প্রধান অতিথি না করায় বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্ট বন্ধ করলেন চেয়ারম্যান - স্কুল - দৈনিকশিক্ষা

প্রধান অতিথি না করায় বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্ট বন্ধ করলেন চেয়ারম্যান

লালমনিরহাট প্রতিনিধি |

বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্ট পণ্ড হাতীবান্ধা (লালমনিরহাট) প্রতিনিধি লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় প্রধান অতিথি না করায় এক ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্য়ানের বিরুদ্ধে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্টের চূড়ান্ত খেলা বন্ধের অভিযোগ উঠেছে। গত বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলার আলিমুদ্দিন সরকারি কলেজ মাঠে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত চেয়ারম্যানের নাম সেলিম হোসেন। তিনি উপজেলার টংভাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান। 

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, বৃহস্পতিবার আলিমুদ্দিন কলেজ মাঠে টুর্নামেন্টের টংভাঙ্গা ইউনিয়নের ফাইনাল খেলার আয়োজন করা হয়। বিকেলে বালকদের খেলা চলা অবস্থায় মাঠে আসেন চেয়ারম্যান সেলিম। এ সময় ব্যানারে প্রধান অতিথি হিসেবে তাঁর নাম না থাকায় তিনি টুর্নামেন্টের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের গালাগাল করেন। অবশ্য ওই ব্যানারে সভাপতি হিসেবে সেলিমের নাম ছিল। এরপরও বিষয়টি নিয়ে ক্ষুব্ধ হয়ে চেয়ারম্য়ান খেলা বন্ধ করে দেন। বাধ্য হয়ে খেলা অসম্পূর্ণ রেখে মাঠ ছেড়ে চলে যান সবাই। বারো দুনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নূরনবী ইসলাম বলেন, ‘খেলা চলার সময় সেলিম চেয়ারম্যান মাঠে ঢুকে অকথ্য় ভাষায় সকলকে গালিগালাজ করেন ও খেলা বন্ধ করে দেন।’ অভিযোগের বিষয়ে কথা বলতে চেয়ারম্যান সেলিম হোসেনের মোবাইল ফোনে কল করা হলে তাঁর নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যায়।

হাতীবান্ধা উপজেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বেলাল হোসেন বলেন, ‘টংভাঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান সেলিম হোসেন মাঠে প্রবেশ করে অকথ্য় ভাষায় গালিগালাজ করে বলেন, আমাকে প্রধান অতিথি না করে সভাপতি করা হয়েছে কেন? এ কথা বলেই খেলা বন্ধ করে দেন। তাই খেলাটি অসম্পূর্ণ অবস্থায় শেষ হয়। বিষয়টি ইউএনও স্যারকে জানানো হয়েছে।’

হাতীবান্ধা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজির হোসেন বলেন, ‘আমি বিষয়টি শুনেছি রাতে।

ঘটনাটি বিকেলে ঘটেছে। তাৎক্ষণিক জানালে ব্যবস্থা নিতাম। প্রধান অতিথির জন্য এটা উনি কখনো করতে পারেন না। যে খেলাটি স্থগিত করা হয়েছে, পরে সিদ্ধান্ত মোতাবেক তা আবারও হবে।’

জন্মতারিখের প্রমাণ ছাড়া জন্মনিবন্ধন করা যাবে না - dainik shiksha জন্মতারিখের প্রমাণ ছাড়া জন্মনিবন্ধন করা যাবে না ১৩ লাখ টাকা ঘুষ দিয়েও চাকরি হয়নি, লাশ নিয়ে সভাপতির বাড়িতে অবস্থান - dainik shiksha ১৩ লাখ টাকা ঘুষ দিয়েও চাকরি হয়নি, লাশ নিয়ে সভাপতির বাড়িতে অবস্থান শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাপ্তাহিক ছুটি দুই দিন করার চিন্তা - dainik shiksha শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাপ্তাহিক ছুটি দুই দিন করার চিন্তা আগের সরকার নিয়মের তোয়াক্কা না করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করেছে : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha আগের সরকার নিয়মের তোয়াক্কা না করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করেছে : শিক্ষামন্ত্রী অনুমতি ছাড়াই দুই বছরের বেশি ছুটিতে প্রধান শিক্ষক, সহকারী শিক্ষকও নেই - dainik shiksha অনুমতি ছাড়াই দুই বছরের বেশি ছুটিতে প্রধান শিক্ষক, সহকারী শিক্ষকও নেই মেডিক্যালের প্রশ্নফাঁস চক্রে ছয় চিকিৎসকসহ জড়িত ৪২ - dainik shiksha মেডিক্যালের প্রশ্নফাঁস চক্রে ছয় চিকিৎসকসহ জড়িত ৪২ বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে অবৈধ স্টাডি সেন্টার, ব্যবস্থা নিচ্ছে না মন্ত্রণালয় - dainik shiksha বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে অবৈধ স্টাডি সেন্টার, ব্যবস্থা নিচ্ছে না মন্ত্রণালয় please click here to view dainikshiksha website