মাদরাসায় গ্রন্থাগার শিক্ষক নিয়োগ : নিবন্ধন সিলেবাস প্রণয়নের নির্দেশ - মাদরাসা - দৈনিকশিক্ষা

মাদরাসায় গ্রন্থাগার শিক্ষক নিয়োগ : নিবন্ধন সিলেবাস প্রণয়নের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক |

বেসরকারি স্কুল কলেজের মত মাদরাসার গ্রন্থাগারিক ও সহকারী গ্রন্থাগারিকরাও শিক্ষক মর্যাদা দেয়া হয়েছে। দাখিল মাদরাসায় নিয়োগ পাওয়া  সহকারী গ্রন্থাগারিক-ক্যাটালগার পদের গ্রন্থাগার ও তথ্য বিজ্ঞান বিষয়ের সহকারী শিক্ষক এবং আলিম মাদরাসা, বিএম কলেজ, কৃষি ডিপ্লোমা প্রতিষ্ঠানের  গ্রন্থাগারিক পদের নাম গ্রন্থাগার প্রভাষক করা হয়েছে। আর এসব পদে নিয়োগ সুপারিশের দায়িত্ব দেয়া হচ্ছে এনটিআরসিএকে। দাখিল মাদরাসায় গ্রন্থাগার ও তথ্য বিজ্ঞান বিষয়ের সহকারী শিক্ষক ও আলিম মাদরাসায় গ্রন্থাগার প্রভাষক নিয়োগে নিবন্ধন পরীক্ষার সিলেবাস প্রণয়ন করতে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষকে (এনটিআরসিএ) নির্দেশ দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। একইসাথে এ পদ দুটির জন্য ১৭ তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তিতে প্রকাশের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ থেকে এনটিআরসিএর চেয়ারম্যানকে এ নির্দেশনা দিয়ে চিঠি পাঠানো হয়েছে। রোববার (২৫ জুলাই) সব মাদরাসার অধ্যক্ষ ও সুপারদের মন্ত্রণালয়ের এ সিদ্ধান্ত জানিয়েছে মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তর।  

গত ১৯ জুলাই এনটিআরসিএর চেয়ারম্যানকে পাঠানো চিঠিতে কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ বলছে, বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (মাদরাসা) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮ (২৩ নভেম্বর,২০২০ পর্যন্ত সংশোধিত) এ আগের সহকারী গ্রন্থাগারিক কাম ক্যাটালগার, সহকারী গ্রন্থাগারিক-ক্যাটালগার পদটি সহকারী শিক্ষক (গ্রন্থাগার ও তথ্যবিজ্ঞান) ও আগের গ্রন্থাগারিত পদটি গ্রন্থাগার প্রভাষক পদ হিসেবে সংশোধন করা হয়েছে। ১৭তম নিবন্ধন পরীক্ষার অংশ হিসেবে দুই পদে সংশোধিত নীতিমালা অনুযায়ী শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। তাই ১৭ তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার অংশ হিসেবে এ পদগুলোর জন্য সিলেবাস প্রণয়নসহ শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করতে এনটিআরসিএর চেয়ারম্যানকে বলেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ। 

যোগ্যতা :

জানা গেছে, গত ২৩ নভেম্বর জারি হওয়া মাদরাসার সংশোধিত নীতিমালা অনুসারে গ্রন্থাগার শিক্ষক পদে নিয়োগের যোগ্যতা হিসেবে বলা হয়েছে, মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড বা ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয় বা ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত মাদরাসা থেকে কামিল ও গ্রন্থাগার বিজ্ঞানে ডিপ্লোমা পাস। সমগ্র জীবনে যেকোন ১টি তৃতীয় বিভাগ বা শ্রেণি গ্রহণ যোগ্য হবে। এ পদে নিয়োগের বয়সসীমা অনুর্ধ্ব ৩৫ নির্ধারণ করা হয়েছে। তবে, সমপদে ইনডেক্সধারীদের জন্য বয়সসীমা শিথিলযোগ্য।

আর তথ্য ও গ্রন্থাগার বিষয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগের যোগ্যতা হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে, মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড বা ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয় বা ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত মাদরাসা থেকে ফাযিল ও গ্রন্থাগার বিজ্ঞানে ডিপ্লোমা পাস অথবা স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আরবি বিষয়ের স্নাতক (সম্মান) ডিগ্রি ও গ্রন্থাগার বিজ্ঞানে ডিপ্লোমা। সমগ্র জীবনে যেকোন ১টি তৃতীয় বিভাগ বা শ্রেণি গ্রহণ যোগ্য হবে। এ পদে নিয়োগের বয়সসীমা অনুর্ধ্ব ৩৫ নির্ধারণ করা হয়েছে। তবে, সমপদে ইনডেক্সধারীদের জন্য বয়সসীমা শিথিলযোগ্য। 

এ যোগ্যতা অনুসারে সিলেবাস প্রণয়নসহ শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করতে এনটিআরসিএর চেয়ারম্যানকে বলেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ।


গত ১৮ জুলাই মাদরাসার গ্রন্থাগারিক ও সহকারী গ্রন্থাগারিকরাও শিক্ষক মর্যাদা দিয়ে আদেশ জারি করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ। আদেশে কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ বলছে,  বেসরকারি কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮ [ভোকেশনাল, ব্যবসায় ব্যবস্থাপনা (বিএম), কৃষি ডিপ্লোমা ও মত্স্য ডিপ্লোমা] (২৩ নভেম্বর, ২০২০ পর্যন্ত সংশোধিত) নীতিমালায় আগের সহকারী গ্রন্থাগারিক' পদটি 'সহকারী শিক্ষক ( গ্রন্থাগার ও তথা বিজ্ঞান)' পদ হিসেবে এবং বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (মাদরাসা) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮ (২৩ নভেম্বর, ২০২০ পর্যন্ত সংশোধিত) নীতিমালায় আগের 'সহকারী গ্রন্থাগারিক কাম ক্যাটালগার, সহকারী গ্রন্থাগারিক/ক্যাটালগার পদটি 'সহকারী শিক্ষক (গ্রন্থাগার ও তথ্য 'বিজ্ঞান)' ও পূর্বের 'গ্রন্থাগারিক’ পদটি ‘গ্রন্থাগার প্রভাষক' পদ হিসেবে বিবেচিত হবে।

