দ্রুত শিক্ষক নিয়োগ সুপারিশের দাবিতে নিবন্ধিতদের অবস্থান - চাকরির খবর - দৈনিকশিক্ষা

দ্রুত শিক্ষক নিয়োগ সুপারিশের দাবিতে নিবন্ধিতদের অবস্থান

নিজস্ব প্রতিবেদক |

দেশের বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগে প্রকাশিত ৩য় গণবিজ্ঞপ্তির নিয়োগ সুপারিশ প্রক্রিয়া দ্রুত শেষ করার দাবি জানিয়েছেন নিবন্ধিত প্রার্থীরা। এ দাবিতে বৃহস্পতিবার (১০ জুন) এনটিআরসিএ কার্যালয়ের৷ সামনে অবস্থান কর্মসূচী পালন করেছেন তারা। তৃতীয় গণবিজ্ঞপ্তির ফল প্রত্যাশী শিক্ষক ফোরামের ব্যানারে সকালে এই কর্মসূচী শুরু হয়। সারাদেশ থেকে আসা প্রার্থীরা এ অবস্থান কর্মসূচীতে অংশ নিয়ে দ্রুত গণবিজ্ঞপ্তির ফল প্রকাশের দাবি জানান। পরে, দুপুর ২টার দিকে এনটিআরসিএর পক্ষ থেকে আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে গণবিজ্ঞপ্তির ফল প্রকাশের আশ্বাস দেয়া হলে প্রার্থীরা কর্মসূচী শেষ করেন। 

ছবি : দৈনিক শিক্ষা

সকাল থেকেই প্রার্থীরা এনটিআরসিএ কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়ে দ্রুত গণবিজ্ঞপ্তির ফল প্রকাশের দাবিতে স্লোগন দিতে থাকে। ‘এনটিআরসিএ করে কি? খায় দায় ঘুমায় নাকি?’,‘ফল চাই দিতে হবে’,‘হবু শিক্ষক কেন রাস্তায়, জবাব চাই দিতে হবে’ ইত্যাদি স্লোগান দিতে শোনা যায় প্রার্থীদের।  

ছবি : দৈনিক শিক্ষা

অবস্থানরত নিবন্ধিতরা দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, দীর্ঘ বঞ্চনা, আন্দোলন শেষে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ। তবে গণবিজ্ঞপ্তির ফল প্রকাশ নিয়ে এখন এনটিআরসিএ আবার তাল বাহানা শুরু করেছে। কর্মকর্তারা একবার বলেছেন আদালতের রায়ে জটিলতা সৃষ্টি হয়েছে। রায় পাওয়ার পরেও রেজাল্ট প্রকাশ করছে না। ফলে চাকরিপ্রত্যাশীরা হতাশ হয়ে পড়েছি।

ছবি : দৈনিক শিক্ষা

তারা দৈনিক শিক্ষাডটকমকে আরও বলেন, আমরা দেড় লক্ষাধিক বেকার অনেক কষ্ট করে টাকা জমিয়ে আবেদন করেছি। এ মুহুর্তে আমরা কি করবো বুঝতে পারছি না। চাকরি না পেয়ে আমাদের জীবন স্থবির অবস্থায় আছে। আমরা দ্রুত গণবিজ্ঞপ্তির ফল চাই। দ্রুত ফল প্রকাশের দাবিতে স্মারকলিপি জমা দেবো। 

ছবি : দৈনিক শিক্ষা

পরে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পুলিশ সদস্যদের মধ্যস্ততায় প্রার্থীরা এনটিআরসিএর একজন কর্মকর্তার কাছে দেখা করে স্মারকলিপি জমা দেন।  সেখান থেকে বেরিয়ে এসে নিবন্ধিত প্রার্থীদের নেতা শান্ত আলী ও হাবিবুল্লাহ রাজু দৈনিক শিক্ষাডটকমকে জানান, তারা আমাদের আশ্বস্ত করেছেন আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে ফল প্রকাশ হবে। সে আশ্বাসে আশ্বস্ত হয়ে আমরা আজকের কর্মসূচি স্থগিত করছি। কিন্তু প্রতিশ্রুতি অনুসারে দ্রুত গণবিজ্ঞপ্তিতে আবেদন করা সাধারণ প্রার্থীদের নিয়োগ সুপারিশ করা না হলে ফের কঠোর আন্দোলনের ডাক দেয়া হবে।

