প্রভাষক ও শিক্ষক গ্রেড বৈষম্য অবসান না হলে আমরণ অনশন - কলেজ - দৈনিকশিক্ষা

প্রভাষক ও শিক্ষক গ্রেড বৈষম্য অবসান না হলে আমরণ অনশন

নিজস্ব প্রতিবেদক |

সদ্য জাতীয়করণ করা কলেজে অ্যাডহক নিয়োগ প্রক্রিয়াধীন বেসরকারি আমলের গ্রন্থাগার প্রভাষক ও সহকারী শিক্ষকদের (গ্রন্থাগার ও তথ্যবিজ্ঞান) ৯ম ও ১০ম গ্রেডে আত্তীকরণের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ সরকারি কলেজ গ্রন্থাগার পেশাজীবী পরিষদ। আগামী এক মাসের মধ্যে দাবি বাস্তবায়ন করা না হলে আমরণ অনশনসহ নানা কর্মসূচি দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে তারা।

গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে তারা এ দাবি জানায়।

বাংলাদেশ সরকারি কলেজ গ্রন্থাগার পেশাজীবী পরিষদের সভাপতি আবুল কালাম মোহাম্মদ ফরহাদ বলেন, আমরা সদ্য জাতীয়করণ করা কলেজে বেসরকারি আমলে (এমপিওভুক্ত) গ্রন্থাগারিক ও সহকারী গ্রন্থাগারিকরা যথাক্রমে ৯ম ও ১০ম গ্রেডে যোগদান করে অনেকে টাইমস্কেল পেয়ে ৯ম, ৭ম এবং ৬ষ্ঠ গ্রেডে কর্মরত আছি। ২০২১ খ্রিষ্টাব্দের ২৮ মার্চ জনবল কাঠামো এমপিও নীতিমালায় পদ দুটির নাম পরিবর্তন করে গ্রন্থাগার প্রভাষক ও সহকারী শিক্ষক (গ্রন্থাগার ও তথ্য বিজ্ঞান) হিসাবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়। বর্তমানে এমপিও সিটে শিক্ষক হিসাবে এবং নির্ধারিত বেতন গ্রেড বিদ্যমান রয়েছে। জাতীয়করণ করা কলেজে আত্তীকরণ বিধিমালা ২০১৮ অনুযায়ী বেসরকারি আমলে (এমপিওভুক্ত) কর্মরত শিক্ষক কর্মচারীদের ক্ষেত্রে স্ব পদে স্ব গ্রেডে পদ সৃজন করে অ্যাডহক নিয়োগ প্রদান প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। শুধু গ্রন্থাগারিক ও সহকারী গ্রন্থাগারিক পদ দুটির ক্ষেত্রে কাম্যযোগ্যতা থাকার পরও গ্রেড অবনমন করে গ্রন্থাগারিক ৯ম গ্রেডের পরিবর্তে ১০ম গ্রেড এবং সহকারী গ্রন্থাগারিকদের ১০ম গ্রেডের পরিবর্তে ১৪তম গ্রেড দেওয়া হচ্ছে। যা বেসরকারি আমলে যোগদান করা পদের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। যার ফলে সরকারি হলেও বেতন ভাতা বেসরকারি আমলে প্রাপ্ত বেতনের অর্ধেকে নেমে আসে। বাংলাদেশ তথা পৃথিবীর কোথাও এমন নজির নেই।

তিনি বলেন, গ্রন্থাগারিক ও সহকারী গ্রন্থাগারিকরা ১০ থেকে ৩০ বছর কর্মরত থাকার পরও পদ সৃজন করে যোগদান করা গ্রেডও বহাল রাখা হচ্ছে না। এমনকি শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে সুপারিশ থাকা সত্ত্বেও অর্থ মন্ত্রণালয় কোনো বিধি ছাড়া আত্তীকরণে আমাদের ওপর অবিচার করছে। এতে আমরা আর্থিক, সামাজিক ও মানসিকভাবে ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছি। জাতীয়করণ করা কলেজগুলোর গ্রন্থাগার পেশাজীবীদের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক সুপারিশ করা ও সম্মতি প্রদান করা ৯ম গ্রেড ও ১০ম গ্রেডের ব্যাপারে অসম্মতি প্রদান করায় আমরা গ্রন্থাগার পেশাজীবীরা হতাশ এবং মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছি।

