শিক্ষাখাতে জিডিপির ৬ শতাংশ বরাদ্দের দাবি - সমিতি সংবাদ - দৈনিকশিক্ষা

শিক্ষাখাতে জিডিপির ৬ শতাংশ বরাদ্দের দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক |

ইউনেস্কোর সুপারিশ অনুযায়ী শিক্ষাখাতে জিডিপির ন্যূনতম ৬ শতাংশ বরাদ্দ দেয়ার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি (বাকবিশিস)। সমিতির নেতারা বলেছেন, জাতীয় সংসদে ২০২২-২৩ অর্থ বছরের ৬ লাখ ৭৮ হাজার ৬৪ কোটি টাকা বাজেট উপস্থাপন করা হয়েছে। শিক্ষাখাতে বরাদ্দ ৮১ হাজার ৪৪৯ কোটি টাকা, জাতীয় বাজেটের ১২ দশমিক ০১ শতাংশ এবং জিডিপির ১ দশমিক ৮৩ শতাংশ। ২০২১-২২ অর্থ বছরে শিক্ষাখাতে বরাদ্দ ছিল ৭১ হাজার ৯৫৪ কোটি টাকা যা জাতীয় বাজেটের ১১ দশমিক ৯২ শতাংশ এবং জিডিপির ২ দশমিক ০৮ শতাংশ। শিক্ষাখাতে জাতীয় বাজেটের দশমিক ০৯ শতাংশ বাড়লেও জিডিপির দশমিক ২৫ শতাংশ কমেছে।

মঙ্গলবার দৈনিক শিক্ষাডটকমের পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তি এসব মন্তব্য করে তারা শিক্ষাখাতে জিডিপির ন্যূনতম ৬ শতাংশ বরাদ্দ দেয়ার দাবি জানিয়েছেন। 

সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, শিক্ষামন্ত্রী বাজেট পেশের আগের দিন বলেছেন, শিক্ষাখাতে জিডিপির ৬ শতাংশ বরাদ্দ দরকার আমরা আছি ৩ শতাংশে। অথচ বাজেটে শিক্ষাখাতে বরাদ্দ জিডিপির মাত্র ১ দশমিক ৮৩ শতাংশ। যা নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। 

বাকবিশিস আরও বলছে, ইউনেস্কোর সুপারিশ অনুযায়ী জাতীয় বাজেটের কমপক্ষে ২০ শতাংশ এবং মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) ৬ শতাংশ করার দাবি দীর্ঘ দিনের। করোনা মহামারির ক্ষতি পুষিয়ে নিতে বিশেষ উদ্যোগের কথা বাজেটে বলা হয়েছে। প্রাথমিক স্তরকে শিক্ষার মূল বুনিয়াদি হিসেবে বিবেচনা করে প্রাথমিক শিক্ষাকে যুগোপযোগী ও আধুনিক করতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়ার কথাও বলা হয়েছে। তথ্য প্রযুক্তিনির্ভর শিক্ষার ওপর নির্ভরশীলতা বেড়ে যাওয়ায় বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়ার কথা বলা থাকলেও উল্টো ল্যাপটপ, কম্পিউটার আমদানিতে ১৫ শতাংশ শুল্ক এবং অপটিক্যাল ফাইবারের ওপর অতিরিক্ত ১০ শতাংশ শুল্ক আরোপ করা হয়েছে। ফলে দাম বাড়বে আমদানিকৃত ল্যাপটপ কম্পিউটারের এবং ইন্টারনেট খরচের। যেখানে তথ্য প্রযুক্তি নির্ভর শিক্ষা উপকরণ সহজলভ্য করা দরকার তা না করে নতুন করে শুল্ক আরোপের ফলে দাম বাড়ানোর ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। 

শিক্ষক সংগঠনটি আরও বলে, বিগত কয়েক বছর থেকে শিক্ষাখাতে বরাদ্দ জিডিপির ২ শতাংশে ঘরপাক খাচ্ছে। শিক্ষাব্যবস্থা সরকারিকরণ, শিক্ষকদের জন্য পৃথক বেতন স্কেল, নতুন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তি, শিক্ষাখাতে নতুন প্রকল্প নেয়ার কোন কথা বাজেটে বলা হয়নি। পাচার হওয়া টাকা ফেরত আনার অনৈতিক প্রস্তাপ দেয়া হয়েছে। অথচ দ্রব্যমূল্য উর্দ্ধগতির কারণে যেখানে মানুষের নাভিশ্বাস উঠেছে সেখানে ব্যক্তির করমুক্ত আয়সীমা ৩ লাখ টাকা রাখা হয়েছে।  এসডিজি বাস্তবায়ন করতে হলে গুণগত ও মানসম্মত শিক্ষার বিকল্প নেই।

তাই শিক্ষক নেতারা ইউনেস্কোর সুপারিশ অনুযায়ী শিক্ষাখাতে জিডিপির ন্যূনতম ৬ শতাংশ বরাদ্দ দেয়ার জন্য জোর দাবি জানান। একইসঙ্গে শিক্ষার মানোন্নয়নে শিক্ষাব্যবস্থা সরকারিকরণ, শিক্ষকদের জন্য পৃথক বেতন স্কেল, নতুন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তি, শিক্ষাখাতে নতুন প্রকল্প নেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী ও সংসদের সব সদস্যদের সমিতির পক্ষ থেকে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেলের সাথেই থাকুন। ভিডিওগুলো মিস করতে না চাইলে এখনই দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন এবং বেল বাটন ক্লিক করুন। বেল বাটন ক্লিক করার ফলে আপনার স্মার্ট ফোন বা কম্পিউটারে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভিডিওগুলোর নোটিফিকেশন পৌঁছে যাবে।

দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল  SUBSCRIBE  করতে ক্লিক করুন।

ঈদের পরে এসএসসি পরীক্ষা, তারিখ নির্ধারণ হয়নি - dainik shiksha ঈদের পরে এসএসসি পরীক্ষা, তারিখ নির্ধারণ হয়নি মিলিটারি ডিকটেটররা ছাত্রদের হাতে অস্ত্র-মাদক তুলে দিয়েছিল: প্রধানমন্ত্রী - dainik shiksha মিলিটারি ডিকটেটররা ছাত্রদের হাতে অস্ত্র-মাদক তুলে দিয়েছিল: প্রধানমন্ত্রী পদ্মাসেতু: বড় পরিবর্তনের সুযোগ শিক্ষায় - dainik shiksha পদ্মাসেতু: বড় পরিবর্তনের সুযোগ শিক্ষায় প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ : ফল পুনর্মূল্যায়ন চেয়ে ৫ পরীক্ষার্থীর রিট - dainik shiksha প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ : ফল পুনর্মূল্যায়ন চেয়ে ৫ পরীক্ষার্থীর রিট বন্যা চলে গেলেই পরীক্ষা নেয়া হবে : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha বন্যা চলে গেলেই পরীক্ষা নেয়া হবে : শিক্ষামন্ত্রী বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তিতে ডোপ টেস্ট বাধ্যতামূলক হচ্ছে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী - dainik shiksha বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তিতে ডোপ টেস্ট বাধ্যতামূলক হচ্ছে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ৩ জুলাই থেকে বন্ধ মাধ্যমিক বিদ্যালয় - dainik shiksha ৩ জুলাই থেকে বন্ধ মাধ্যমিক বিদ্যালয় please click here to view dainikshiksha website