মাদরাসা প্রভাষকদের পদোন্নতিতে বিবেচনা হবে না একাডেমিক ফল - মাদরাসা - দৈনিকশিক্ষা

মাদরাসা প্রভাষকদের পদোন্নতিতে বিবেচনা হবে না একাডেমিক ফল

নিজস্ব প্রতিবেদক |

মাদরাসার প্রভাষকদের পদোন্নতিতে একাডেমিক পরীক্ষা ফল বিবেচনা করা হবে না। গত ২২ আগস্ট শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ থেকে মাদরাসা প্রভাষকদের পদোন্নতির সুপারিশ করতে কমিটি গঠন করা হয়েছিলো। তখন নির্দেশনা ছিলো এমপিও প্রাপ্তির জ্যেষ্ঠতা, একাডেমিক পরীক্ষার ফল, মামলা আছে কিনা, উচ্চতর ডিগ্রি এবং গবেষণাকর্ম বা স্বীকৃত জার্নালে প্রকাশিত প্রবন্ধ বিবেচনায় মাদরাসার প্রভাষকরা সহকারী অধ্যাপক ও জ্যেষ্ঠ প্রভাষক পদে পদোন্নতি পাবেন। কিন্তু প্রজ্ঞাপনে কিছুটা পরিবর্তন আনা হয়েছে। নতুন নির্দেশনা অনুসারে এমপিও প্রাপ্তি থেকে জ্যেষ্ঠতা, উচ্চতর ডিগ্রি, গবেষণাকর্ম বা স্বীকৃত জার্নালে প্রকাশিত প্রবন্ধ, পাবলিক পরীক্ষা সংক্রান্ত ফোজদারী মামলা চলমান আছে কিনা এবং নৈতিক স্খলন বা অন্য কোন কারণে সাময়িক বরখাস্ত আছেন কিনা বিবেচনায় নিয়ে মাদরাসার প্রভাষকদের পদোন্নতির সুপারিশ করতে বলা হয়েছে। এতে, মাদরাসা প্রভাষকদের পদোন্নতিতে একাডেমিক ফল বিবেচনার বিষয়টি বাদ দেয়া হয়েছে। যদিও কলেজের প্রভাষকদের পদোন্নতিতে একাডেমিক ফল বিবেচনার নির্দেশনা আছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ থেকে মাদরাসা প্রভাষকদের পদোন্নতির কমিটি গঠনের সংশোধিত প্রজ্ঞাপনটি প্রকাশ করা হয়েছে।

জানা গেছে, সর্বশেষ সংশোধিত এমপিও নীতিমালা অনুসারে মাদরাসার প্রভাষকদের জ্যেষ্ঠ প্রভাষক ও সহকারী অধ্যাপক পদে পদোন্নতি পাবেন। তাদের পদোন্নতির সুপারিশ করতে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করেছে সরকার। এ কমিটি আলিম মাদরাসার প্রভাষকদের জ্যেষ্ঠ প্রভাষক ও কামিল বা ফাজিল মাদরাসার প্রভাষকদের সহকারী অধ্যাপক পদে পদোন্নতি দেয়ার সুপারিশ করবে। সুপারিশ অনুযায়ী মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তর শিক্ষকদের পদোন্নতির আদেশ জারি করবে।

সংশোধিত প্রজ্ঞাপন অনুসারে, এ কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে। কমিটিতে সদস্য হিসেবে আছেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের একজন প্রতিনিধি (উপসচিব পদমর্যাদার নিচে নন), মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের প্রশাসন ও অর্থ শাখার পরিচালক এবং এনটিআরসিএর একজন প্রতিনিধি। আর কমিটির সদস্য সচিব করা হয়েছে মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের অর্থ শাখার উপপরিচালককে। 

কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ বলছে, বেসরকারি মাদরাসার জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮ (২৩ নভেম্বর ২০২০ পর্যন্ত সংশোধিত) অনুযায়ী জ্যেষ্ঠ প্রভাষক ও সহকারী অধ্যাপক পদে পদোন্নতি দিতে এ কমিটি গঠন করা হয়েছে। 

