ফ্রান্সে আগাম নির্বাচনের ঘোষণা ম্যাক্রোঁর - দৈনিকশিক্ষা

ফ্রান্সে আগাম নির্বাচনের ঘোষণা ম্যাক্রোঁর

দৈনিক শিক্ষাডটকম ডেস্ক |

৯ জুন রোববার ইউরোপীয় ইউনিয়নের নির্বাচনে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁর দলের ভরাডুবির কারণে জাতীয় সংসদ ভেঙে দিয়ে, আগাম নির্বাচনের ঘোষণা দিয়েছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রন। আগামী ৩০ জুন এবং ৭ জুলাই দুই ধাপে ফ্রান্সের জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এতে অভিবাসন বিরোধী মারিন লো- পেন ক্ষমতায় আসার সম্ভাবনা প্রবল হয়ে উঠেছে।

নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়া কট্টর ডানপন্থী নেত্রী মারিন লো পেনের দলের (Rassemblement National) প্রেসিডেন্ট জগদান বাগডেলা গতকাল সন্ধ্যায় প্রেসিডেন্টের কাছে জাতীয় পরিষদ ভেঙে দেয়ার অনুরোধ জানান।

প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ রোববার বলেছেন,  তিনি জাতীয় পরিষদ ভেঙে দিচ্ছেন এবং প্রারম্ভিক আইনসভা নির্বাচনের আহ্বান জানিয়েছেন, ইউরোপীয় পার্লামেন্টের নির্বাচনে অতি ডানপন্থীদের হাতে তার দল  পরাজয়ের পরে একটি রাজনৈতিক ভূমিকম্প শুরু করেছে। এ সময় তিনি বলেন, ইউরোপীয় এই ভোটের ফলাফল “ইউরোপীয় ইউনিয়ন রক্ষাকারী দলগুলোর জন্য একটি ভাল ফলাফল নয়”। জাতীয়তাবাদীদের উত্থান আমাদের জাতির জন্য একটি বিপদ।

এছাড়াও তিনি ফ্রান্সের শান্তি এবং সম্প্রীতির জন্য আগামী ৩০ জুন এবং ৭ জুলাই জাতীয় নির্বাচনে তার দলকে  ব্যাপকভাবে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানান। উল্লেখ্য যে, ফ্রান্সের মোট উগ্র-ডানপন্থী দলগুলো প্রায় ৪০ শতাংশ ভোট জিতেছে। জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ঘোষণাকে স্বাভাবিকভাবেই স্বাগত জানিয়েছিলেন মারি লো পেন, যার জাতীয় সমাবেশে আসন্ন সংসদীয় ভোটে ক্ষমতা দখলের এখনও সেরা সুযোগ থাকবে- এমন সময়ে যখন কার্যত অন্য সব দল বিশৃঙ্খলায় রয়েছে।

যদি মারি লো পেনের অভিবাসী বিরোধী দল ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলিতে সংখ্যাগরিষ্ঠতায় জিততে পারে, তাহলে প্রধানমন্ত্রীর কাজ সম্ভবত তার সঙ্গী জর্ডান বারডেলার কাছে চলে যাবে, যিনি ২৮ বছর বয়সী টেলিজেনিক, ইইউ নির্বাচনে সর্বোচ্চ স্কোর অর্জন করেছিলেন।  

এই ধরনের পরিস্থিতিতে ম্যাক্রোঁ এখনও প্রতিরক্ষা এবং পররাষ্ট্র নীতি পরিচালনা করবেন, কিন্তু তিনি অভ্যন্তরীণ এজেন্ডা নির্ধারণের ক্ষমতা হারাবেন। তিনি রাষ্ট্রপতি হিসাবে স্মরণীয় হবেন যিনি ডানদিকে যেতে দিয়েছেন।

