শিক্ষার্থীদের অজান্তেই কলেজ ভর্তির আবেদন! - ভর্তি - দৈনিকশিক্ষা

শিক্ষার্থীদের অজান্তেই কলেজ ভর্তির আবেদন!

রুম্মান তূর্য |

ভর্তিচ্ছুদের সঙ্গে প্রতারণা করে চলছে কতিপয় চিহ্নিত কলেজ। পেশাদার ভর্তি-দালাল চক্রের সহায়তায় কলেজগুলো শিক্ষার্থীদের না জানিয়েই তাদের নামে ভর্তির আবেদন করে দিচ্ছে। ভর্তিচ্ছুরা অনলাইনে আবেদন করতে গিয়ে জানতে পারছেন তাদের আবেদন হয়ে গেছে। ক্ষুব্ধ ও হতাশ ভর্তিচ্ছুরা তাই শিক্ষাবোর্ডে সশরীরে হাজির হয়ে সে ভর্তির আবেদন বাতিলের দাবি জানাচ্ছেন। এর ফলে সরকারের অনলাইনে ভর্তির কার্যক্রমের মূল উদ্দেশ্যই ব্যাহত হচ্ছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের আবেদনের প্রেক্ষিতে এমন প্রায় ছয় শতাধিক ভর্তির আবেদন বাতিল করেছে ঢাকা শিক্ষাবোর্ড। কিন্তু অভিযুক্ত কলেজগুলো চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি। 

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের কলেজ শাখার পরিদর্শক আবু তালেব মোহাম্মদ মোয়াজ্জেম হোসেনের মতে, ‘ভর্তিচ্ছুদের অজান্তে আবেদন করা কলেজগুলোকে চিহ্নিত করতে সময় লাগবে। ভুক্তভোগী যারা সশরীরে বোর্ডে আসছেন, আবেদনের প্রেক্ষিতে তাদের সমাধান দিচ্ছি।  সফটওয়্যার নিয়ন্ত্রিত ভর্তি কার্যক্রম দেখভাল করছেন বুয়েট বিশেষজ্ঞ টিম।’

২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে বিভিন্ন কলেজ ও মাদরাসায় একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির অনলাইন কার্যক্রমের আওতায় এখন পর্যন্ত ১৩ লাখ ২৯ হাজার শিক্ষার্থী কলেজ ভর্তির আবেদন করেছে। ১৫ জানুয়ারি প্রথম ধাপের আবেদন গ্রহণ শেষ হবে। তবে শুক্র ও শনিবার বোর্ড অফিসে সাপ্তাহিক ছুটি।

 প্রতারিত ভর্তিচ্ছুরা প্রতিদিন যেভাবে বোর্ড অফিসে আসছেন, শুক্র ও শনিবার কী করবেন, দৈনিক আমাদের বার্তার এমন প্রশ্নের জবাবে কলেজ পরিদর্শক বলেন, ‘এ নিয়ে বুয়েট বিশেষঞ্জ দলের সঙ্গে জুমে মিটিং হবে। তাছাড়া কলেজ শাখার দুজনকে ছুটির দু’দিন দায়িত্ব দেয়া হবে।   

প্রতারণা এড়াতে কলেজ ভর্তির আবেদন ও এসএসসি পরীক্ষা সংক্রান্ত তথ্যের বিষয়ে শিক্ষার্থীদের সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছে শিক্ষা বোর্ডগুলো। আর শিক্ষার্থীদের না জানিয়ে তাদের নামে ভর্তির আবেদন করা হলে দায়ী কলেজ কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক নেহাল আহমেদ।  

 গতকাল বৃহস্পতিবার তিনি দৈনিক আমাদের বার্তাকে বলেন, বুয়েটের সহায়তায় কলেজগুলো এবং আবেদন করা মোবাইল নম্বরগুলোর মালিক খুঁজে বের করা হবে। 

প্রতারণার বিষয়ে কলেজ পরিদর্শক মোয়াজ্জেম হোসেন দৈনিক আমাদের বার্তাকে বলেন, যেহেতু শিক্ষার্থীরা ১০টি কলেজ চয়েস দিয়ে আবেদন করার সুযোগ পাচ্ছেন, সেজন্য আমরা সুস্পষ্টভাবে বলতে পারছি না কোন কোন কলেজ এ ধরণের কাজ করছে। যারা এটা করছে, তারা নিশ্চয় তাদের কলেজের নামটা এক নম্বরে রাখছেন না।  

তবে দৈনিক আমাদের বার্তার অনুসন্ধানে জানা যায়, ভর্তি নিয়ে একাধিক দালালচক্র সক্রিয়। এদের সঙ্গে যোগাযোগ রয়েছে শিক্ষাবোর্ডগুলোর এক শ্রেণির কর্মকর্তা-কর্মচারীর। চক্রটি বিভিন্ন কোচিং সেন্টার, এমনকী স্কুল থেকেও শিক্ষার্থীদের তথ্য সংগ্রহ করে তাদের অজান্তে আবেদন করে। আবার বোর্ডের কেন্দ্রীয় ওয়েবসাইটের আদলে ভুয়া ওয়েবসাইট করে শিক্ষার্থীদের তথ্য নিয়ে পরে আবেদন করছে।

