বিল গেটসের পাঁচটি প্রিয় বই - বই - দৈনিকশিক্ষা

বিল গেটসের পাঁচটি প্রিয় বই

দৈনিকশিক্ষা ডেস্ক |

'সব পাঠক নেতা নন, কিন্তু সব নেতাই পাঠক' - হ্যারি এস ট্রুমান

বই পড়া এবং এ নিয়ে ব্লগে নিজের দৃষ্টিভঙ্গি শেয়ার করার ব্যাপারে বরাবরই উৎসাহী মাইক্রোসফট প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস। সম্প্রতি তিনি এ বছরের সেরা পাঁচটি বইয়ের একটি তালিকা দিয়েছেন যা সব পাঠকের পড়া উচিত বলে মনে করেন তিনি। মেডিটেশন, স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র থেকে থ্রিলার পর্যন্ত বিষয়বস্তুর বইগুলো সবার জন্য গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করেন তিনি। বইগুলো ছুটির দিনে পড়তে এবং বন্ধুদের উপহার হিসেবে দিতে উপদেশ দিয়েছেন এই শীর্ষ ধনী।

নিচে বইগুলোর বিষয়বস্তু ও এগুলো সম্পর্কে  বিল গেটসের উপদেশ তুলে ধরা হলো : 

১। টারা ওয়েস্টওভারের 'এডুকেটেড'
প্রকাশিত গ্রন্থটিতে নিজের চলমান স্মৃতিকথা তুলে ধরেছেন টারা ওয়েস্টওভার। তাঁর বাবা ছিলেন পাবলিক এডুকেশনের বিপক্ষে। ১৭ বছর বয়সে বাড়ি ছাড়ার আগ পর্যন্ত তিনি স্কুলে যাননি। জ্ঞানের তৃষ্ণাই তাঁকে সীমানা পর্যন্ত নিয়ে গেছে। ২০১৩ সালে ইতিহাসে পিএইচডি  অর্জন করেন এই লেখক। বইটি সম্পর্কে ব্লগে বিল গেটস লিখেছেন, 'আমি কখনো ভাবিনি, এমন পরিবারে বেড়ে ওঠা একজন মানুষের জীবনের সঙ্গে পরিচিত হবো। তিনি একজন ভালো লেখক। বইটিতে যখন আমি তাঁর শৈশব সম্পর্কে পড়ছিলাম বিষয়টি আমার মনে গভীরভাবে প্রতিফলিত হচ্ছিল।

২। পল শেয়ারির 'আর্মি অব নান'
'ছুটির দিনে পাঠকের মনে স্বয়ংক্রিয় অস্ত্রের বিষয়টি স্থান দখল করে থাকবে-এটি অন্যরকম মনে হয়, কিন্তু যুদ্ধবিগ্রহের এআই-এ এই চিন্তার উদ্দীপক বিষয়টি এড়ানো কঠিন। এটি অত্যন্ত জটিল একটি বিষয়। কিন্তু শেয়ারি যন্ত্রচালিত যুদ্ধবিগ্রহের খুঁটিনাটি বিষয়ে সহজ ভাষায় স্পষ্ট ব্যাখ্যা করেছেন। বিষয়টিতে তাঁর স্পষ্ট ধারণার ব্যাপারে অবাক হওয়ার কিছু নেই। তিনি এমন একজন অভিজ্ঞ ব্যক্তি যিনি স্বয়ংক্রিয় অস্ত্রের ওপর মার্কিন সরকারের নীতিমালার খসড়া প্রস্তুতে সহায়তা করেছিলেন।

৩। জন ক্যারেরিউয়ের 'ব্যাড ব্লাড'
এই বইয়ে পুরস্কার বিজয়ী সাংবাদিক জন ক্যারেরিউ মাল্টিবিলিয়ন ডলারের বায়োটেক ফার্ম থেরানস'র উত্থান-পতনের ভেতরের গল্প উপস্থাপন করেছেন। ক্যারেরিউ প্রথম সাংবাদিক যিনি কম্পানির সিইও ও তাঁর আইনজীবীদের হুমকির মুখেও ভেতরের গল্পটি প্রকাশ করেছেন। 'বাড ব্লাড' নিউ ইয়র্ক টাইমস'র তালিকা অনুযায়ী বেস্ট সেলার গ্রন্থ এবং এটি নিয়ে একটি চলচ্চিত্র নির্মিত হতে যাচ্ছে। বইটি সম্পর্কে বিল গেটস তাঁর দৃষ্টিভঙ্গি শেয়ার করেছেন। তিনি লিখেছেন, 'ক্যারেরিউ আপনাকে থেরানস'র উত্থান ও পতন নিয়ে ভেতরের স্পষ্ট ধারণা দেবে।'

