদ্ধি - dainik shiksha উপবৃত্তির সব অ্যাকাউন্ট নগদ-এ রূপান্তরের সময় ফের বৃদ্ধি সাংবাদিকদের সঙ্গে আমার জন্ম-জন্মান্তরের সম্পর্ক: রাষ্ট্রপতি - dainik shiksha সাংবাদিকদের সঙ্গে আমার জন্ম-জন্মান্তরের সম্পর্ক: রাষ্ট্রপতি খাতা চ্যালেঞ্জে নতুন ফলপ্রাপ্তরাও ভর্তি আবেদন প্রক্রিয়ায় অন্তর্ভুক্ত - dainik shiksha খাতা চ্যালেঞ্জে নতুন ফলপ্রাপ্তরাও ভর্তি আবেদন প্রক্রিয়ায় অন্তর্ভুক্ত সর্বাত্মক কর্মবিরতির ডাক বুটেক্স শিক্ষকদের - dainik shiksha সর্বাত্মক কর্মবিরতির ডাক বুটেক্স শিক্ষকদের ‘কোটা আন্দোলনের নামে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারকে ট্রল করা হচ্ছে’ - dainik shiksha ‘কোটা আন্দোলনের নামে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারকে ট্রল করা হচ্ছে’ এইচএসসি পরীক্ষা চলাকালীন শ্রেণি কার্যক্রম চলবে - dainik shiksha এইচএসসি পরীক্ষা চলাকালীন শ্রেণি কার্যক্রম চলবে ভূতুড়ে স্কোরে র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে গেলো ঢাবি - dainik shiksha ভূতুড়ে স্কোরে র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে গেলো ঢাবি কওমি মাদরাসা: একটি অসমাপ্ত প্রকাশনা গ্রন্থটি এখন বাজারে - dainik shiksha কওমি মাদরাসা: একটি অসমাপ্ত প্রকাশনা গ্রন্থটি এখন বাজারে দৈনিক শিক্ষার নামে একাধিক ভুয়া পেজ-গ্রুপ ফেসবুকে - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষার নামে একাধিক ভুয়া পেজ-গ্রুপ ফেসবুকে র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে থাকা কলেজগুলোর নাম এক নজরে - dainik shiksha র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে থাকা কলেজগুলোর নাম এক নজরে please click here to view dainikshiksha website Execution time: 0.0028479099273682