পৌর কাউন্সিলর বেঁচে দিলেন সরকারি স্কুলের মাটি! - স্কুল - দৈনিকশিক্ষা

পৌর কাউন্সিলর বেঁচে দিলেন সরকারি স্কুলের মাটি!

সিংড়া (নাটোর) প্রতিনিধি |

নাটোরের সিংড়া উপজেলার মহেশচন্দ্রপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পুরাতন ভবনের মাটি বেঁচে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। ১০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল আওয়াল রিংকু ট্রাক্টর দিয়ে বাড়ি বাড়ি মাটি বিক্রয় করছেন বলে অভিযোগে জানা গেছে।

এতে স্কুলের অভিভাবক ও এলাকাবাসীর মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।

সূত্রে জানা যায়, সম্প্রতি উপজেলার মহেশচন্দ্রপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪তলা ভবন নির্মাণের লক্ষ্যে পুরাতন টিনসেড ঘর প্রকাশ্যে নিলাম ডাকে বিক্রয় করা হয়। নিলামে সর্বোচ্চ ডাকদাতা হিসেবে মহেশচন্দ্রপুর গ্রামের ফরিদ আলীর ছেলে জনৈক মো. জসিম আলী টিনসেড ঘর ও পুরাতন ইট কিনে নেন।

কিন্তু গত ২২ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় সরোজমিনে গিয়ে দেখা যায়, পুরাতন ভবনের নিচের মাটি ট্রাক্টরযোগে বাড়ি বাড়ি বিক্রয় করা হচ্ছে।

স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. ওয়াজেদ আলী ওরফে ওয়াদুদ বলেন, পৌর কাউন্সিলর আব্দুল আওয়াল রিংকু প্রতি গাড়ি মাটি ১২শ টাকায় বিক্রয় করছেন। এতে স্কুলের চরম ক্ষতি হচ্ছে। কোনো নিষেধ শুনছেন না।

স্কুলের শিক্ষা কমিটির সহ-সভাপতি শরিফুল ইসলাম বলেন, স্কুলটি নিচু হওয়ায় প্রতি বছরই বন্যা কবলিত হয়। এতে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের প্রায় দুই মাস লেখাপড়া বন্ধ হয়ে যায়। কিন্তু সেখান থেকে যদি গর্তে করে মাটি বিক্রয় করা হয় তবে দীর্ঘদিন প্রতিষ্ঠানটি বন্যা কবলিত থাকবে বলে জানান তিনি।

স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো. আরিফ কামাল বাবু বলেন, তার অজান্তে সেখান থেকে কয়েক গাড়ি মাটি বিক্রয় হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে সকলেই বসেছেন।

স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোছা. জান্নাতুল ফেরদৌস বলেন, নিলামে পুরাতন ভবনের টিন ও ইট বিক্রয় হয়েছে। কিন্তু এখন এখন সেখান থেকে ভবনের মাটিও অপসারণ করা হচ্ছে। যেটা সরকারি স্বার্থের পরিপন্থী। এ বিষয়ে তিনি শিক্ষা অফিসে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত কাউন্সিলর আব্দুল আওয়াল রিংকু বলেন, তিনি মাটি বিক্রয় করেননি। বরং সেখান থেকে ছয় গাড়ি মাটি কিনেছেন। তার মান ক্ষুণ্ণ করতে প্রতিপক্ষরা মিথ্যা অভিযোগ করছেন।

সিংড়া উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা (দায়িত্বপ্রাপ্ত) মো. সাজ্জাদ হোসেন বলেন, এ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। সরোজমিনে একজন সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তাকে সেখানে পাঠানো হয়েছে। পরে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

১২ মাসে বিসিএস শেষ করার ক্রাশ প্রোগ্রাম, জানালেন পিএসি চেয়ারম্যান - dainik shiksha ১২ মাসে বিসিএস শেষ করার ক্রাশ প্রোগ্রাম, জানালেন পিএসি চেয়ারম্যান শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে মনোবিজ্ঞানী নিয়োগ শিগগিরই : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে মনোবিজ্ঞানী নিয়োগ শিগগিরই : শিক্ষামন্ত্রী আশঙ্কার চেয়েও কঠিন অপপ্রয়োগ হচ্ছে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের - dainik shiksha আশঙ্কার চেয়েও কঠিন অপপ্রয়োগ হচ্ছে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অনুদানের নামে প্রতারণা, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সতর্কতা - dainik shiksha অনুদানের নামে প্রতারণা, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সতর্কতা করোনাকালেও দুর্নীতি, মিনিষ্ট্রি অডিট চলছে রাজধানীর ১২ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে - dainik shiksha করোনাকালেও দুর্নীতি, মিনিষ্ট্রি অডিট চলছে রাজধানীর ১২ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সংশোধনের চিন্তাভাবনা নেই : আইনমন্ত্রী - dainik shiksha ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সংশোধনের চিন্তাভাবনা নেই : আইনমন্ত্রী ১০ মার্চের মধ্যে সব শিক্ষককে টিকা নেয়ার নির্দেশ - dainik shiksha ১০ মার্চের মধ্যে সব শিক্ষককে টিকা নেয়ার নির্দেশ নগদের পোর্টালে উপবৃত্তি পাওয়া শিক্ষার্থীদের তথ্য অন্তর্ভুক্তি শুরু ১৫ মার্চ - dainik shiksha নগদের পোর্টালে উপবৃত্তি পাওয়া শিক্ষার্থীদের তথ্য অন্তর্ভুক্তি শুরু ১৫ মার্চ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি আবেদনের ৭ জরুরি নির্দেশনা - dainik shiksha ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি আবেদনের ৭ জরুরি নির্দেশনা ৩ মাসের এমপিও হারালেন আরও ৪ প্রতিষ্ঠান প্রধান - dainik shiksha ৩ মাসের এমপিও হারালেন আরও ৪ প্রতিষ্ঠান প্রধান সরকারি প্রাথমিকের শিক্ষিকাকে এমপিওভুক্তির চেষ্টা, বেতন বন্ধ হলো অধ্যক্ষের - dainik shiksha সরকারি প্রাথমিকের শিক্ষিকাকে এমপিওভুক্তির চেষ্টা, বেতন বন্ধ হলো অধ্যক্ষের please click here to view dainikshiksha website