প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট - বিবিধ - দৈনিকশিক্ষা

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট

দৈনিকশিক্ষা ডেস্ক |

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে বড় ধাক্কা রাজ্যের। শিক্ষক নিয়োগে অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট। মেধা তালিকায় গরমিল এবং নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অনিয়মের অভিযোগ নিয়ে আদালতে মামলা দায়ের করেছিলেন চাকরিরপ্রার্থীরা। তার শুনানি করতে গিয়েই সোমবার প্রথমিক নিয়োগ প্রক্রিয়ায় স্থগিতাদেশ দেন বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজ। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত নিয়োগ প্রক্রিয়া স্থগিত রাথতে হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। তবে আদালতের নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে ইতিমধ্যেই ডিভিশন বেঞ্চে গিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ।

রাজ্যে প্রায় সাড়ে ১৬ হাজার শূন্যপদে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের জন্য সম্প্রতি বিজ্ঞপ্তি জারি করে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। তার পরই আদালতের দ্বারস্থ হন চাকরিপ্রার্থীদের একাংশ। তাঁরা অভিযোগ করেন, প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ায় বিস্তর গরমিল রয়েছে। রাতারাতি মেসেজ পাঠিয়ে এবং ফোন করে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করা হচ্ছে। কীসের ভিত্তিতে চাকরি দেওয়া হচ্ছে, লিখিত পরীক্ষায় কে, কত নম্বর পেয়েছেন এবং ইন্টারভিউয়ে কত পেয়েছেন, সেই সংক্রান্ত কোনও তথ্যই প্রকাশ করা হচ্ছে না।

এমনকি মেধাতালিকা প্রকাশেও যথেষ্ট অস্বচ্ছতা রয়েছে বলে অভিযোগ করেন চাকরিপ্রার্থীরা। তাঁদের অভিযোগ ছিল, মেধাতালিকা প্রকাশেও নিয়ম মানা হয়নি। তাই এই নিয়োগ প্রক্রিয়া আপাতত বন্ধ রাখাই শ্রেয়। সোমবার সেই মামলার শুনানি করতে গিয়েই প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে স্থগিতাদেশ দেয় আদালত।

এর আগে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে ভূরি ভূরি দুর্নীতি ও স্বজনপোষণ চলছে বলে অভিযোগ জানিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি দিয়েছিলেন বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান ও বাম পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তী। তাঁদের অভিযোগ ছিল,, ২০১৪-র টেট-এর ভিত্তিতে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের যে তালিকা প্রকাশিত হয়েছে, তা ভুলে ভরা এবং দুর্নীতির অভিযোগ স্পষ্ট। খাদ্য দফতরের নিয়োগেও একই ছবি। আবার হেল্থ রিক্রুটমেন্ট বোর্ডের প্রকাশিত শিক্ষক-চিকিৎসক নিয়োগের তালিকায় এক মন্ত্রীর পরিবারের জন্য ‘বেনজির স্বজনপোষণ’ করা হয়েছে।

চিঠিতে মান্নান ও সুজনবাবু লেখেন, ‘নেতাদের ইচ্ছায় ও ঘনিষ্ঠতায় যে ভাবে মেধা তালিকাকে মূল্যহীন করার চেষ্টা চলছে, তার মধ্যে দিয়ে রাজ্যের সাধারণ কর্মপ্রার্থীদের অধিকার প্রতিদিন খর্ব হচ্ছে’।

সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা

১২ মাসে বিসিএস শেষ করার ক্রাশ প্রোগ্রাম, জানালেন পিএসি চেয়ারম্যান - dainik shiksha ১২ মাসে বিসিএস শেষ করার ক্রাশ প্রোগ্রাম, জানালেন পিএসি চেয়ারম্যান শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে মনোবিজ্ঞানী নিয়োগ শিগগিরই : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে মনোবিজ্ঞানী নিয়োগ শিগগিরই : শিক্ষামন্ত্রী আশঙ্কার চেয়েও কঠিন অপপ্রয়োগ হচ্ছে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের - dainik shiksha আশঙ্কার চেয়েও কঠিন অপপ্রয়োগ হচ্ছে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অনুদানের নামে প্রতারণা, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সতর্কতা - dainik shiksha অনুদানের নামে প্রতারণা, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সতর্কতা করোনাকালেও দুর্নীতি, মিনিষ্ট্রি অডিট চলছে রাজধানীর ১২ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে - dainik shiksha করোনাকালেও দুর্নীতি, মিনিষ্ট্রি অডিট চলছে রাজধানীর ১২ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সংশোধনের চিন্তাভাবনা নেই : আইনমন্ত্রী - dainik shiksha ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সংশোধনের চিন্তাভাবনা নেই : আইনমন্ত্রী ১০ মার্চের মধ্যে সব শিক্ষককে টিকা নেয়ার নির্দেশ - dainik shiksha ১০ মার্চের মধ্যে সব শিক্ষককে টিকা নেয়ার নির্দেশ নগদের পোর্টালে উপবৃত্তি পাওয়া শিক্ষার্থীদের তথ্য অন্তর্ভুক্তি শুরু ১৫ মার্চ - dainik shiksha নগদের পোর্টালে উপবৃত্তি পাওয়া শিক্ষার্থীদের তথ্য অন্তর্ভুক্তি শুরু ১৫ মার্চ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি আবেদনের ৭ জরুরি নির্দেশনা - dainik shiksha ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি আবেদনের ৭ জরুরি নির্দেশনা ৩ মাসের এমপিও হারালেন আরও ৪ প্রতিষ্ঠান প্রধান - dainik shiksha ৩ মাসের এমপিও হারালেন আরও ৪ প্রতিষ্ঠান প্রধান সরকারি প্রাথমিকের শিক্ষিকাকে এমপিওভুক্তির চেষ্টা, বেতন বন্ধ হলো অধ্যক্ষের - dainik shiksha সরকারি প্রাথমিকের শিক্ষিকাকে এমপিওভুক্তির চেষ্টা, বেতন বন্ধ হলো অধ্যক্ষের please click here to view dainikshiksha website