শিক্ষক নিয়োগ : সার্ভারে তথ্য সংশোধন না হওয়ায় ভোগান্তিতে ধর্মান্তরিত প্রার্থীরা - শিক্ষক নিবন্ধন - দৈনিকশিক্ষা

শিক্ষক নিয়োগ : সার্ভারে তথ্য সংশোধন না হওয়ায় ভোগান্তিতে ধর্মান্তরিত প্রার্থীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক |

বিভিন্ন বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৫৪ হাজারের বেশি শিক্ষক পদে আবেদন গ্রহণ চলছে। তবে, সনদ ও বিভিন্ন সময় তথ্য সংশোধন করা প্রার্থীরা আবেদন করতে গিয়ে ভোগান্তি পোহাচ্ছেন। সংশোধিত সনদ ইস্যু করা হলেও সার্ভারে তথ্য সংশোধন হয়নি। তাই প্রার্থীরা গণবিজ্ঞপ্তি অনুসারে আবেদন করতে পারছেন না। এ জটিলতায় পরা প্রার্থীরা দৈনিক শিক্ষাডটকমকে তাদের ভোগান্তির কথা জানিয়েছেন।

সুমাইয়া সরকার রিক্তা নামের একজন প্রার্থী দৈনিক শিক্ষাডটকমকে জানান,  সনাতন  ধর্ম পরিবর্তন করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করায় আমার নাম রিক্তা রানীর পরিবর্তে সুমাইয়া সরকার রিক্তা রাখা হয়। এ অবস্থায় আমার সব সনদপত্র মতই নিয়মকানুন অনুসরণ করে আমার শিক্ষক নিবন্ধন সনদ সংশোধন করি। গত ১৮ ফেব্রুয়ারি এনটিআরসিএ থেকে সংশোধিত সার্টিফিকেট উত্তোলন করে নিয়ে আসি। কিন্ত অনেক দিন পার হয়ে গেলেও টেলিটকের মাধ্যমে সার্ভারে আমার নাম সংশোধন হয়নি। ইতোমধ্যে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেছে এনটিআরসিএ। গণবিজ্ঞপ্তিতে আবেদন করতে গেলে অটোমেটিক আমার আগের নাম রিক্তা রানী আসছে, কিন্তু আমার সংশেধিত নাম সুমাইয়া সরকার রিক্তা। 

অপর এক প্রার্থী দৈনিক শিক্ষাডটকমকে জানান, তার মায়ের নাম পরিবর্তন করেছেন। সংশোধিত সনদ ইস্যুও হয়েছে। কিন্তু আবেদন করতে গেলে তার মায়ের নাম আগের ভুলটাই দেখাচ্ছে। গণবিজ্ঞপ্তি এনটিআরসিএ বলেছে, কোন ভুলের জন্য দায় আবেদনকারীদের নিতে হবে। তাই আমরা বিভ্রান্ত হয়ে এনটিআরসিএ অফিসে এসেছি। ভুল তথ্যে আবেদন করলে আবেদনের ফিয়ের টাকাই গচ্ছা যেতে পারে। এমন আরও অনেক প্রার্থী বিভ্রান্ত অবস্থায় আছেন। 

এ বিষয়ে দৈনিক শিক্ষাডটকমের পক্ষ থেকে এনটিআরসিএর সংশ্লিষ্ট শাখার কর্মকর্তাদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা বুধবার (৭ এপ্রিল) দুপুরে জানান, আমরা সংশোধিত তথ্য আবেদন যাচাইকারী প্রতিষ্ঠান টেলিটকে পাঠিয়েছি। তাদের তথ্য আপডেট করে দেয়ার কথা। কিন্তু কেন তথ্য আপডেট হচ্ছে না সে বিষয়ে খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে। আমরা টেলিটকের সাথে যোগাযোগ করছি। আশা করছি তারা দ্রুত তথ্য সংশোধন করে দেবেন।

কর্মকর্তারা আরও বলেন, কেউ যদি এখনো সনদ সংশোধনের আবেদন না করে থাকেন তাদের বলবো সনদে যে তথ্য আছে তা দিয়েই আবেদন করবেন। আর যারা সংশোধিত সনদ পেয়ে গেছেন তারা কিছুটা অপেক্ষা করুন, তথ্য সার্ভারে সংশোধন হয়ে যাবে। 

শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেলের সাথেই থাকুন। ভিডিওগুলো মিস করতে না চাইলে এখনই দৈনিক শিক্ষা ডটকমের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন এবং বেল বাটন ক্লিক করুন। বেল বাটন ক্লিক করার ফলে আপনার স্মার্ট ফোন বা কম্পিউটারে সয়ংক্রিয়ভাবে ভিডিওগুলোর নোটিফিকেশন পৌঁছে যাবে।

দৈনিক শিক্ষা ডটকমের ইউটিউব চ্যানেল SSUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা ও স্টাডি সেন্টার বিদ্যমান আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক - dainik shiksha বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা ও স্টাডি সেন্টার বিদ্যমান আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক করোনার প্রভাবে শিক্ষক এখন কচু ব্যবসায়ী - dainik shiksha করোনার প্রভাবে শিক্ষক এখন কচু ব্যবসায়ী অনলাইন পরীক্ষা সুফল বয়ে আনবে না : উপাচার্য - dainik shiksha অনলাইন পরীক্ষা সুফল বয়ে আনবে না : উপাচার্য মিতু হত্যা : সাবেক এসপি বাবুল আক্তারকে প্রধান আসামি করে মামলা - dainik shiksha মিতু হত্যা : সাবেক এসপি বাবুল আক্তারকে প্রধান আসামি করে মামলা ঈদের আগে জামা-জুতার টাকা পেল না শিক্ষার্থীরা, উপবৃত্তি ৫০০ টাকায় উন্নীত করার সুপারিশ - dainik shiksha ঈদের আগে জামা-জুতার টাকা পেল না শিক্ষার্থীরা, উপবৃত্তি ৫০০ টাকায় উন্নীত করার সুপারিশ এমপিও কমিটির ভার্চুয়াল সভা ১৭ মে - dainik shiksha এমপিও কমিটির ভার্চুয়াল সভা ১৭ মে শিক্ষক পাবেন পাঁচ হাজার, কর্মচারী আড়াই হাজার টাকা করে - dainik shiksha শিক্ষক পাবেন পাঁচ হাজার, কর্মচারী আড়াই হাজার টাকা করে ২৫ শতাংশ পর্যন্ত শিক্ষার্থীর পড়াশোনা বন্ধ হয়ে গেছে - dainik shiksha ২৫ শতাংশ পর্যন্ত শিক্ষার্থীর পড়াশোনা বন্ধ হয়ে গেছে সেহরি ও ইফতারের সূচি - dainik shiksha সেহরি ও ইফতারের সূচি দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে - dainik shiksha দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে ‘কওমি মাদরাসায় জাতীয় চেতনা ও সংস্কৃতিবোধ উপেক্ষিত’ - dainik shiksha ‘কওমি মাদরাসায় জাতীয় চেতনা ও সংস্কৃতিবোধ উপেক্ষিত’ please click here to view dainikshiksha website