মন্ত্রণালয় আরও বলছে, সহকারী শিক্ষক (গ্রন্থাগার ও তথ্য বিজ্ঞান)' এবং 'গ্রন্থাগার প্রভাষক পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে এন্ট্রি লেভেলের অন্যান্য শিক্ষকের মত বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের (এনটিআরসিএ) মাধ্যমে নিবন্ধন পরীক্ষা গ্রহণ ও উত্তীর্ণদের সনদ প্রদানসহ যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণপূর্বক স্ব স্ব অধিদপ্তরের চাহিদার অনুকূলে নিয়োগ সুপারিশ করতে হবে।

নতুন শিক্ষক মর্যাদা পাওয়া পদগুলোতে নিয়োগ নিয়ে আদেশে বলা হয়েছে, ১৭তম নিবন্ধন পরীক্ষার অংশ হিসেবে এ দুইটি পদে সংশোধিত এমপিও নীতিমালা অনুযায়ী সিলেবাস প্রণয়নসহ শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করবে। 

তবে, এ আদেশ জারির আগে অর্থাৎ ১৮ জুলাইয়ের আগে বিধিমোতাবেক যাদের নিয়োগ ফল প্রকাশ করে প্রার্থী চূড়ন্ত করা হয়েছে তারা যথাযথ প্রক্রিয়ায় আগের নিয়মে এমপিওভুক্ত হতে পারবেন বলে জানিয়েছে মন্ত্রণালয়।

মন্ত্রণালয় আরও বলছে, এ আদেশ জারির পর কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটি বা গভর্নিং বডি বা অ্যাডহক কমিটি এ পদগুলোতে নিয়োগ দেয়া যাবে না। এ আদেশ জারির পর এসব পদে ম্যানেজিং কমিটি বা গভর্নিং বডির মাধ্যমে নিয়োগ দেয়া হলে তা অবৈধ নিয়োগ বলে বিবেচিত হবে এবং তারা কোনোভাবেই এমপিওভুক্তির আওতায় আসবে না।

দীর্ঘ অপেক্ষার পর গত ২৮ মার্চ জারি হওয়া বেসরকারি স্কুল-কলেজের এমপিও নীতিমালায় প্রথমবারের মত শিক্ষক মর্যাদা পান স্কুল ও কলেজে কর্মরত গ্রন্থাগারিক এবং সহকারী গ্রন্থাগারিক ও ক্যাটালগাররা। বেসরকারি স্কুল ও কলেজের এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামোতে গ্রন্থাগারিকদের পদের নতুন নাম ‘গ্রন্থাগার প্রভাষক’ এবং সহকারী গ্রন্থাগারিক কাম ক্যটালগারদের পদের নতুন নাম 'সহকারী শিক্ষক (গ্রন্থাগার ও তথ্য বিজ্ঞান)' করা হয়। 

শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেলের সাথেই থাকুন। ভিডিওগুলো মিস করতে না চাইলে এখনই দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন এবং বেল বাটন ক্লিক করুন। বেল বাটন ক্লিক করার ফলে আপনার স্মার্ট ফোন বা কম্পিউটারে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভিডিওগুলোর নোটিফিকেশন পৌঁছে যাবে।

দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল  SUBSCRIBE  করতে ক্লিক করুন।

শিক্ষার্থীদের নিয়ে উদযাপন করা হবে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী : মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রী - dainik shiksha শিক্ষার্থীদের নিয়ে উদযাপন করা হবে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী : মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রী শিক্ষা ক্যাডার কর্মকর্তাদের ওপর ফের চড়াও রাজশাহী বোর্ড কর্মচারীরা - dainik shiksha শিক্ষা ক্যাডার কর্মকর্তাদের ওপর ফের চড়াও রাজশাহী বোর্ড কর্মচারীরা ঢাবির হল খুলছে ৫ অক্টোবর - dainik shiksha ঢাবির হল খুলছে ৫ অক্টোবর এসএসসি পরীক্ষা শুরু নভেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহে - dainik shiksha এসএসসি পরীক্ষা শুরু নভেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহে আন্দোলনের ভয়ে বিশ্ববিদ্যালয় খুলছে না এ বক্তব্য হাস্যকর : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha আন্দোলনের ভয়ে বিশ্ববিদ্যালয় খুলছে না এ বক্তব্য হাস্যকর : শিক্ষামন্ত্রী ১২ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদের টিকার আওতায় আনা হবে : প্রধানমন্ত্রী - dainik shiksha ১২ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদের টিকার আওতায় আনা হবে : প্রধানমন্ত্রী উপসচিবের বিরুদ্ধে শিক্ষিকার ধর্ষণ মামলা - dainik shiksha উপসচিবের বিরুদ্ধে শিক্ষিকার ধর্ষণ মামলা অবৈধ সম্পদ অর্জন : সাবেক শিক্ষা প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে দুদকের মামলা - dainik shiksha অবৈধ সম্পদ অর্জন : সাবেক শিক্ষা প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে দুদকের মামলা please click here to view dainikshiksha website