রমজানে স্কুল : নির্বাহী বিভাগের সিদ্ধান্ত কেনো আদালতে - দৈনিকশিক্ষা

রমজানে স্কুল : নির্বাহী বিভাগের সিদ্ধান্ত কেনো আদালতে

মাছুম বিল্লাহ |

সম্ভবত এবারই প্রথম রমজান মাসে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বিশেষ করে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয় খোলা রাখা ও বন্ধ রাখার বিষয় হাইকোট পর্যন্ত গড়িয়েছে। এটি যদিও রাষ্ট্রের নির্বাহী বিভাগের দায়িত্ব, তারপরেও আমরা আদালতে কেনো গেলাম সেটি একটি প্রশ্ন। দ্বিতীয়ত, আমাদের শিক্ষার্থীদের শিখন ঘাটতি পোষাতে তাদের যে পরিমাণ অনুশীলন দরকার সেই সময় কিন্তু তারা সঠিকভাবে পাচেছন না। করোনা আমাদের যতোটা পেছনে ফেলে দিয়েছে সে ধাক্কা কাটিয়ে উঠতে আমাদের আরও বহু সময় লেগে যাবে। কারণ আমি শিক্ষার্থীদের যে অবস্থা প্রত্যক্ষ করছি তাতে হতাশ হয়ে যাওয়ার কথা। শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়ে আসছেন, শিক্ষকের কাছে পড়ছেন, হাসি তামাশা সবই করছেন, কিন্তু বই পড়তে পারছেন না, না বাংলায় না ইংরেজিতে। বইয়ের মেসেজ আত্মস্থ করা তো অনেক পরের কথা। শিক্ষকরা কে কিভাবে বিষয়দুটো ম্যানেজ করছেন আমার জানার খুব ইচেছ। প্রায়ই এ নিয়ে শ্ক্ষিকদের সঙ্গে কথা বলি, ঐ একই সূর ধ্বনিত হয় তাদের কন্ঠেও।

শিক্ষার্থীদের এই চরম ঘাটতি কাটিয়ে ওঠার একটি উপায় হতে পারে তাদের সব ধরনের বন্ধ অনেকটাই কমিয়ে আনা। তবে, রমজান নিয়ে একটু আলাদা চিন্তা সবাই করেন। আমরা অনেকেই ভাবি, রমজান মাসে ইবাদত বন্দেগি করবেন তাই স্কুল বন্ধ রাখলে বোধহয় সুবিধা বেশি হবে। আসলে কাজের মধ্যে থাকলে সময়টা অনেকটাই ভাল কাটবে, শিক্ষার্থীদের উপকার হবে। আর আমরা যে যে কাজ করি সেটিও তো এক ধরনের বড় ইবাদত। 

বিভিন্ন মুসলমান প্রধান দেশের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইট ও জারি হওয়া নোটিশ পর্যালোচনা করে দেখা যাচেছ , অধিকাংশ দেশেই সাধারণ ছুটির সঙ্গে মিলিয়ে ঈদের আগে ও পরে অল্প কিছু দিনের জন্য স্কুলগুলো বন্ধ রাখা হয়। রাসুল (স.) এর জন্মভূমি সৌদি আরবে এবার ঈদুল ফিতরের ছুটি থাকবে ২৮ মার্চ থেকে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত মোট ১৮ দিন। মুসলিম দেশগুলোর মধ্যে এটিই ঈদুল ফিতরের সর্বোচচ ছুটি। আধুনিক মুসলিম দেশ হচেছ তুরস্ক। সেখানে ঈদের ছুটি পাঁচদিন। ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানে ঈদুল ফিতরের ছুটি মাত্র দুদিন। আরব দেশ মিশরে এবারের ঈদুল ফিতরে ৮ এপ্রিল থেকে ১৬ এপ্রিল অবধি মোট ৯ দিন স্কুল বন্ধ থাকবে। কোরআন ও সুন্নাহর আলোকে পরিচালিত ইসলামিক রাষ্ট্র আফগানিস্তানে রোজা ও ঈদ উপলক্ষে মাত্র ৭ দিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকে। পূর্ব এশিয়ার মুসলিম দেশ মালয়েশিয়ায় রোজার ঈদে স্কুল ছুটি মাত্র চার দিন। 

অধিকাংশ দেশই ধর্মীয় উৎসবের ছুটির চেয়ে সাধারণ ছুটিগুলোকে প্রাধান্য দেয়। বিশেষত শিক্ষাপঞ্জি ঠিক রাখতে দেশগুলোতে গুরুত্ব পায় গ্রীষ্ম, শরৎ ও শীতকালীন ছুটি। আমরা বৈশ্বিক বিশেষ করে মুসলমান প্রধান দেশগুলোর উদাহরণ অনেকটাই অনুসরণ করতে পারি নিজেদের কালচারের সাথে মিল রেখে। 

আমরা জেনেছি, রমজানের প্রথম দশদিন প্রাথমিক  ও পনেরো দিন মাধ্যমিকে ক্লাস চালুর ঘোষণা আসে মন্ত্রণালয় থেকে, এর বিরুদ্ধে রিট করেন একজন আইনজীবী। রিট আবেদনকারী বলেন, রমজান মাস পবিত্র মাস। করোনার সময় দুই বছর সব প্রতিষ্ঠান বন্ধ ছিলো। রমজানে ১০-১৫ দিন স্কুল বন্ধ রাখলে পড়ালেখার কোনো ক্ষতি হবে না। বরং খোলা রাখলে যানজটের সৃষ্টি হবে, অভিভাবকরা সমস্যায় পড়বেন। এ ছাড়া স্কুল বন্ধ রাখতে অভিভাবকরা বিভিন্ন জায়গায় মানববন্ধন করে যাচেছন। 