কমিটির কার্যপরিধি নিয়ে সংশোধিত প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, কমিটি বেসরকারি মাদরাসার জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮ (২৩ নভেম্বর ২০২০ পর্যন্ত সংশোধিত) অনুযায়ী কার্যক্রম গ্রহণ করবে। পদোন্নতির ক্ষেত্রে কমিটি বেসরকারি মাদরাসার এমপিও নীতিমালা অনুযায়ী জ্যেষ্ঠতা ও অভিজ্ঞতা নির্ধারণ করবে। এ বিষয়ে বিভিন্ন সময়ে জারি করা আদেশ, প্রজ্ঞাপন, পরিপত্র অনুসরণ করতে হবে। কমিটি আলিম মাদরাসার ক্ষেত্রে জ্যেষ্ঠ প্রভাষক এবং ফাযিল ও কামিল মাদরাসার ক্ষেত্রে সহকারী অধ্যাপক হিসেবে পদোন্নতি দেয়ার সুপারিশ করবেন। সে সুপারিশের প্রেক্ষিতে মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তর পদোন্নতির আদেশ জারি করবে। 

বেসরকারি মাদরাসার এমপি নীতিমালার আলোকে পদোন্নতির ক্ষেত্রে কয়েকটি বিষয় বিবেচনা করা হবে। সংশোধিত প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী যেসব বিষয় মাদরাসা প্রভাষকদের পদোন্নতিতে বিবেচনা হবে তা হলো, এমপিও প্রাপ্তি থেকে জ্যেষ্ঠতা, এমপিওভুক্তি একই তারিখ হওয়ায় ক্ষেত্রে যোগদানের তারিখ, যোগদানের তারিখ একই হওয়ার ক্ষেত্রে জন্মতারিখ, জন্মতারিখ একই হওয়ার ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা, উচ্চতর ডিগ্রি (বিএড, এমএড, এমফিল, পিএইচডি), গবেষণাকর্ম বা স্বীকৃত জার্নালে প্রকাশিত প্রবন্ধ, পাবলিক পরীক্ষা সংক্রান্ত ফৌজদারি মামলা চলমান আছে কিনা এবং নৈতিক স্খলন বা অন্য কোনো কারণে সাময়িক বরখাস্ত আছেন কিনা। 

সংশোধিত প্রজ্ঞাপনে আরও বলা হয়েছে, প্রতিষ্ঠান প্রধানরা কমিটির আহ্বায়ক (মহাপরিচালক) বরাবর পদোন্নতির প্রস্তাব পাঠাবেন। পদোন্নতির প্রস্তাব অনলাইনে পাঠানোর ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দেয়া হবে। তবে, সাময়িকভাবে হার্ড কপিতে প্রস্তাব পাঠানো যাবে। প্রস্তাব পাওয়া ৩০ দিনের মধ্যে কমিটি প্রস্তাব নিষ্পন্ন করবেন। 

শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেলের সাথেই থাকুন। ভিডিওগুলো মিস করতে না চাইলে এখনই দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব (লিংক যাবে) করুন এবং বেল বাটন ক্লিক করুন। বেল বাটন ক্লিক করার ফলে আপনার স্মার্ট ফোন বা কম্পিউটারে সয়ংক্রিয়ভাবে ভিডিওগুলোর নোটিফিকেশন পৌঁছে যাবে।

দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

৬৪ হাজার স্কুল পেলো ১৮৬ কোটি টাকা - dainik shiksha ৬৪ হাজার স্কুল পেলো ১৮৬ কোটি টাকা ঢাবিতে ছাত্রদলের ওপর ছাত্রলীগের হামলা - dainik shiksha ঢাবিতে ছাত্রদলের ওপর ছাত্রলীগের হামলা নতুন এমপিওভুক্তরা অনিশ্চয়তায় - dainik shiksha নতুন এমপিওভুক্তরা অনিশ্চয়তায় অবৈধ ফরহাদই শ্রেষ্ঠ অধ্যক্ষ - dainik shiksha অবৈধ ফরহাদই শ্রেষ্ঠ অধ্যক্ষ মদ খেয়ে স্কুলে মারামারি : সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী বহিষ্কার - dainik shiksha মদ খেয়ে স্কুলে মারামারি : সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী বহিষ্কার টিচিং লোড ক্যালকুলেশন নীতিমালা অনুমোদন - dainik shiksha টিচিং লোড ক্যালকুলেশন নীতিমালা অনুমোদন শিক্ষকদের তথ্য চায় কারিগরি শিক্ষা বোর্ড - dainik shiksha শিক্ষকদের তথ্য চায় কারিগরি শিক্ষা বোর্ড এসএসসি ভোকশনাল : আগামী বছর দশম শ্রেণির বোর্ড পরীক্ষা সব বিষয়ে - dainik shiksha এসএসসি ভোকশনাল : আগামী বছর দশম শ্রেণির বোর্ড পরীক্ষা সব বিষয়ে please click here to view dainikshiksha website