শিক্ষা কর্মকর্তার শাস্তির দাবিতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে শিক্ষকদের পদযাত্রা ১ ডিসেম্বর - সমিতি সংবাদ - দৈনিকশিক্ষা

শিক্ষা কর্মকর্তার শাস্তির দাবিতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে শিক্ষকদের পদযাত্রা ১ ডিসেম্বর

নিজস্ব প্রতিবেদক |

শিক্ষক নির্যাতনে অভিযুক্ত শিক্ষা কর্মকর্তাদের শাস্তির আওতায় আনার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি। প্রধান শিক্ষক মনোজ কান্তি বিশ্বাসকে নির্যাতনে অভিযুক্ত গোপালগঞ্জ সদরের সহকারী উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা গৌতম চন্দ্র রায়কে সাময়িক বরখাস্ত করে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা

দায়েরের দাবি জানিয়েছেন সংগঠনটির নেতারা। একইসাথে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আনন্দ কিশোর সাহাকে প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয়েছে। প্রধান শিক্ষক মনোজ কান্তি বিশ্বাসকে লাথি দেওয়া, মারধর ও লাঞ্ছিত করার ঘটনার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বরখাস্ত প্রত্যাহার করে তাকে পুনর্বহালের দাবি জানিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি। 

এ দাবি আদায়ে আগামী ১৭ নভেম্বর দেশের সব উপজেলায় মানববন্ধন ও প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেনকে স্মারকলিপি দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে শিক্ষক সংগঠনটি। আর চলতি নভেম্বর মাসের মধ্যে অভিযুক্ত শিক্ষা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া না হলে আগামী ১ ডিসেম্বর জাতীয় প্রেসক্লাবের মানববন্ধন এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অভিমুখে পদযাত্রা ও স্মারকলিপি দেওয়ার কর্মসূচি ঘোষণা করেছেন শিক্ষক নেতারা।  

বৃহস্পতিবার (৪ নভেম্বর) সকালে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। 

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন সংগঠনের সভাপতি আতিকুর রহমান আতিক। এসময় সাধারণ সম্পাদক মো. মতিউর রহমান মতিন, বঙ্গবন্ধু প্রাথমিক শিক্ষা গবেষণা পরিষদের সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান, প্রধান শিক্ষক সমিতির একাংশের সভাপতি বদরুল আলমসহ সমিতির কেন্দ্রীয় নেতার উপস্থিত ছিলেন। 

লিখিত বক্তব্যে প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি গোপালগঞ্জ জেলার সদর উপজেলার ২৮ নং উরফি বড়বাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পরিদর্শনে এসে উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার (এটিও) গৌতম চন্দ্র রায়ের হাতে প্রধান শিক্ষক মনোজ কান্তি বিশ্বাসকে শারীরিকভাবে মারধর ও লাঞ্ছিত হওয়ার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানায়। 

নেতা অভিযোগ তোলেন, সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা গৌতম চন্দ্র রায় শুধু লাথি ও মারধর করেই ক্ষ্যান্ত হননি, গোপালগঞ্জের জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আনন্দ কিশোর সাহা প্রধান শিক্ষক মনোজ কান্তি সাহাবে আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ না দিয়েই মিথ্যা প্রতিবেদন তৈরি করে তাকে বরখাস্ত করেন। প্রধান শিক্ষক জানিয়েছেন, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ও সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার বিদ্যালয়ের উন্নয়ন বরাদ্দের টাকার ভাগ চাওয়ায় তার সাথে দ্বন্দ্ব সৃষ্টি হয়েছে। 

নেতারা আরও বলেন, প্রধান শিক্ষক মনোজ কান্তি বিশ্বাস যদি কোনো নিয়ম-শৃঙ্খলা অমান্য করে থাকেন তাহলে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতে পারতেন। কিন্ত তা না করে উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার ও স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির লোকজন একজন প্রধান শিক্ষকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করেন। এটা তারা করতে পারেন না। এ ঘটনা পুরো শিক্ষক সমাজকেই লাঞ্ছিত করার সমতুল্য। 

শিক্ষক নেতারা প্রধান শিক্ষক মনোজ কান্তি বিশ্বাসের সাময়িক বরখাস্ত প্রত্যাহার ও বেতন বহাল করার দাবি জানান। একইসাথে সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা গৌতম কুমার রায়কে সাময়িক বরখাস্ত করে বিভাগীয় মামলা দায়ের করার দাবি জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে।  

আর আগামী ১০ দিনের মধ্যে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া না হলে আগামী ১৭ নভেম্বর সব উপজেলা চত্বরে প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির পক্ষ থেকে মানববন্ধন এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দেওয়ার কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। তাও দাবি আদায় না হলে আর আগামী ১ ডিসেম্বর এসব দাবি আদায়ে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে প্রতিবাদ ও মানববন্ধন এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অভিমুখে পদযাত্রা করে স্মারকলিপি দেওয়ার কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।  

সংবাদ সম্মেলেন শিক্ষকদের পেশাগত কিছু দাবি দাওয়ায় উপস্থাপন করা হয়। এ দাবিগুলো হলো, প্রাথমিকের ক্যাডার সার্ভিস সৃষ্টি করে সহকারী শিক্ষক ও প্রধান শিক্ষকদের পরিচালক পর্যন্ত পদোন্নতির ব্যবস্থা করা, প্রধান শিক্ষকদের ১০ম এবং সহকারী শিক্ষকদের ১১তম গ্রেড প্রদান, চলতি দায়িত্বে থাকা প্রধান শিক্ষকদের পদোন্নতি স্থায়ীকরণ, শিক্ষকদের জ্যেষ্ঠতার জটিলতা নিরসন ও প্রধান শিক্ষক-সহকারী শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য নিরসন।

ডোপ টেস্ট ছাড়াই কলেজভর্তি - dainik shiksha ডোপ টেস্ট ছাড়াই কলেজভর্তি সব শিক্ষকের করোনা শনাক্ত, স্কুল বন্ধ ঘোষণা - dainik shiksha সব শিক্ষকের করোনা শনাক্ত, স্কুল বন্ধ ঘোষণা প্রাথমিকে স্কুল ফিডিং প্রকল্পের মেয়াদ আরো ৬ মাস বাড়ছে - dainik shiksha প্রাথমিকে স্কুল ফিডিং প্রকল্পের মেয়াদ আরো ৬ মাস বাড়ছে পুলিশের মামলায় আসামি শিক্ষার্থীরা, অভিযোগ ‘গুলি ও পুলিশকে হত্যাচেষ্টার’ - dainik shiksha পুলিশের মামলায় আসামি শিক্ষার্থীরা, অভিযোগ ‘গুলি ও পুলিশকে হত্যাচেষ্টার’ করোনার উচ্চ ঝুঁকিতে ১২ জেলা, মধ্যম ঝুঁকিতে ৩১ - dainik shiksha করোনার উচ্চ ঝুঁকিতে ১২ জেলা, মধ্যম ঝুঁকিতে ৩১ ছাত্রীর পা থেঁতলে দিল বখাটেরা, আহত আরো ২০ - dainik shiksha ছাত্রীর পা থেঁতলে দিল বখাটেরা, আহত আরো ২০ ১৭ বিএড কলেজে ভর্তি চলছে - dainik shiksha ১৭ বিএড কলেজে ভর্তি চলছে সংক্রমণ আরও বাড়লে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের সিদ্ধান্ত : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha সংক্রমণ আরও বাড়লে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের সিদ্ধান্ত : শিক্ষামন্ত্রী please click here to view dainikshiksha website