ওই রিটের প্রেক্ষিতে হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ দুই মাসের জন্য মন্ত্রণালয়ের আদেশ স্থগিত করে। এ নিয়ে বিচার বিভাগ ও নির্বাহী বিভাগের মধ্যে টানাপড়েন তৈরি হয়। চেম্বার আদালতেও বিষয়টির সুরাহা না হলে লাখ লাখ শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের মধ্যে চরম উৎকণ্ঠা তৈরি হয়।   

অবশেষে রমজানের প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয় বন্ধের বিষয়ে হাইকোর্টের দেয়া আদেশ স্থগিত করেছে আপিল বিভাগ। ফলে মন্ত্রণালয়ের রমজানের ক্লাস চালু রাখার নোটিশ বজায় রয়েছে। 

আদালতে শুনানিতে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, স্কুল খোলা রাখা সরকারের পলিসির বিষয়, হাইকোর্ট এখানে হস্তক্ষেপ করতে পারে না। এটিই কিন্তু মূল কথা অর্থাৎ এই বিষয়টি রাষ্ট্রের নির্বাহী বিভাগের আওতাভুক্ত। শিক্ষা কল্যাণে রাষ্ট্রের নির্বাহী বিভাগ এ ধরনের সিদ্ধান্ত নিতে পারে, সেখানে হাইকোর্ট হস্তক্ষেপ করতে পারে না। চমৎকার মন্তব্য ও সিদ্ধান্ত। 

রমজানে ক্লাসের সংখ্যা ও সময় কমিয়ে দিলেও স্কুল খোলা রাখা হলে শিক্ষার্থীরা উপকৃত হবেন। সবকিছু বন্ধ করে দিলে শিক্ষার্থীরা অলস সময় কাটাবেন, পড়ালেখা থেকে দূরে থাকবেন এবং অন্যান্য অনাকাংখিত কাজেও জড়িয়ে পড়তে পারেন। শিক্ষক নেতৃবৃন্দসহ শিক্ষা সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলোচনা করে মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে। এটি কোনোভাবেই কোর্ট পর্যন্ত যাওয়া ঠিক নয়।  

শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেলের সাথেই থাকুন। ভিডিওগুলো মিস করতে না চাইলে এখনই দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন এবং বেল বাটন ক্লিক করুন। বেল বাটন ক্লিক করার ফলে আপনার স্মার্ট ফোন বা কম্পিউটারে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভিডিওগুলোর নোটিফিকেশন পৌঁছে যাবে।

দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল  SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

জড়িত মনে হলে চেয়ারম্যানও গ্রেফতার: ডিবির হারুন - dainik shiksha জড়িত মনে হলে চেয়ারম্যানও গ্রেফতার: ডিবির হারুন পছন্দের স্কুলে বদলির জন্য ‘ভুয়া’ বিবাহবিচ্ছেদ - dainik shiksha পছন্দের স্কুলে বদলির জন্য ‘ভুয়া’ বিবাহবিচ্ছেদ হিট স্ট্রোকের ঝুঁকি কমাতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনা - dainik shiksha হিট স্ট্রোকের ঝুঁকি কমাতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনা সনদ বাণিজ্য : কারিগরি শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যানের স্ত্রী কারাগারে - dainik shiksha সনদ বাণিজ্য : কারিগরি শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যানের স্ত্রী কারাগারে কওমি মাদরাসা : একটি অসমাপ্ত প্রকাশনা গ্রন্থটি এখন বাজারে - dainik shiksha কওমি মাদরাসা : একটি অসমাপ্ত প্রকাশনা গ্রন্থটি এখন বাজারে উপবৃত্তির জন্য সব অ্যাকাউন্ট নগদে রূপান্তরের নির্দেশ - dainik shiksha উপবৃত্তির জন্য সব অ্যাকাউন্ট নগদে রূপান্তরের নির্দেশ সপ্তম শ্রেণিতে শরীফার গল্প থাকছে, বিতর্কের কিছু পায়নি বিশেষজ্ঞরা - dainik shiksha সপ্তম শ্রেণিতে শরীফার গল্প থাকছে, বিতর্কের কিছু পায়নি বিশেষজ্ঞরা জাতীয়করণ আন্দোলনের শিক্ষক নেতা শেখ কাওছার আলীর বরখাস্ত অনুমোদন - dainik shiksha জাতীয়করণ আন্দোলনের শিক্ষক নেতা শেখ কাওছার আলীর বরখাস্ত অনুমোদন ১৭তম ৩৫-প্লাস শিক্ষক নিবন্ধিতদের বিষয়ে চেম্বার আদালত যা করলো - dainik shiksha ১৭তম ৩৫-প্লাস শিক্ষক নিবন্ধিতদের বিষয়ে চেম্বার আদালত যা করলো দৈনিক শিক্ষার নামে একাধিক ভুয়া পেজ-গ্রুপ ফেসবুকে - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষার নামে একাধিক ভুয়া পেজ-গ্রুপ ফেসবুকে তিন স্তরে সনদ বিক্রি করতেন শামসুজ্জামান, দুদকের দুই কর্মকর্তার সম্পৃক্ততা - dainik shiksha তিন স্তরে সনদ বিক্রি করতেন শামসুজ্জামান, দুদকের দুই কর্মকর্তার সম্পৃক্ততা please click here to view dainikshiksha website Execution time: 0.0091190338134766