সরকারি চাকরিজীবীদের সম্পদের তথ্য চায় আইএমএফ - চাকরির খবর - দৈনিকশিক্ষা

সরকারি চাকরিজীবীদের সম্পদের তথ্য চায় আইএমএফ

নিজস্ব প্রতিবেদক |

সরকারি চাকরিজীবীদের সম্পদের হিসাবের তথ্য চেয়েছে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ)। বাংলাদেশে একটি উচ্চ পর্যায়ের সফরের আগ মুহূর্তে অর্থনীতির বিভিন্ন সূচকের তথ্যের সঙ্গে এই তথ্যটিও চেয়েছে সংস্থাটি।

আগামী ৫ থেকে ১৫ ডিসেম্বর আইএমএফের আর্টিক্যাল-৪-এর একটি প্রতিনিধিদল ঢাকা সফর করবে। প্রথা অনুযায়ী, এবারও সফরের আগে এক গুচ্ছ তথ্য চেয়ে পাঠিয়েছে তারা। সেখানেই অর্থ মন্ত্রণালয়ের কাছে সরকারি চাকরিজীবীদের সম্পদের বিবরণীর তথ্য জানতে চেয়েছে সংস্থাটি। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

আইএমএফের ইনস্টিটিউট ফর ক্যাপাসিটি ডেভেলপমেন্টের পরিচালকের সহকারী রাহুল আনন্দের নেতৃত্বে এই সফর হবে। সরকারের সঙ্গে আলোচনায় রাজস্ব আদায়, সরকারি ভর্তুকি, খেলাপি ঋণ, ব্যাংকিং খাত সংস্কার, চলমান টিকা কর্মসূচি, আমদানি-রপ্তানি, বৈদেশিক লেনদেনের ভারসাম্য, কৃষি খাতসহ অর্থনীতির নানা বিষয় উঠে আসবে।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের একাধিক কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এর আগে আইএমএফ কখনো সরকারি চাকরিজীবীদের সম্পদের হিসাবের তথ্য চায়নি। সাবেক কর্মকর্তারাও বলছেন, আইএমএফ এর আগে এই প্রসঙ্গে জানতে চেয়েছে বলে তাঁদের জানা নেই।

জানতে চাইলে সাবেক অর্থসচিব মাহবুব আহমেদ বলেন, ‘আইএমএফ অতীতে এ রকম তথ্য চেয়েছে বলে আমার মনে পড়ছে না।’ সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারি চাকুরেদের সম্পদের হিসাব জমা দিতে নির্দেশ দিয়েছেন। এর পরই জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের শৃঙ্খলা ও তদন্ত বিভাগ থেকে সব মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠিয়ে আচরণ বিধিমালা অনুযায়ী সরকারি চাকরিজীবীদের পাঁচ বছর পর পর সম্পদের বিবরণী (হ্রাস-বৃদ্ধি) জমা দেওয়ার নিয়ম মানতে বলে।

সূত্র মতে, সরকারি চাকরিজীবীদের সম্পদের হিসাব জমা দেওয়ার প্রক্রিয়াটি কতটা স্বচ্ছ তা নিয়ে  আগ্রহ রয়েছে আইএমএফের। পাশাপাশি পাঁচ বছরে তাঁদের সম্পদ কতটা বেড়েছে বা কমেছে, তাও দেখতে চায় সংস্থাটি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অর্থ বিভাগের সংশ্লিষ্ট বিভাগের দায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা বলেন, সরকারি চাকরিজীবীদের মূল বেতন ১৬ হাজার টাকার বেশি হলে তাঁকে নিয়মিত আয়কর দিতে হয়। তাই আয়ের ব্যাপারে সরকারি চাকুরেরা যে সব সময় স্বচ্ছ—এ তথ্য তাঁদের জানানো হবে। বৈঠকে এ বিষয় নিয়ে আলোচনা হলে অর্থ বিভাগ থেকে জবাব দেওয়া হবে। তবে আইএমএফ এবারই প্রথম এ তথ্য চেয়েছে কি না তা তিনি নিশ্চিত করতে পারেননি।

