দুই বছর পর খুললো উগান্ডার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান - স্কুল - দৈনিকশিক্ষা

দুই বছর পর খুললো উগান্ডার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

দৈনিকশিক্ষা ডেস্ক |

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে সবচেয়ে বেশি দিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ছিল উগান্ডায়। অবশেষে সোমবার দেশটির বিশ্ববিদ্যালয়, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের প্রতিষ্ঠানগুলো খুলেছে। এখনও বন্ধ রয়েছে কিন্ডারগার্টেন ও প্রাক-প্রাথমিক স্তরের বিদ্যালয়গুলো।

সিএনএনের খবরে বলা হয়েছে, উগান্ডায় করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে টানা প্রায় দুই বছর বন্ধ ছিল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। জাতিসংঘ বলছে, মহামারির কারণে সবচেয়ে দীর্ঘ সময় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার রেকর্ড এটি।

উগান্ডার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ডেনিস মুগিম্বা বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ হয়ে যাওয়ায় দেশটির প্রায় দেড় কোটি শিক্ষার্থীর পড়াশোনা ব্যাহত হচ্ছিল। দীর্ঘদিন পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো খোলার কারণে অনেকেই ঝরে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করেছে ইউনিসেফ।

উগান্ডা কর্তৃপক্ষ আশঙ্কা করছে, মহামারি শুরু হওয়ার সময় থেকে এক-তৃতীয়াংশ শিশু আর স্কুলে ফিরে আসবে না।

দেশটি বিশ্বের সবচেয়ে কম বয়সী জনসংখ্যা এবং উচ্চ বেকারত্ব ও দারিদ্র্যের সঙ্গে লড়াই করছে।

যদিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ও করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে কঠোর বিধিনিষেধের কারণে উগান্ডায় কভিডে মৃত্যুর সংখ্যা কম। দেশটিতে এখন পর্যন্ত প্রায় এক লাখ ৫৩ হাজার রোগী শনাক্ত হয়েছে এবং মৃত্যু হয়েছে তিন হাজার ৩০০ জনের।

ইউনিসেফের কান্ট্রি রিপ্রেজেনটেটিভ মুনির সাফিনদিন বলেন, উগান্ডায় করোনার কারণে লাখ লাখ শিশু শিক্ষার অধিকার হারানোর ঝুঁকিতে রয়েছে। তিনি দেশটির সরকারের একটি রাষ্ট্রীয় পরিকল্পনা কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে বলেন, দেশটির এক-তৃতীয়াংশ শিক্ষার্থী আর কখনোই স্কুলে ফিরে আসবে না।

ফাজিল পরীক্ষা স্থগিত - dainik shiksha ফাজিল পরীক্ষা স্থগিত মাস্ক ছাড়া বের হলেই জরিমানা করা হবে : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী - dainik shiksha মাস্ক ছাড়া বের হলেই জরিমানা করা হবে : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী উপবৃত্তির টাকা পাঠানো শুরু, দ্রুত তুলতে হবে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের - dainik shiksha উপবৃত্তির টাকা পাঠানো শুরু, দ্রুত তুলতে হবে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের মাদরাসায়ও অনলাইন ক্লাস, খোলা থাকবে অফিস - dainik shiksha মাদরাসায়ও অনলাইন ক্লাস, খোলা থাকবে অফিস কওমি মাদরাসাকে বোর্ডের অধীনে নিয়ে আসা প্রয়োজন : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha কওমি মাদরাসাকে বোর্ডের অধীনে নিয়ে আসা প্রয়োজন : শিক্ষামন্ত্রী ভিসির পদত্যাগের দাবি অযৌক্তিক, চাইলেই সরানো যায় না : শিক্ষা উপমন্ত্রী - dainik shiksha ভিসির পদত্যাগের দাবি অযৌক্তিক, চাইলেই সরানো যায় না : শিক্ষা উপমন্ত্রী উপবৃত্তির টাকা পাঠানো শুরু, দ্রুত তুলতে হবে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের - dainik shiksha উপবৃত্তির টাকা পাঠানো শুরু, দ্রুত তুলতে হবে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের please click here to view dainikshiksha website