গত কয়েক বছরে শিক্ষার্থী না পাওয়া কলেজগুলোই শিক্ষার্থীদের অজান্তে আবেদন করছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।  
শিক্ষার্থী না পাওয়া কলেজগুলোর তালিকায় আছে রাজধানীর মিরপুর এলাকার খান ইন্টারন্যাশনাল কলেজ, নিকুঞ্জ এলাকার রেসিডেন্সিয়াল ল্যাবরেটরি কলেজ, সাভারের টাঙ্গাইল রেসিডেনসিয়াল কলেজ, খিলগাঁও এলাকার প্রাইম সিটি ইন্টারন্যাশনাল কলেজ, মোহাম্মদপুরে ট্রিনিটি কলেজ, মতিঝিলের ওয়েস্টার্ন কলেজ, যাত্রাবাড়ী এলাকার নর্দান ইউনিভার্সিটি ল্যাবরেটরি কলেজ, উত্তরার স্টামফোর্ড কলেজ, মগবাজার এলাকার ন্যাশনাল ব্যাংক পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ, তেজগাঁও এলাকার সিভিল এভিয়েশন কলেজ, রাজধানীর সাতমসজিদ রোডের ঢাকা পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ, গ্রীনরোডের আনোয়ার আইডিয়াল কলেজ, মিরপুরের সরোজ ইন্টারন্যাশনাল কলেজ, কেরানীগঞ্জের লাইসাম কলেজ, টঙ্গীর পূবাইল কমার্স কলেজ, নবাবগঞ্জ উপজেলার নবাবগঞ্জ পাইলট হাই স্কুল এন্ড কলেজ। শিক্ষার্থী না পাওয়া কলেজের তালিকায় আরও আছে, বাঁধন মাল্টিলিটারাল স্কুল এন্ড কলেজ, ধ্রুবসুর আদর্শ হাই স্কুল এন্ড কলেজ, অক্সফোর্ড অ্যাকাডেমি, বড়গ্রাম হাই স্কুল এন্ড কলেজ, ভার্সেটাইল মডেল কলেজ, ট্যালেন্ট ক্যাম্পাস কলেজ, সিএসডি কলেজ, বৈকাল কলেজ, সমতা কলেজ, দ্যা অস্ট্রালেসিয়ান কলেজ, আল ফুরকান ইংলিশ হাই স্কুল এন্ড গার্লস কলেজ, উত্তরা অন্বেষণ মডেল কলেজ, হলি ফ্লাওয়ার মডেল কলেজ, সিটি রয়েল কলেজ, হার্ভার্ড ইন্টারন্যাশনাল কলেজ, ঢাকা ইডেনবার্গ ইন্টারন্যাশনাল কলেজ, ন্যাশনাল গার্লস কলেজ, অক্সফোর্ডিয়ান ল্যাবরেটরি কলেজ, নিউ সৃষ্টি কলেজ, হলি ফ্যামিলি পাবলিক কলেজ, ঢাকা অক্সফোর্ড ইন্টারন্যাশনাল কলেজ,বর্ণমালা আইডিয়াল কলেজ, সাইনবোর্ড মডেল কলেজ, ধামরাই মডেল কলেজ, ন্যাশনাল রেসিডেন্সিয়াল কলেজ এবং রায়পুরা মডেল কলেজ। 

ইতোমধ্যে বোর্ড থেকে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সতর্ক করে বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, নির্ধারিত ভর্তি ওয়েবসাইট ছাড়া অন্য কোনো ফেইক ওয়েবসাইটের বিজ্ঞাপন থেকে আবেদন করে কোনো শিক্ষার্থী ও অভিভাবক প্রতারিত হলে বোর্ড কর্তৃপক্ষ কোনোক্রমেই এর দায় বহন করবে না।

ফাজিল পরীক্ষা স্থগিত - dainik shiksha ফাজিল পরীক্ষা স্থগিত মাস্ক ছাড়া বের হলেই জরিমানা করা হবে : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী - dainik shiksha মাস্ক ছাড়া বের হলেই জরিমানা করা হবে : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী উপবৃত্তির টাকা পাঠানো শুরু, দ্রুত তুলতে হবে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের - dainik shiksha উপবৃত্তির টাকা পাঠানো শুরু, দ্রুত তুলতে হবে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের মাদরাসায়ও অনলাইন ক্লাস, খোলা থাকবে অফিস - dainik shiksha মাদরাসায়ও অনলাইন ক্লাস, খোলা থাকবে অফিস কওমি মাদরাসাকে বোর্ডের অধীনে নিয়ে আসা প্রয়োজন : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha কওমি মাদরাসাকে বোর্ডের অধীনে নিয়ে আসা প্রয়োজন : শিক্ষামন্ত্রী ভিসির পদত্যাগের দাবি অযৌক্তিক, চাইলেই সরানো যায় না : শিক্ষা উপমন্ত্রী - dainik shiksha ভিসির পদত্যাগের দাবি অযৌক্তিক, চাইলেই সরানো যায় না : শিক্ষা উপমন্ত্রী উপবৃত্তির টাকা পাঠানো শুরু, দ্রুত তুলতে হবে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের - dainik shiksha উপবৃত্তির টাকা পাঠানো শুরু, দ্রুত তুলতে হবে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের please click here to view dainikshiksha website