বাংলাদেশে সরকারি চাকুরেরা দুইবার সম্পদের বিবরণী জমা দেন। বছরে একবার আয় কর রিটার্নের সময় তাঁরা জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) কাছে হিসাব জমা দেন। আর ‘সরকারি কর্মচারী (আচরণ) বিধিমালা, ১৯৭৯ অনুযায়ী পাঁচ বছর পর পর সরকারি চাকরিজীবীদের সম্পদের হ্রাস-বৃদ্ধির বিবরণী নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষের কাছে জমা দিতে হয়।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর সালেহউদ্দিন আহমেদ বলেন, আইএমএফ ব্যাংকিং খাতসহ অর্থনীতির সব বিষয় নিয়ে জানতে চায়। এর বাইরেও তারা প্রতিবছর নানা তথ্য চায়। এখন সরকার ও আইএমএফের জন্য মানি লন্ডারিং একটি বড় বিষয়। এ জন্যই হয়তো আইএমএফ পুরো প্রক্রিয়া সম্পর্কে তথ্য চেয়েছে। সরকারের উচিত সহযোগিতার পাশাপাশি আইএমএফের সঙ্গে এসব বিষয় নিয়ে সমন্বয় করা।

সফরকালে আইএমএফ প্রতিনিধিদল অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগ এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ, বাংলাদেশ ব্যাংক, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সঙ্গে বৈঠক করতে পারে। এ ছাড়া ব্যবসায়ীদের সবচেয়ে বড় সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের সঙ্গেও বৈঠক করবে তারা।

আইএমএফ সব সময় ভর্তুকি কমিয়ে আনতে সরকারকে পরামর্শ দিয়ে আসছে। বিশেষ করে বাজেট ঘাটতি কমিয়ে আনতে আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে সমন্বয়ের কথা বলে সংস্থাটি। আর কিছুদিন পর নতুন অর্থবছরের বাজেটের কাজ শুরু হবে। তাই এসব বিষয়সহ নতুন বাজেটের বিষয় আলোচনায় আসতে পারে।

পাশাপাশি ভ্যাকসিন কার্যক্রম ও এর অর্থায়নে টিকাপ্রাপ্তি নিশ্চিতে সরকারের পরিকল্পনাও জানতে চাইবে আইএমএফ। তারা এই কাজে অর্থ দিতে চায়।

২০১৯ সালে আইএমএফ ব্যাংক খাত উন্নয়নে অনেক পরামর্শ দিয়েছিল। বিশেষ করে ব্যাংক খাত নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশ ব্যাংককে একচ্ছত্র অধিপতি করার কথা বলেছিল সংস্থাটি।

আইএমএফ মূলত বাংলাদেশের অর্থনীতির সূচকগুলো কী অবস্থায় আছে তা পর্যালোচনা করে।

একাদশের শিক্ষার্থীদের গ্রুপ-ভার্সন পরিবর্তন ও টিসি কার্যক্রম ১৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত - dainik shiksha একাদশের শিক্ষার্থীদের গ্রুপ-ভার্সন পরিবর্তন ও টিসি কার্যক্রম ১৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত বাংলাদেশের উন্নয়নশীল দেশে উত্তোরণে জাতিসংঘের প্রস্তাব মহান অর্জন: প্রধানমন্ত্রী - dainik shiksha বাংলাদেশের উন্নয়নশীল দেশে উত্তোরণে জাতিসংঘের প্রস্তাব মহান অর্জন: প্রধানমন্ত্রী মাদরাসা গেইটের সামনের দোকান না রাখার নির্দেশ - dainik shiksha মাদরাসা গেইটের সামনের দোকান না রাখার নির্দেশ স্বপদে বহাল রেখে শিক্ষক ফারহানাকে শাস্তি দিল কর্তৃপক্ষ - dainik shiksha স্বপদে বহাল রেখে শিক্ষক ফারহানাকে শাস্তি দিল কর্তৃপক্ষ ৪৪ সরকারি কলেজে নতুন উপাধ্যক্ষ - dainik shiksha ৪৪ সরকারি কলেজে নতুন উপাধ্যক্ষ সেই শিক্ষককে দীর্ঘদিন চিকিৎসা নিতে হবে - dainik shiksha সেই শিক্ষককে দীর্ঘদিন চিকিৎসা নিতে হবে দৈনিক শিক্ষাডটকম পরিবারের প্রিন্ট পত্রিকা ‘দৈনিক আমাদের বার্তা’ - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষাডটকম পরিবারের প্রিন্ট পত্রিকা ‘দৈনিক আমাদের বার্তা’ please click here to view dainikshiksha website