এইচএসসি পরীক্ষার খাতা ‘লাপাত্তা’, দুই শিক্ষককে শোকজ - পরীক্ষা - দৈনিকশিক্ষা

এইচএসসি পরীক্ষার খাতা ‘লাপাত্তা’, দুই শিক্ষককে শোকজ

গাজীপুর প্রতিনিধি |

টঙ্গী পাইলট স্কুল অ্যান্ড গার্লস কলেজ কেন্দ্রে বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত এইচএসসি পরীক্ষার শেষে একটি লিখিত উত্তরপত্রের সন্ধান মিলছে না। এ কেন্দ্রে মোট ৭৮০ জন পরীক্ষা দিলেও পরীক্ষার পর  লিখিত উত্তরপত্র পাওয়া গেছে ৭৭৯টি। এ ঘটনায় দুই কক্ষ পরিদর্শককে কারণ দর্শানোর নোটিশ এবং তাদের কক্ষ পরিদর্শকের দায়িত্ব থেকে অব্যহতি দেয়া হয়েছে। 

শুক্রবার দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গাজীপুর জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা রেবেকা সুলতানা এবং টঙ্গী পাইলট স্কুল অ্যান্ড গার্লস কলেজের অধ্যক্ষ ও কেন্দ্র সচিব মো. আলাউদ্দিন মিয়া।

 

অধ্যক্ষ জানান, বৃহস্পতিবার এইচএসসি রসায়ন বিষয়ের দ্বিতীয় পত্রের পরীক্ষা ছিল। টঙ্গী পাইলট স্কুল অ্যান্ড গার্লস কলেজ কেন্দ্রের একটি কক্ষে পরীক্ষা শেষে ৫২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৫১ জনের লিখিত উত্তরপত্র পাওয়া যায়। অনুসন্ধান করে দেখা গেছে ঘাটতি হওয়া উত্তরপত্রটি ছিল সাহাজ উদ্দিন সরকার স্কুল অ্যান্ড কলেজের এক পরীক্ষার্থীর। তার বাসা টঙ্গীর বগারটেক এলাকায়। বিষয়টি জানার পর ওই পরীক্ষার্থীকে বাসা থেকে ডেকে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তার লিখিত উত্তরপত্রটি পরীক্ষার হলেই কক্ষ পরিদর্শকের কাছে জমা দিয়েছেন বলে জানান। 

অধ্যক্ষ আলাউদ্দিন মিয়া আরও জানান, ওই কেন্দ্রে মোট পরীক্ষার্থী ৭৮০ জন। বৃহস্পতিবার লিখিত পরীক্ষা শেষে গণনা করে একটি উত্তরপত্র কম (৭৭৯টি) পাওয়া যায়। তবে যথানিয়মে কক্ষ পরিদর্শকের কাছে উত্তরপত্র জমা দিয়েই পরীক্ষা কেন্দ্র ত্যাগ করেছেন বলে জানিয়েছেন ওই পরীক্ষার্থী। 

সাহাজ উদ্দিন সরকার স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ মো. দেলোয়ার হোসেন দৈনিক শিক্ষাডটকমকে জানান, তার প্রতিষ্ঠানের পরীক্ষার্থী ইমন মিয়া পরীক্ষা শেষে কক্ষ পরিদর্শক মনিরা খানমের কাছে তার উত্তরপত্রটি জমা দিয়েছেন। তারপরও উত্তরপত্র না পাওয়ার বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক। এটির দায় ওই কক্ষের দুই পরিদর্শকেরই নিতে হবে। পরীক্ষার্থীরা হল ত্যাগের আগেই উত্তরপত্র মিলিয়ে নেয়া উচিৎ ছিল। এটা তাদের এক ধরণের দায়িত্ব অবহেলা। 

গাজীপুর জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা রেবেকা সুলতানা দৈনিক শিক্ষাডটকমকে জানান, উত্তরপত্র খোয়া যাওয়ার ঘটনায় দুই পরিদর্শক আতিউর রহমান ও মনিরা খানমকে কারণ দর্শানো নোটিশ দেয়া হয়েছে। তাদের বিষয়ে শিক্ষাবোর্ড সিদ্ধান্ত নেবে। তবে তাদেরকে কক্ষ পরিদর্শকের দায়িত্ব থেকে অব্যহতি দেয়া হয়েছে। কেন্দ্র সচিব ও টঙ্গী পাইলট স্কুল অ্যান্ড গার্লস কলেজের অধ্যক্ষ বিষয়টি শিক্ষাবোর্ডকে জানিয়েছেন।

কর্মসূচির নামে মানুষের ওপর হামলা হলে ছাড়বো না - dainik shiksha কর্মসূচির নামে মানুষের ওপর হামলা হলে ছাড়বো না বিশ্বকাপে সরাসরি অংশগ্রহণ নিশ্চিত বাংলাদেশের - dainik shiksha বিশ্বকাপে সরাসরি অংশগ্রহণ নিশ্চিত বাংলাদেশের প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের ফল প্রকাশ নিয়ে যা জানা গেল - dainik shiksha প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের ফল প্রকাশ নিয়ে যা জানা গেল প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বদলি বাণিজ্যের অভিযোগ - dainik shiksha প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বদলি বাণিজ্যের অভিযোগ ‘গুসি শান্তি’ পুরস্কার পেলেন শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha ‘গুসি শান্তি’ পুরস্কার পেলেন শিক্ষামন্ত্রী স্কুল সরকারি বেতন-ফি বেসরকারি - dainik shiksha স্কুল সরকারি বেতন-ফি বেসরকারি দশ বছরেও ৩য় বর্ষে আছেন ছাত্রলীগ নেত্রী তিলোত্তমা - dainik shiksha দশ বছরেও ৩য় বর্ষে আছেন ছাত্রলীগ নেত্রী তিলোত্তমা please click here to view dainikshiksha website Execution time: 0.0042378902435303