আরও পড়ুন : দৈনিক শিক্ষাডটকম পরিবারের প্রিন্ট পত্রিকা ‘দৈনিক আমাদের বার্তা’

জানা গেছে, ৫৪ হাজারের বেশি শিক্ষক নিয়োগের তৃতীয় গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে ৮৯ লাখের বেশি আবেদন গ্রহণ করেছে এনটিআরসিএ। ১ থেকে ১২তম নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রায় আড়াই হাজার চাকরিপ্রার্থীর করা আদালত অবমাননার আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালতের দেয়া রায়ের জন্য গণবিজ্ঞপ্তির ফল প্রকাশে দেরি হচ্ছে বলে দৈনিক শিক্ষাডটকমের কাছে দাবি করেছেন কর্মকর্তারা। ওই রায়টি চ্যালেঞ্জ করে এনটিআরসিএ আপিল করছে বলে দৈনিক শিক্ষাডটকমকে নিশ্চিত করেছে সংস্থাটির একটি সূত্র। 

শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেলের সাথেই থাকুন। ভিডিওগুলো মিস করতে না চাইলে এখনই দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন এবং বেল বাটন ক্লিক করুন। বেল বাটন ক্লিক করার ফলে আপনার স্মার্ট ফোন বা কম্পিউটারে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভিডিওগুলোর নোটিফিকেশন পৌঁছে যাবে।

দৈনিক আমাদের বার্তার ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব ও ফেসবুক পেইজটি ফলো করুন

দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল   SUBSCRIBE   করতে ক্লিক করুন।

প্রাইমারি স্কুল-কিন্ডারগার্টেনের ছুটিও ৩১ আগস্ট পর্যন্ত - dainik shiksha প্রাইমারি স্কুল-কিন্ডারগার্টেনের ছুটিও ৩১ আগস্ট পর্যন্ত লকডাউন আরও ১০ দিন বাড়ানোর সুপারিশ - dainik shiksha লকডাউন আরও ১০ দিন বাড়ানোর সুপারিশ রপ্তানিমুখী সব শিল্পকারখানা খুলছে রোববার - dainik shiksha রপ্তানিমুখী সব শিল্পকারখানা খুলছে রোববার জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে আগে শিক্ষার্থী ভর্তি করানো ঠিক হবে না : ইউজিসি - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে আগে শিক্ষার্থী ভর্তি করানো ঠিক হবে না : ইউজিসি ভিকারুননিসার অধ্যক্ষ দুঃখ প্রকাশ করলে শিক্ষক সমাজ লজ্জার হাত থেকে রক্ষা পায় - dainik shiksha ভিকারুননিসার অধ্যক্ষ দুঃখ প্রকাশ করলে শিক্ষক সমাজ লজ্জার হাত থেকে রক্ষা পায় এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের তিন বিষয়ের অ্যাসাইনমেন্ট করতে হবে - dainik shiksha এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের তিন বিষয়ের অ্যাসাইনমেন্ট করতে হবে নিয়মনীতিহীন আইপি টিভির বিরুদ্ধে অচিরেই ব্যবস্থা : তথ্যমন্ত্রী - dainik shiksha নিয়মনীতিহীন আইপি টিভির বিরুদ্ধে অচিরেই ব্যবস্থা : তথ্যমন্ত্রী ‘অন্য দেশের মডেল নিয়ে বাংলাদেশের শিক্ষার মানোন্নয়ন সম্ভব নয়’ - dainik shiksha ‘অন্য দেশের মডেল নিয়ে বাংলাদেশের শিক্ষার মানোন্নয়ন সম্ভব নয়’ দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপনে ৩০ শতাংশ ছাড় - dainik shiksha দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপনে ৩০ শতাংশ ছাড় please click here to view dainikshiksha website