৪। ইউভাল নোয়াহ হারিরির '২১ লেসনস ফর দ্য ২১ সেন্সুরি'
গত আগস্টে প্রকাশিত বইটিতে ২১ শতকের চ্যালেঞ্জগুলোর বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে। বিল গেটস লিখেছেন, 'হারারি যা লিখেছেন তার সবকিছুরই একজন বড় ফ্যান আমি। তাঁর এই বইটিও এর ব্যতিক্রম নয়। এতে পৃথিবীর অতীত ও ভবিষ্যতের ব্যাপারে নজর দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে যে চ্যালেঞ্জ আমরা মোকাবেলা করছি সে সম্পর্কে চিন্তার একটি সহায়ক কাঠামো হিসেবে অনেক কাজে আসবে বইটি পাঠে।'

৫। অ্যান্ডি পুডিকমবির 'দ্য হেডস্পেস গাইড টু মেডিটেশন অ্যান্ড মাইন্ডফুলনেস'
দিনে মাত্র ১০ মিনিটের মেডিটেশনে যে অনেক উপকার পাওয়া যাবে বইটি পাঠে সে বিষয়ে জানা যাবে। 'হেডস্পেস' নামের প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা লেখক অ্যান্ডি পুডিকমবি মেডিটেশন ও মনোসংযোগ চর্চার সহজ ও কার্যকর কৌশলগুলো সহজ ভাষায় উপস্থাপন করেছেন। বইটি সম্পর্কে গেটস বলেছেন, 'বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী থেকে বৌদ্ধ সন্ন্যাসী হওয়া পর্যন্ত পুডিকমবি কীভাবে মেডিটেশন করেছেন এবং কীভাবে সঠিকভাবে মেডিটেশন করতে হয় তার ব্যাখ্যা করেছেন বইটিতে।' 

 

সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া 

আপাতত ক্লাস সপ্তাহে ১ দিন : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha আপাতত ক্লাস সপ্তাহে ১ দিন : শিক্ষামন্ত্রী পরীক্ষা ছাড়া এইচএসসির ফল প্রকাশে আইন পাস, দু’দিনেই প্রজ্ঞাপন - dainik shiksha পরীক্ষা ছাড়া এইচএসসির ফল প্রকাশে আইন পাস, দু’দিনেই প্রজ্ঞাপন ৯ম গ্রেডে উন্নীত করার দাবিতে একাট্টা হচ্ছে সব সরকারি কর্মচারী সংগঠন - dainik shiksha ৯ম গ্রেডে উন্নীত করার দাবিতে একাট্টা হচ্ছে সব সরকারি কর্মচারী সংগঠন নো মাস্ক নো স্কুল, ক্লাস হবে শিফটে : দুশ্চিন্তায় বড় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান - dainik shiksha নো মাস্ক নো স্কুল, ক্লাস হবে শিফটে : দুশ্চিন্তায় বড় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সাংবাদিকতার অনন্য উচ্চতায় পৌঁছে গিয়েছিলেন মিজানুর রহমান : স্মরণসভায় জেলা জজ - dainik shiksha সাংবাদিকতার অনন্য উচ্চতায় পৌঁছে গিয়েছিলেন মিজানুর রহমান : স্মরণসভায় জেলা জজ প্রাথমিকে ঝরে পড়ার হার প্রায় শূন্যের কোটায় নেমে এসেছে, দাবি প্রতিমন্ত্রীর - dainik shiksha প্রাথমিকে ঝরে পড়ার হার প্রায় শূন্যের কোটায় নেমে এসেছে, দাবি প্রতিমন্ত্রীর মাদরাসা শিক্ষার সমস্যার সমাধান দ্রুতই : শিক্ষা উপমন্ত্রী - dainik shiksha মাদরাসা শিক্ষার সমস্যার সমাধান দ্রুতই : শিক্ষা উপমন্ত্রী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার গাইড লাইন প্রকাশ, তিন ফুট দূরত্বে ক্লাসরুমের বেঞ্চ - dainik shiksha শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার গাইড লাইন প্রকাশ, তিন ফুট দূরত্বে ক্লাসরুমের বেঞ্চ ক্লাসরুমে সর্বোচ্চ ১৫ শিক্ষার্থী, প্রতি বেঞ্চে ১ জন - dainik shiksha ক্লাসরুমে সর্বোচ্চ ১৫ শিক্ষার্থী, প্রতি বেঞ্চে ১ জন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে প্রস্তুতি ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে - dainik shiksha শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে প্রস্তুতি ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে please click here to view dainikshiksha website