বিদ্যালয়ের কক্ষে পরিবার নিয়ে বসবাস করছেন ইউপি চেয়ারম্যান - স্কুল - দৈনিকশিক্ষা

বিদ্যালয়ের কক্ষে পরিবার নিয়ে বসবাস করছেন ইউপি চেয়ারম্যান

পটুয়াখালী প্রতিনিধি |

পটুয়াখালী দশমিনা উপজেলার চরবোরহান ইউনিয়নের ১০২ নম্বর মধ্য চরবোরহান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষ দখল করে পরিবার নিয়ে বসবাস করছেন ঐ ইনিয়নের চেয়ারম্যান মো. নজির আহম্মেদ সরদার। তবে চেয়ারম্যান বলছেন, ‘স্কুল ভবনটা ইউনিয়নের মঝখানে থাকায় আমি এখানে অস্থায়ী অফিস করেছি।’ এ ঘটনায় ঐ স্কুলের শিক্ষক ও অভিভাবকদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয় বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, ২০১৪ সালে উপজেলা থেকে প্রায় ২২ কিলোমিটার দূরত্বে বিচ্ছিন্ন দ্বীপে ১০ হাজার ভোটার নিয়ে চরবোরহান ইউনিয়নটি গঠিত হয়। প্রথম নির্বাচিত চেয়ারম্যান হিসেবে মো. নজির আহম্মেদ সরদার ২০১৭ সালের জুলাই মাসের ২১ তারিখ শপথ গ্রহণ করেন। শপথগ্রহণের বছর না যেতেই ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে স্কুলের দুটি কক্ষ দখল করে পরিবার নিয়ে বসবাস করে আসছেন।

এ বিষয়ে তথ্য সংগ্রহের জন্য ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, বিদ্যালয়ের সামনে খাঁচা বানিয়ে হাঁস-মুরগির খামার করেছেন। হাঁস-মুরগির খাঁচা থাকায় বিদ্যালয়ের সৌন্দর্য নষ্ট হওয়ার পাশাপাশি পরিবেশ দূষিত হচ্ছে। বিদ্যালয়ের ভেতরের একটি কক্ষে পরিবার নিয়ে বসবাস করেন তিনি। ঐ কক্ষের সামনের বারান্দা দিয়ে রান্নাঘর নির্মাণ করেছেন। অন্য একটি কক্ষ ইউনিয়ন পরিষদের কাজ ও গেস্টরুম হিসেবে ব্যবহার করছেন।

চরবোরহান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষ দখল করে পরিবার নিয়ে বসবাস করছেন ইউপি চেয়ারম্যান । ছবি : সংগৃহীত

এ বিষয় চরবোরহান ইউপি চেয়ারম্যান মো. নজির আহমেদ সরদার বলেন, ‘বিদ্যালয়টি ইউনিয়নের মাঝখানে হওয়ায় এখান থেকে ইউপি কার্যক্রম পরিচালনা করতে সুবিধা হয়। তবে আমি মৌখিকভাবে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও শিক্ষা অফিসারকে ভবন ব্যবহারের বিষয়টি জানিয়েছি।’

ঐ স্কুলের প্রধান শিক্ষক সুনীল বাবু বলেন, ‘আমি তাকে স্কুলের ভবন ছাড়তে বলেছি, কিন্তু তিনি না ছাড়লে আমি কী করতে পারি? তিনি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান।’

উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. রুহুল আমিন বলেন, ‘আমার কাছে কখনো চেয়ারম্যান স্কুল ভবনে থাকার কথা বলেননি। সহকারী শিক্ষা অফিসার মামুনের মাধ্যমে চেয়ারম্যানকে ভবন ছাড়ার কথা বলেছি। তিনি ভবন না ছাড়লে আমরা আইনি ব্যবস্থা নেব।’

উপজেলা নির্বাহী অফিসার তানিয়া ফেরদৌস বলেন, ‘আমার দশমিনায় যোগদান করার অনেক আগ থেকে চেয়ারম্যান ঐ ভবনে উঠেছেন। তিনি আমাকে স্কুল ভবনে থাকার কথা কখনো বলেননি। তবে আমি কয়েক দিন হলো শুনেছি স্কুল ভবনের একটি রুমে পরিষদের কাজকর্ম করা হচ্ছে।’

অনুদানের টাকা পেতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের অনলাইন আবেদন শুরু ১ ফেব্রুয়ারি - dainik shiksha অনুদানের টাকা পেতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের অনলাইন আবেদন শুরু ১ ফেব্রুয়ারি উপবৃ্ত্তি পেতে প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের জন্ম নিবন্ধন বাধ্যতামূলক - dainik shiksha উপবৃ্ত্তি পেতে প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের জন্ম নিবন্ধন বাধ্যতামূলক করোনায় শিক্ষা কার্যক্রম চলমান রাখতে আলোচনায় বসছেন দুই মন্ত্রণালয়ের কর্তারা - dainik shiksha করোনায় শিক্ষা কার্যক্রম চলমান রাখতে আলোচনায় বসছেন দুই মন্ত্রণালয়ের কর্তারা পিকে হালদার কাণ্ডে এন আই খানের নাম ভুলভাবে যুক্ত হওয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংকের আবেদন - dainik shiksha পিকে হালদার কাণ্ডে এন আই খানের নাম ভুলভাবে যুক্ত হওয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংকের আবেদন শিক্ষার্থী বাড়ানোর প্রস্তাব রেখে এমপিওর নীতিমালা চূড়ান্ত - dainik shiksha শিক্ষার্থী বাড়ানোর প্রস্তাব রেখে এমপিওর নীতিমালা চূড়ান্ত স্কুল খোলার পক্ষে ৭৫ শতাংশ শিক্ষার্থী - dainik shiksha স্কুল খোলার পক্ষে ৭৫ শতাংশ শিক্ষার্থী অনলাইন ক্লাসে অংশ নেয়নি ৬৯ শতাংশ শিক্ষার্থী - dainik shiksha অনলাইন ক্লাসে অংশ নেয়নি ৬৯ শতাংশ শিক্ষার্থী ফেব্রুয়ারি থেকে অনলাইনে শিক্ষকদের বদলি শুরুর পরিকল্পনা - dainik shiksha ফেব্রুয়ারি থেকে অনলাইনে শিক্ষকদের বদলি শুরুর পরিকল্পনা পরীক্ষা ছাড়া ফল প্রকাশে তিনটি বিল সংসদে উত্থাপিত - dainik shiksha পরীক্ষা ছাড়া ফল প্রকাশে তিনটি বিল সংসদে উত্থাপিত তিন বিভাগে ৭৬ শিক্ষার্থী, শিক্ষক ৬৭ : জটিল পরিস্থিতি - dainik shiksha তিন বিভাগে ৭৬ শিক্ষার্থী, শিক্ষক ৬৭ : জটিল পরিস্থিতি বিশ্ববিদ্যালয়ে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষায় ন্যূনতম ফি নেয়ার সিদ্ধান্ত - dainik shiksha বিশ্ববিদ্যালয়ে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষায় ন্যূনতম ফি নেয়ার সিদ্ধান্ত please click here to view dainikshiksha website