নানা সমস্যায় বেহাল নার্সিং ইনস্টিটিউট - বিবিধ - Dainikshiksha

নানা সমস্যায় বেহাল নার্সিং ইনস্টিটিউট

দৈনিকশিক্ষা ডেস্ক |

জনবল সংকটসহ নানা সমস্যায় বেহাল দশা জামালপুর নার্সিং ইনস্টিটিউটের। দীর্ঘদিন ধরে এখানে চতুর্থ শ্রেণির কোনো কর্মচারি নেই। ফলে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে প্রতিষ্ঠানটির প্রশিক্ষক ও প্রশিক্ষণার্থীদের।

২০০৯ খ্রিস্টাব্দে প্রতিষ্ঠিত হয় জামালপুর নার্সিং ইনস্টিটিউট। সম্ভাবনাময় এই প্রতিষ্ঠানটি প্রতিষ্ঠার শুরু থেকেই নানা সমস্যা নিয়ে ধুঁকে ধুঁকে চলছে। প্রতিষ্ঠানটিতে তিনটি ব্যাচে বর্তমানে অধ্যায়নরত আছে ১৪০ জন ছাত্রী। জামালপুর নার্সিং ইনস্টিটিউটে দারোয়ান, সুইপার এমএলএসএস, বাবুর্চি, মালিসহ চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারির নয়টি পদ থাকলে ১০ বছর ধরে সবকটিই শূন্য রয়েছে। চালুর পর প্রতিষ্ঠানটির জন্য একটি গাড়ি দেওয়া হলেও প্রায় এক দশকে পদায়ন করা হয়নি কোনো চালকের পদ। 

ফলে গ্যারেজে থেকেই নষ্ট হচ্ছে গাড়িটি। দারোয়ান না থাকায় ২৪ ঘণ্টা অরক্ষিত থাকে ইনস্টিটিউটের তিনটি গেট। এ কারণে ফলে নিরাপত্তাহীনতায় থাকেন ছাত্রীরা। বাবুর্চি না থাকায় হলের রান্নার কাজে সহযোগিতা করতে হয় ছাত্রীদের। এতে বিঘ্ন ঘটে তাদের পড়ালেখায়। সুইপার না থাকায় ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে অধিকাংশ টয়লেট। প্রতিষ্ঠানটিতে একজন হেডক্লার্ক, একজন অফিস সহকারী ও একজন ক্যাশিয়ার কর্মরত থাকলেও তারা অফিসে আসেন নিজেদের ইচ্ছামতো। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি সূত্র জানায়, এই তিনজন সপ্তাহের বেশিরভাগ সময় অফিসে অনুপস্থিত থাকলেও হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর করেন ঠিকই। তাদের হাতে অনেকটা জিম্মি প্রতিষ্ঠানটি। এ নিয়ে বিরোধের জেরে সম্প্রতি ইনস্টিটিউটের প্রশাসনিক ভবনে প্রেষণে থাকা দারোয়ান সিরাজুল হককে প্রকাশ্যে মারধরের ঘটনাও ঘটে। এ বিষয়ে তদন্ত হলেও অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। জামালপুর নার্সিং ইনস্টিটিউটের ইনচার্জ রহিমা খাতুন জনবল সমস্যার কথা স্বীকার করলেও অন্য কোনো বিষয়ে কথা বলতে রাজি হননি।

সূত্র : বাংলাদেশ প্রতিদিন

আপাতত ক্লাস সপ্তাহে ১ দিন : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha আপাতত ক্লাস সপ্তাহে ১ দিন : শিক্ষামন্ত্রী পরীক্ষা ছাড়া এইচএসসির ফল প্রকাশে আইন পাস, দু’দিনেই প্রজ্ঞাপন - dainik shiksha পরীক্ষা ছাড়া এইচএসসির ফল প্রকাশে আইন পাস, দু’দিনেই প্রজ্ঞাপন ৯ম গ্রেডে উন্নীত করার দাবিতে একাট্টা হচ্ছে সব সরকারি কর্মচারী সংগঠন - dainik shiksha ৯ম গ্রেডে উন্নীত করার দাবিতে একাট্টা হচ্ছে সব সরকারি কর্মচারী সংগঠন নো মাস্ক নো স্কুল, ক্লাস হবে শিফটে : দুশ্চিন্তায় বড় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান - dainik shiksha নো মাস্ক নো স্কুল, ক্লাস হবে শিফটে : দুশ্চিন্তায় বড় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সাংবাদিকতার অনন্য উচ্চতায় পৌঁছে গিয়েছিলেন মিজানুর রহমান : স্মরণসভায় জেলা জজ - dainik shiksha সাংবাদিকতার অনন্য উচ্চতায় পৌঁছে গিয়েছিলেন মিজানুর রহমান : স্মরণসভায় জেলা জজ প্রাথমিকে ঝরে পড়ার হার প্রায় শূন্যের কোটায় নেমে এসেছে, দাবি প্রতিমন্ত্রীর - dainik shiksha প্রাথমিকে ঝরে পড়ার হার প্রায় শূন্যের কোটায় নেমে এসেছে, দাবি প্রতিমন্ত্রীর মাদরাসা শিক্ষার সমস্যার সমাধান দ্রুতই : শিক্ষা উপমন্ত্রী - dainik shiksha মাদরাসা শিক্ষার সমস্যার সমাধান দ্রুতই : শিক্ষা উপমন্ত্রী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার গাইড লাইন প্রকাশ, তিন ফুট দূরত্বে ক্লাসরুমের বেঞ্চ - dainik shiksha শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার গাইড লাইন প্রকাশ, তিন ফুট দূরত্বে ক্লাসরুমের বেঞ্চ ক্লাসরুমে সর্বোচ্চ ১৫ শিক্ষার্থী, প্রতি বেঞ্চে ১ জন - dainik shiksha ক্লাসরুমে সর্বোচ্চ ১৫ শিক্ষার্থী, প্রতি বেঞ্চে ১ জন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে প্রস্তুতি ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে - dainik shiksha শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে প্রস্তুতি ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে please click here to view dainikshiksha website