শিক্ষককে লাথি দেওয়া শিক্ষা কর্মকর্তাকে বরখাস্তের দাবি - সমিতি সংবাদ - দৈনিকশিক্ষা

শিক্ষককে লাথি দেওয়া শিক্ষা কর্মকর্তাকে বরখাস্তের দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক |

শিক্ষকদের লাথি দেওয়ার ঘটনায় অভিযুক্ত গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার সহকারী শিক্ষা অফিসার গৌতম  চন্দ্র রায়কে সাময়িক বরখাস্ত করে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা দায়ের করার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির নেতারা। একইসাথে ওই শিক্ষা কর্মকর্তাকে ভুক্তভোগী শিক্ষক মনোজ কান্তি বিশ্বাসের কাছে ক্ষমা চাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন তারা। এক সপ্তাহের মধ্যে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া না হলে সারাদেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের নিয়ে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলে হুঁশিয়ার করেছেন শিক্ষক নেতারা।

এসব দাবি জানিয়ে গোপালগঞ্জের জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছেন সমিতির নেতারা। বৃহস্পতিবার সমিতির সভাপতি মো. আতিকুর রহমান আতিক দৈনিক শিক্ষাডটকমকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। 

তিনি বলেন, একজন শিক্ষাগুরুকে লাথি দেওয়া হয়েছে। মারধর করা হয়েছে। তা আমরা কোনোভাবেই মেনে নিতে পারি না। গোপালগঞ্জ সদরের সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার গৌতম চন্দ্র রায় বড়বাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শনের সময় প্রধান শিক্ষক মনোজ কান্তি বিশ্বাসের ভিডিও ধারণ করা নিয়ে বাকবিতন্ডার জেরে গত ৫ অক্টোবর মনোজ কান্তি বিশ্বাসকে মারধর করা হয়। সহকারী শিক্ষা অফিসার ও মানের্জি কমিটিন সভাপতি তার গায়ে লাথি দেন ও মারধর করেন। পরে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ ঐ প্রধান শিক্ষককে বরখাস্ত করে। সহকারী শিক্ষা অফিসার উল্টো থানায় ডায়েরি করেন। এ ঘটনায় বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটি উদ্বিগ্ন। আমরা এ ঘটনার নিন্দা জানাচ্ছি। একইসাথে দুই দফা দাবি জানাচ্ছি। 

দাবিগুলো হলো, প্রধান শিক্ষক মনোজ কান্তি বিশ্বাসের সাময়িক বরখাস্ত প্রত্যাহার করে তার বেতন দিয়ে তাকে বহাল করতে হবে। আর সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা গৌতম চন্দ্র রায়কে সাময়িক বরখাস্ত ও বিভাগীয় মামলা দায়ের করা এবং সাধারণ ডায়েরি প্রত্যাহার করে শিক্ষকের কাছে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে। 

মো. আতিকুর রহমান আতিক আরও বলেন, এ দাবিগুলো জানিয়ে আমরা গোপালগঞ্জের জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছি। আগামী সাত দিনের মধ্যে এ বিষয়ে ব্যবস্থা না নেওয়া হলে সারাদেশের শিক্ষকদের নিয়ে কেন্দ্রীয় কমিটি কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করবে। কোন ব্যবস্থা নেওয়া না হলে শিগগিরিই সংবাদ সম্মেলন করে কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলেও জানান তিনি। 

শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেলের সাথেই থাকুন। ভিডিওগুলো মিস করতে না চাইলে এখনই দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন এবং বেল বাটন ক্লিক করুন। বেল বাটন ক্লিক করার ফলে আপনার স্মার্ট ফোন বা কম্পিউটারে সয়ংক্রিয়ভাবে ভিডিওগুলোর নোটিফিকেশন পৌঁছে যাবে।

দৈনিক শিক্ষা ডটকমের ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

please click here to view dainikshiksha website