সরকারি নির্দেশনা উপেক্ষা করে স্কুলে পরীক্ষা, ঝুঁকিতে শিক্ষার্থীরা - স্কুল - দৈনিকশিক্ষা

সরকারি নির্দেশনা উপেক্ষা করে স্কুলে পরীক্ষা, ঝুঁকিতে শিক্ষার্থীরা

ফরিদপুর প্রতিনিধি |

ফরিদপুরের ভাঙ্গায় সরকারি নির্দেশনা উপেক্ষা করে আইডিয়াল প্রি-ক্যাডেট স্কুল নামের একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। এছাড়া শিক্ষার্থীদের কাছে থেকে মাসিক বেতন ও পরীক্ষার ফি নেয়া হচ্ছে বলেও একাধিক অভিভাবক অভিযোগ করেছেন।  

ছবি : ফরিদপুর প্রতিনিধি

স্থানীয়রা জানায়, প্রতিষ্ঠানটিতে কোনো স্বাস্থ্যবিধির বালাই নেই, নেই সরকারের নিয়মনীতির তোয়াক্কা। এর মধ্যেই শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা নেয়া হচ্ছে। এতে কোমলমতি শিশুদের করোনা ঝুঁকির মধ্যে ঠেলে দেয়া হচ্ছে। এছাড়া সরকারি আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে  শিক্ষার্থীদের কাছে থেকে মাসিক বেতন ও পরীক্ষার ফি নেওয়া হচ্ছে।  

আরও পড়ুন : দৈনিক শিক্ষা পরিবারের নতুন সদস্য ‘দৈনিক আমাদের বার্তা’

সরজমিনে উপজেলার ঘারুয়ায় অবস্থিত আইডিয়াল প্রি-ক্যাডেট স্কুলটিতে গিয়ে দেখা যায়, স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে স্কুল রুমে একই বেঞ্চে তিন জন করে শিশুদের বসিয়ে পরীক্ষা নেয়া হচ্ছে। স্কুলে হ্যান্ড স্যানেটাইজার বা জীবানুমুক্ত হওয়ার কোন ব্যবস্থা। নেই সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার নির্দেশনা। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক শিক্ষার্থীর অভিভাবক দৈনিক শিক্ষাডটকমকে জানান, আমরা অনুরোধ করেছিলাম পরীক্ষা না নেয়ার। তারপরেও পরীক্ষা নেয়া হচ্ছে। পরীক্ষার ফি বাবদ ২০০ টাকা ও গত দুই মাসের বেতন বাবদ ৪০০ টাকাও নেয়া হয়েছে। 

দৈনিক আমাদের বার্তার ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব ও ফেসবুক পেইজটি ফলো করুন

যদিও পরীক্ষা নেয়ার কথা অস্বীকার করেছেন স্কুলটির প্রধান শিক্ষক জামাল শিকদার। তিনি দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, ‘আমাদের স্কুল বন্ধ। আমরা শিক্ষার্থীদের কোন পরীক্ষা নিচ্ছি না, শুধুমাত্র অ্যাসাইনমেন্ট  নিয়েছি। আমরা সরকারি বিধি নিষেধ মেনে চলছি।’

ভাঙ্গা উপজেলা শিক্ষা অফিসার মুন্সী রুহুল আসলাম দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, করোনার সময়ে কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পরীক্ষা নেয়ার বিধান নেই। এ ব্যাপারে তদন্তপূর্বক দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা ও স্টাডি সেন্টার বিদ্যমান আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক - dainik shiksha বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা ও স্টাডি সেন্টার বিদ্যমান আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক করোনার প্রভাবে শিক্ষক এখন কচু ব্যবসায়ী - dainik shiksha করোনার প্রভাবে শিক্ষক এখন কচু ব্যবসায়ী অনলাইন পরীক্ষা সুফল বয়ে আনবে না : উপাচার্য - dainik shiksha অনলাইন পরীক্ষা সুফল বয়ে আনবে না : উপাচার্য মিতু হত্যা : সাবেক এসপি বাবুল আক্তারকে প্রধান আসামি করে মামলা - dainik shiksha মিতু হত্যা : সাবেক এসপি বাবুল আক্তারকে প্রধান আসামি করে মামলা ঈদের আগে জামা-জুতার টাকা পেল না শিক্ষার্থীরা, উপবৃত্তি ৫০০ টাকায় উন্নীত করার সুপারিশ - dainik shiksha ঈদের আগে জামা-জুতার টাকা পেল না শিক্ষার্থীরা, উপবৃত্তি ৫০০ টাকায় উন্নীত করার সুপারিশ এমপিও কমিটির ভার্চুয়াল সভা ১৭ মে - dainik shiksha এমপিও কমিটির ভার্চুয়াল সভা ১৭ মে শিক্ষক পাবেন পাঁচ হাজার, কর্মচারী আড়াই হাজার টাকা করে - dainik shiksha শিক্ষক পাবেন পাঁচ হাজার, কর্মচারী আড়াই হাজার টাকা করে ২৫ শতাংশ পর্যন্ত শিক্ষার্থীর পড়াশোনা বন্ধ হয়ে গেছে - dainik shiksha ২৫ শতাংশ পর্যন্ত শিক্ষার্থীর পড়াশোনা বন্ধ হয়ে গেছে সেহরি ও ইফতারের সূচি - dainik shiksha সেহরি ও ইফতারের সূচি দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে - dainik shiksha দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে ‘কওমি মাদরাসায় জাতীয় চেতনা ও সংস্কৃতিবোধ উপেক্ষিত’ - dainik shiksha ‘কওমি মাদরাসায় জাতীয় চেতনা ও সংস্কৃতিবোধ উপেক্ষিত’ please click here to view dainikshiksha website