বাংলাদেশ সরকারি কলেজ গ্রন্থাগার পেশাজীবী পরিষদের পক্ষ থেকে পাঁচ দফা দাবি উত্থাপন করা হয়। তাদের দাবিগুলো হলো— ১. সদ্য জাতীয়করণ করা কলেজে কর্মরত গ্রন্থাগার প্রভাষক ও সহকারী শিক্ষকদের স্ব পদে স্ব গ্রেডে যথাক্রমে ৯ম ও ১০ম গ্রেডে আত্তীকরণ করতে হবে ২. আত্তীকরণ বিধিমালা ২০১৮ মোতাবেক সরকারি কলেজের শিক্ষক কর্মচারীদের অনুরূপ পদ সৃজন করে অ্যাডহক নিয়োগ প্রদান করতে হবে ৩. বেসরকারি আমলে এমপিওভুক্ত বিধি মোতাবেক কাম্যযোগ্যতাধারীদের অ্যাডহক নিয়োগ দেয়ার পর সিলেকশন গ্রেড প্রদান করতে হবে ৪. সহকারী শিক্ষকদের কাম্যযোগ্যতা সাপেক্ষে প্রমোশন দিয়ে গ্রন্থাগার প্রভাষক করতে হবে। জাতীয়করণ করা কলেজে কাম্যযোগ্যতা থাকলে নিজ প্রতিষ্ঠান থেকে পদ পূরণ করতে হবে ৫. গ্রন্থাগার আইন প্রণয়ন করা এবং সব গ্রন্থাগারে আধুনিক তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার সুনিশ্চিত করতে হবে।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সরকারি কলেজ গ্রন্থাগার পেশাজীবী পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রমজান আলী, মোস্তাফিজুর রহমান, প্রকাশ চন্দ্র সরকার, হুমায়ুন কবির, আব্দুল হান্নান, গোলাম মোস্তফা প্রমুখ।

জন্মতারিখের প্রমাণ ছাড়া জন্মনিবন্ধন করা যাবে না - dainik shiksha জন্মতারিখের প্রমাণ ছাড়া জন্মনিবন্ধন করা যাবে না ১৩ লাখ টাকা ঘুষ দিয়েও চাকরি হয়নি, লাশ নিয়ে সভাপতির বাড়িতে অবস্থান - dainik shiksha ১৩ লাখ টাকা ঘুষ দিয়েও চাকরি হয়নি, লাশ নিয়ে সভাপতির বাড়িতে অবস্থান শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাপ্তাহিক ছুটি দুই দিন করার চিন্তা - dainik shiksha শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাপ্তাহিক ছুটি দুই দিন করার চিন্তা আগের সরকার নিয়মের তোয়াক্কা না করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করেছে : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha আগের সরকার নিয়মের তোয়াক্কা না করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করেছে : শিক্ষামন্ত্রী অনুমতি ছাড়াই দুই বছরের বেশি ছুটিতে প্রধান শিক্ষক, সহকারী শিক্ষকও নেই - dainik shiksha অনুমতি ছাড়াই দুই বছরের বেশি ছুটিতে প্রধান শিক্ষক, সহকারী শিক্ষকও নেই মেডিক্যালের প্রশ্নফাঁস চক্রে ছয় চিকিৎসকসহ জড়িত ৪২ - dainik shiksha মেডিক্যালের প্রশ্নফাঁস চক্রে ছয় চিকিৎসকসহ জড়িত ৪২ বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে অবৈধ স্টাডি সেন্টার, ব্যবস্থা নিচ্ছে না মন্ত্রণালয় - dainik shiksha বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে অবৈধ স্টাডি সেন্টার, ব্যবস্থা নিচ্ছে না মন্ত্রণালয় please click here to view dainikshiksha website