এদিনের নির্বাচনের ফলাফলের অর্থ হলো ফ্রান্স, ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য, ২৭-সদস্যের ব্লকের মধ্যে সবচেয়ে ডানপন্থী, ইউরোসেপ্টিক আইন প্রণেতাদের সবচেয়ে বড় দল ব্রাসেলসে পাঠাবে।

ন্যাশনাল র‌্যালি ঐতিহ্যগতভাবে ইউরোপীয় নির্বাচনে ভালো করেছে, ২০১৪ এবং ২০১৯ সালে ভোটে শীর্ষে রয়েছে। রোববার-এর বিশাল ১৫-পয়েন্ট ব্যবধানে জয়লাভ করেছে। যা পাঁচ বছর আগের মাত্র ১ শতাংশ থেকে – উভয়ই ইঙ্গিত দেয় যে লো পেনের দল একটি ঐতিহাসিক অবস্থানে রয়েছে। উচ্চ এবং ম্যাক্রন শিবির অভূতপূর্ব দুর্বল অবস্থানে রয়েছে। ফ্রান্স আনবোড, জিন-লুক মেলেনচনের উগ্র বাম দল, ৮.৭ শতাংশ ভোট নিয়ে পাঁচ বছর আগের চেয়ে ভাল ফল করেছে – এটি প্রত্যাশিত-এর চেয়ে বেশি যা তার প্রচারণার কেন্দ্রস্থলে গাজা যুদ্ধকে রাখার সিদ্ধান্তকে আংশিকভাবে প্রমাণ করে।  কিন্তু বামদিকে এর আধিপত্য এখন একটি পুনরুত্থিত সমাজতান্ত্রিক দল দ্বারা চ্যালেঞ্জ করা হবে, যা ১৪ শতাংশ ভোট জিততে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

মাধ্যমিক পর্যায়ে স্কুল খুলছে ২৬ জুন, শনিবারও ছুটি - dainik shiksha মাধ্যমিক পর্যায়ে স্কুল খুলছে ২৬ জুন, শনিবারও ছুটি অতিরিক্ত রাজনীতি শিক্ষাব্যবস্থা নষ্ট করে: ঢাবি ভিসি - dainik shiksha অতিরিক্ত রাজনীতি শিক্ষাব্যবস্থা নষ্ট করে: ঢাবি ভিসি শিক্ষা আমাদেরকে আমলাতান্ত্রিক করছে নাকি আমলাতন্ত্রই শিক্ষাব্যবস্থা সৃষ্টি করেছে - dainik shiksha শিক্ষা আমাদেরকে আমলাতান্ত্রিক করছে নাকি আমলাতন্ত্রই শিক্ষাব্যবস্থা সৃষ্টি করেছে ক্লাসে ছোট বোনকে দুধ খাইয়ে ভাইরাল থাই ছাত্রী - dainik shiksha ক্লাসে ছোট বোনকে দুধ খাইয়ে ভাইরাল থাই ছাত্রী গাজায় ৬ লাখেরও বেশি শিশু শিক্ষা থেকে বঞ্চিত: জাতিসংঘ - dainik shiksha গাজায় ৬ লাখেরও বেশি শিশু শিক্ষা থেকে বঞ্চিত: জাতিসংঘ দৈনিক শিক্ষার নামে একাধিক ভুয়া পেজ-গ্রুপ ফেসবুকে - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষার নামে একাধিক ভুয়া পেজ-গ্রুপ ফেসবুকে কওমি মাদরাসা: একটি অসমাপ্ত প্রকাশনা গ্রন্থটি এখন বাজারে - dainik shiksha কওমি মাদরাসা: একটি অসমাপ্ত প্রকাশনা গ্রন্থটি এখন বাজারে র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে থাকা কলেজগুলোর নাম এক নজরে - dainik shiksha র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে থাকা কলেজগুলোর নাম এক নজরে বঙ্গবন্ধু সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ সোমবার - dainik shiksha বঙ্গবন্ধু সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ সোমবার please click here to view dainikshiksha website Execution time: 0.0031468868255615