সাত কলেজের ২০ ক্রেডিটের মানোন্নয়ন পরীক্ষার সিদ্ধান্ত স্থগিত - কলেজ - দৈনিকশিক্ষা

সাত কলেজের ২০ ক্রেডিটের মানোন্নয়ন পরীক্ষার সিদ্ধান্ত স্থগিত

নিজস্ব প্রতিবেদক |

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সাত কলেজে স্নাতক প্রথম বর্ষ থেকে চতুর্থ বর্ষ পর্যন্ত সর্বোচ্চ ২০ ক্রেডিটের মানোন্নয়ন পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার নির্দেশনা স্থগিত করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

মঙ্গলবার (২ আগস্ট) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) ও সাত কলেজের প্রধান সমন্বয়কারী অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল সই করা বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়।

এতে বলা হয়, সরকারি সাত কলেজের ২০১৭-১৮, ২০১৮-১৯ এবং ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীদের মানোন্নয়ন পরীক্ষার ক্ষেত্রে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের অফিস থেকে দেওয়া নির্দেশনা স্থগিত করা হলো।

এছাড়াও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সরাসরি তত্ত্বাবধানে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীরা প্রচলিত বিধি মোতাবেক একবার (পরবর্তী ব্যাচের সঙ্গে) মানোন্নয়ন পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ পাবে আর কোনো বিষয়ে অকৃতকার্য হলে শিক্ষার্থীদের পরপর পরবর্তী দুই ব্যাচের সঙ্গে মানোন্নয়ন পরীক্ষা দিয়ে অকৃতকার্য বিষয়ে পাশ করতে পারবেন। 

এরআগে গত ১৯ জুলাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের কার্যালয় থেকে প্রকাশিত সাত কলেজের স্নাতক শ্রেণির দ্বিতীয় ও তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীদের চূড়ান্ত পরীক্ষার ফরম পূরণের একজন শিক্ষার্থী প্রথম বর্ষ থেকে চতুর্থ বর্ষ পর্যন্ত সর্বোচ্চ ২০ ক্রেডিট মানোন্নয়ন পরীক্ষা দিতে পারবে।

অর্থাৎ ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের যেসব নিবন্ধিত শিক্ষার্থীরা নিয়মিত পরীক্ষার্থী হিসেবে ২০২০ সালের তৃতীয় বর্ষ সম্মান পরীক্ষায় অংশ নিয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে তারা তৃতীয় বর্ষ সম্মান ২০২১ পরীক্ষায় মানোন্নয়ন পরীক্ষার্থী হিসেবে অংশ নিতে চাইলে পূর্ববর্তী দুই বর্ষে ২০ ক্রেডিটের নিচে মানোন্নয়ন পরীক্ষায় অংশ নেওয়া থাকতে হবে। ২০২০ সনের তৃতীয় বর্ষ সম্মান পরীক্ষায় সর্বোচ্চ তিনটি পত্রে অকৃতকার্য/অনুত্তীর্ণ/ অনুপস্থিত শিক্ষার্থীরাও মানোন্নয়ন পরীক্ষার ব্যাপারে এই সিদ্ধান্তের আওতায় রয়েছেন।

জন্মতারিখের প্রমাণ ছাড়া জন্মনিবন্ধন করা যাবে না - dainik shiksha জন্মতারিখের প্রমাণ ছাড়া জন্মনিবন্ধন করা যাবে না ১৩ লাখ টাকা ঘুষ দিয়েও চাকরি হয়নি, লাশ নিয়ে সভাপতির বাড়িতে অবস্থান - dainik shiksha ১৩ লাখ টাকা ঘুষ দিয়েও চাকরি হয়নি, লাশ নিয়ে সভাপতির বাড়িতে অবস্থান শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাপ্তাহিক ছুটি দুই দিন করার চিন্তা - dainik shiksha শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাপ্তাহিক ছুটি দুই দিন করার চিন্তা আগের সরকার নিয়মের তোয়াক্কা না করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করেছে : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha আগের সরকার নিয়মের তোয়াক্কা না করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করেছে : শিক্ষামন্ত্রী অনুমতি ছাড়াই দুই বছরের বেশি ছুটিতে প্রধান শিক্ষক, সহকারী শিক্ষকও নেই - dainik shiksha অনুমতি ছাড়াই দুই বছরের বেশি ছুটিতে প্রধান শিক্ষক, সহকারী শিক্ষকও নেই মেডিক্যালের প্রশ্নফাঁস চক্রে ছয় চিকিৎসকসহ জড়িত ৪২ - dainik shiksha মেডিক্যালের প্রশ্নফাঁস চক্রে ছয় চিকিৎসকসহ জড়িত ৪২ বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে অবৈধ স্টাডি সেন্টার, ব্যবস্থা নিচ্ছে না মন্ত্রণালয় - dainik shiksha বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে অবৈধ স্টাডি সেন্টার, ব্যবস্থা নিচ্ছে না মন্ত্রণালয় please click here to view dainikshiksha website