স্কুলের মধ্যেই দুই শিক্ষকের মারামারি (ভিডিও) - ভিডিও অ্যালবাম - দৈনিকশিক্ষা

স্কুলের মধ্যেই দুই শিক্ষকের মারামারি (ভিডিও)

দৈনিকশিক্ষা ডেস্ক |

করোনার বিধিনিষেধের কারণে বন্ধ রয়েছে পশ্চিমবঙ্গের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। আর বন্ধ স্কুলেই মারামারিতে জড়িয়েছেন নদীয়ার কৃষ্ণনগর কলেজিয়েট স্কুলের প্রধান শিক্ষক ও ভূগোল শিক্ষক। এই মারামারির একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় রীতিমতো ভাইরাল হয়েছে। ইতোমধ্যে স্কুলে মারামারির ঘটনায় শিক্ষা অধিদপ্তর তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকার খবরে বলা হয়েছে, গতকাল বুধবার ওই দুই শিক্ষক মারামারি ও হাতাহাতিতে জড়ান। ভিডিওতে মারামারি ছাড়াও তাদের বেশ কিছু অশালীন ভাষা ব্যবহার করতেও শোনা গেছে। অনেকের মতে, স্কুলে কোনো শিক্ষার্থী উপস্থিত না থাকায় কিছুটা হলেও স্বস্তি পেয়েছেন অন্য শিক্ষকরা। শিক্ষার্থী উপস্থিত থাকলে বিষয়টি আরও বাজে হতো।

অনেকে এও বলছেন, শিক্ষকরা যদি এভাবে মারামারি করেন, তাহলে শিক্ষার্থীরা কী করবে? কী শিখবে শিক্ষকদের কাছ থেকে? ঘটনার কারণ জানিয়ে সংবাদমাধ্যটি বলছে, স্কুলের ভূগোল শিক্ষক নিমাই মজুমদার প্রধান শিক্ষক মনরঞ্জন বিশ্বাসের কাছে বেতনের স্টেটমেন্ট চেয়েছিলেন। প্রধান শিক্ষক তা দিতে রাজি হননি। এতে ভূগোল শিক্ষক অনড় অবস্থানে থাকেন। এরপর দুই শিক্ষক হঠাৎ মারামারিতে জড়িয়ে পড়েন। যা মুহূর্তেই ক্যামেরাবন্দি হয়। তারপর ভিডিও ছড়িয়ে পড়তে সময় নেয়নি। ঘটনার নিন্দায় সরব হয়েছেন অনেকেই।

এদিকে, পশ্চিমবঙ্গে আজ বৃহস্পতিবার থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হচ্ছে। অষ্টম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা সশরীরে ক্লাস করতে পারবে।আর পঞ্চম থেকে সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য চালু থাকবে এলাকাভিত্তিক ‘পাড়ায় শিক্ষালয়’। তবে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেওয়া হলেও গত ১ ফেব্রুয়ারি থেকে ১৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত জারি থাকছে বিধিনিষেধ। 

ভিডিও সৌজন্যে: আনন্দবাজার পত্রিকা

সভাপতির শিক্ষাগত যোগ্যতা এসএসসি, প্রস্তাব নাকচ শিক্ষামন্ত্রীর - dainik shiksha সভাপতির শিক্ষাগত যোগ্যতা এসএসসি, প্রস্তাব নাকচ শিক্ষামন্ত্রীর বিলবোর্ড ভেঙে জবি ছাত্রী গুরুতর আহত - dainik shiksha বিলবোর্ড ভেঙে জবি ছাত্রী গুরুতর আহত পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে ৭৮ ভাগ আসনই খালি, নৈরাজ্য চলছে - dainik shiksha পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে ৭৮ ভাগ আসনই খালি, নৈরাজ্য চলছে শিক্ষা প্রকৌশলের দুর্নীতি, প্রশ্নের মুখে প্রধান প্রকৌশলী - dainik shiksha শিক্ষা প্রকৌশলের দুর্নীতি, প্রশ্নের মুখে প্রধান প্রকৌশলী একজন শিক্ষার্থীও হাতে পায়নি ইউনিক আইডি, প্রকল্পের মেয়াদ শেষ - dainik shiksha একজন শিক্ষার্থীও হাতে পায়নি ইউনিক আইডি, প্রকল্পের মেয়াদ শেষ লাইসেন্স ছাড়া ওষুধ উৎপাদন করলে ১০ বছরের জেল - dainik shiksha লাইসেন্স ছাড়া ওষুধ উৎপাদন করলে ১০ বছরের জেল ৩৭ শিক্ষা ক্যাডার কর্মকর্তাকে বদলি - dainik shiksha ৩৭ শিক্ষা ক্যাডার কর্মকর্তাকে বদলি অনার্স ভর্তিতে রিলিজ স্লিপে আবেদন শুরু ১৬ আগস্ট - dainik shiksha অনার্স ভর্তিতে রিলিজ স্লিপে আবেদন শুরু ১৬ আগস্ট please click here to view dainikshiksha website