লাখ ডলারের ঔষধের উপাদান ২০ ডলারে বানালো স্কুল শিক্ষার্থীরা - বিদেশে উচ্চশিক্ষা - Dainikshiksha

লাখ ডলারের ঔষধের উপাদান ২০ ডলারে বানালো স্কুল শিক্ষার্থীরা

দৈনিক শিক্ষা ডেস্ক |

1480591434

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে লোভের প্রতীকে পরিণত হওয়া ঔষধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানের নির্বাহীকে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে নাম মাত্র মূল্যে জীবন বাঁচানো ঔষধের উপাদান প্রস্তুত করলো অস্ট্রেলিয়ার কয়েকজন স্কুল শিক্ষার্থী।

ডারাপ্রিম ঔষধের দাম ১৩.৫০ ডলার থেকে ৭৫০ ডলার করে যুক্তরাষ্ট্রে ঘৃণিত ব্যক্তিতে পরিণত হয়েছিলেন মার্টিন শখরেলি।

ম্যালেরিয়া ও এইডস রোগীদের জন্য ব্যবহৃত এই ঔষধের মূল উপাদান পাইরিমেথামিন স্কুলের ল্যাবরেটরিতে প্রস্তুত করতে সক্ষম হয় ১৭ বছর বয়সী ওই শিক্ষার্থীরা। সিডনি গ্রামার বয়েজের শিক্ষার্থীরা ৩.৭ গ্রাম পাইরিমেথামিন প্রস্তুত করেন ২০ ডলার খরচে যার বাজারমূ্ল্য ১ লক্ষ ১০ হাজার ডলার যা বাংলাদেশি মূদ্রায় প্রায় ৯০ কোটি টাকা। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আকাশছোয়া দামে বিক্রি হলেও অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাজ্যে ১.৫০ ডলারে বিক্রি হয়।

যুক্তরাষ্ট্রে আকাশ ছোয়া দামে এই ঔষধ বিক্রির প্রেক্ষাপটে এক বছর আগে এটি প্রস্তুতের চ্যালেঞ্জ নেয় ওই স্কুল শিক্ষার্থীরা। স্কুল ছাত্র জেমস উড বলেন, আমাদের কাছে বিষয়টির সম্পূর্ণ অন্যায় ও অনৈতিক মনে হয়েছে। এটা মানুষের জীবন বাঁচানোর ঔষধ এবং অনেক মানুষ আর এটি কিনতে পারছিল না। এই উদ্ভাবনের তত্ত্বাবধানে থাকা শিক্ষক ড. ম্যালকম বিনস বলেন, সবাই এখন খুশি। সব ছেলেরা মনে করছে এটা সবচেয়ে চমৎকার একটা কাজ হয়েছে।

১৯৫০ সালে তৈরি হওয়া ডায়াপ্রিমের প্রোপাইটরি রাইট ছিল টুরিং ফার্মাসিউটিক্যালসের। ‘ফার্মা ব্রো’ বলে পরিচিত টুরিং ফার্মাসিউটিক্যালসের প্রধান নির্বাহী মার্টিন শখরেলি গত বছরের আগস্টে এই ঔষধের দাম ৫ হাজার শতাংশ বৃদ্ধি করেন। তার দাবি, এই ঔষধের দাম বাঁড়ানো হয়েছে কারণ এটি খুবই বিশেষ ধরণের ঔষধ।

শেয়ার কেলেঙ্কারির অভিযোগে শখরেলিকে গত ডিসেম্বরে আটক করা হয়েছে। টুরিং ফার্মা থেকে পদত্যাগ করেছেন তিনি, ২৬ জুন ২০১৭ থেকে তার বিচার শুরু হবে। সূত্র: বিবিসি

৪৩ লাখ শিক্ষার্থীর টিউশন ফি-উপবৃত্তির হাজার কোটি টাকা বিতরণ শুরু - dainik shiksha ৪৩ লাখ শিক্ষার্থীর টিউশন ফি-উপবৃত্তির হাজার কোটি টাকা বিতরণ শুরু এসএসসি-এইসএসসি পরীক্ষা নিয়ে সিদ্ধান্ত শিগগির : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha এসএসসি-এইসএসসি পরীক্ষা নিয়ে সিদ্ধান্ত শিগগির : শিক্ষামন্ত্রী দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে - dainik shiksha দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবিতে ‘শিক্ষক-অভিভাবক’ সমাবেশ ২৬ জুন - dainik shiksha শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবিতে ‘শিক্ষক-অভিভাবক’ সমাবেশ ২৬ জুন এনজিওর হাতে যাচ্ছে সরকারি হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা! - dainik shiksha এনজিওর হাতে যাচ্ছে সরকারি হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা! বিলের মধ্যে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্র: এক চিঠিতেই আটকে গেল ভূমি অধিগ্রহণ - dainik shiksha বিলের মধ্যে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্র: এক চিঠিতেই আটকে গেল ভূমি অধিগ্রহণ ঢাকার রাস্তায় প্রাইভেট ক্যামেরা, ফুটেজের ব্যবসা! - dainik shiksha ঢাকার রাস্তায় প্রাইভেট ক্যামেরা, ফুটেজের ব্যবসা! নির্মাণাধীন ম্যাটসে মেঝে ভরাটে বালুর পরির্বতে মাটি - dainik shiksha নির্মাণাধীন ম্যাটসে মেঝে ভরাটে বালুর পরির্বতে মাটি উচ্চশিক্ষার ক্ষতি পোষাতে শিক্ষাবর্ষের সময় কমানো ও ছুটি বাতিলের পরামর্শ - dainik shiksha উচ্চশিক্ষার ক্ষতি পোষাতে শিক্ষাবর্ষের সময় কমানো ও ছুটি বাতিলের পরামর্শ please click here to view dainikshiksha website