শিক্ষকদের কাছে ঘুষ দাবি, তোপের মুখে হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা! - স্কুল - দৈনিকশিক্ষা

শিক্ষকদের কাছে ঘুষ দাবি, তোপের মুখে হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা!

পাটগ্রাম প্রতিনিধি |

লালমনিরহাটের পাটগ্রামে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বেতন ১৩তম গ্রেডে উন্নীত করতে ঘুষ দাবির অভিযোগ উঠেছে উপজেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলামের বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার (৪ মে) এ নিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন শিক্ষকরা। এসময় উত্তেজিত শিক্ষকদের তোপের মুখে পড়েন হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম। তার কার্যালয়ে তালা লাগানোর চেষ্টা করেন শিক্ষকরা। বাগবিতণ্ডার এক পর্যায়ে হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা ও শিক্ষকদের মধ্যে হাতাহাতির মত পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়।

উত্তেজিত শিক্ষকরা বলেন, সরকার ঘোষিত ১৩ তম গ্রেডের হালনাগাদ তথ্য পূরণে সার্ভার সমস্যা দেখিয়ে মাসের পর মাস ফাইল আটকিয়ে রাখা হয়। প্রতিটি ফাইলে হাজার টাকা ঘুষ দাবি করেন হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম। এছাড়া হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার সামনে দাঁড়িয়ে কথা বলার নিত্যনতুন নিয়মকানুন শেখান। এদিকে জটিলতা সৃষ্টি হওয়ায় এপ্রিল মাসের বেতন ও ঈদ বোনাস পাওয়া প্রায় অনিশ্চিততা দেখা দিয়েছে।

এরপর প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের কার্যালয়ও ঘেরাও করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন শিক্ষকরা। পরে ঘুষ -দুর্নীতি ও অনিয়ম বন্ধে স্লোগান দিতে দিতে পাটগ্রাম উপজেলা চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে যান বিক্ষুব্ধ শিক্ষকরা। তাঁরা বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের ২০ ফেব্রুয়ারি সহকারী শিক্ষকদের দাবি মেনে নিয়ে ১৫ তম গ্রেডের পরিবর্তে ১৩ তম গ্রেড দিয়েছেন। তবে, বেতন উন্নীতকরণের সফটওয়্যার আইবাস প্লাস প্লাসে তথ্য হালনাগাদ করা হয়নি। শিক্ষকরা উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা কার্যালয়ে কাগজপত্র জমা দিয়েছেন। ফাইলপত্র হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার কার্যালয়ে ফরওয়ার্ড করেন শিক্ষা কর্মকর্তা। দুই কার্যালয়ের টানাটানিতে শিক্ষকদের হয়রানি হতে হচ্ছে।

এরপর পাটগ্রাম উপজেলা চেয়ারম্যান রুহুল আমীন বাবুল হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবুল হোসেন এবং বিক্ষুব্ধ শিক্ষকদের নিয়ে প্রায় একঘন্টা যৌথ আলোচনা করেন।

সভা শেষে ঈদের আগেই শিক্ষকদের বেতন, বোনাস উত্তোলণের বিষয়ে হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তাকে অনুরোধ করা হয়। এ সময় ছাট-পানবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আব্দুর রহিম প্রামাণিক দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম শিক্ষকদের তথ্য হালনাগাদ না করে হয়রানি করে আসছেন।

আরও পড়ুন : দৈনিক শিক্ষাডটকম পরিবারের প্রিন্ট পত্রিকা ‘দৈনিক আমাদের বার্তা’

৩ নং ভোটহাট খাতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আলমগীর হোসেন দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার কার্যালয়ে টাকা ছাড়া কোন কাজ হয়না। শিক্ষকদের শুধু না হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা মানুষকে মানুষ মনে করেনা।

ঘুষ চাওয়ার বা লেনদেনের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন পাটগ্রাম উপজেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম। তিনি দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, শিক্ষকদের এনআইডি দিয়ে টেস্ট করে দেখা হয়েছে। আইবাস ম্যানেজমেন্টের সমস্যা আছে। আশা করা হচ্ছে, শিগগিরই সমস্যা সমাধান হবে।

বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা ও স্টাডি সেন্টার বিদ্যমান আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক - dainik shiksha বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা ও স্টাডি সেন্টার বিদ্যমান আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক করোনার প্রভাবে শিক্ষক এখন কচু ব্যবসায়ী - dainik shiksha করোনার প্রভাবে শিক্ষক এখন কচু ব্যবসায়ী অনলাইন পরীক্ষা সুফল বয়ে আনবে না : উপাচার্য - dainik shiksha অনলাইন পরীক্ষা সুফল বয়ে আনবে না : উপাচার্য মিতু হত্যা : সাবেক এসপি বাবুল আক্তারকে প্রধান আসামি করে মামলা - dainik shiksha মিতু হত্যা : সাবেক এসপি বাবুল আক্তারকে প্রধান আসামি করে মামলা ঈদের আগে জামা-জুতার টাকা পেল না শিক্ষার্থীরা, উপবৃত্তি ৫০০ টাকায় উন্নীত করার সুপারিশ - dainik shiksha ঈদের আগে জামা-জুতার টাকা পেল না শিক্ষার্থীরা, উপবৃত্তি ৫০০ টাকায় উন্নীত করার সুপারিশ এমপিও কমিটির ভার্চুয়াল সভা ১৭ মে - dainik shiksha এমপিও কমিটির ভার্চুয়াল সভা ১৭ মে শিক্ষক পাবেন পাঁচ হাজার, কর্মচারী আড়াই হাজার টাকা করে - dainik shiksha শিক্ষক পাবেন পাঁচ হাজার, কর্মচারী আড়াই হাজার টাকা করে ২৫ শতাংশ পর্যন্ত শিক্ষার্থীর পড়াশোনা বন্ধ হয়ে গেছে - dainik shiksha ২৫ শতাংশ পর্যন্ত শিক্ষার্থীর পড়াশোনা বন্ধ হয়ে গেছে সেহরি ও ইফতারের সূচি - dainik shiksha সেহরি ও ইফতারের সূচি দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে - dainik shiksha দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে ‘কওমি মাদরাসায় জাতীয় চেতনা ও সংস্কৃতিবোধ উপেক্ষিত’ - dainik shiksha ‘কওমি মাদরাসায় জাতীয় চেতনা ও সংস্কৃতিবোধ উপেক্ষিত’ please click here to view dainikshiksha website