স্ট্যামফোর্ডের শতাধিক কর্মকর্তা চাকরিচ্যুত - বিশ্ববিদ্যালয় - দৈনিকশিক্ষা

স্ট্যামফোর্ডের শতাধিক কর্মকর্তা চাকরিচ্যুত

নিজস্ব প্রতিবেদক |
সব জারিজুরি ফাঁস হয়েছে বেসরকারি স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটির। সেরা দশ বিশ্ববিদ্যালয়ের কথিত তালিকার মধ্যে থাকা, আর্থিক ভালো অবস্থা ইত্যাদি নানা গল্প চাউর ছিলো মাফিয়া পরিচালিত এই বিশ্ববিদ্যালয়টির বিরুদ্ধে।  অর্থ সংকটের অজুহাতে একদিনেই শতাধিক কর্মকর্তাকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। একদিন আগে মোবাইলে এসএমএস দিয়ে পরদিন বেতন ছাড়াই তাদের বরখাস্তপত্র ধরিয়ে দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন চাকরিচ্যুতরা। তালিকা তৈরি করে এই কর্মীদের চাকরিচ্যুত করা হয়েছে।
 
এদের একজন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অফিসের কর্মকর্তা রাজলক্ষ্মী দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, অন্যায়ভাবে আমাদের অনেককে চাকরিচ্যুত করা হচ্ছে। আট বছর ধরে আমি স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটিতে চাকরি করছি। গতকাল শুক্রবার (২৪ জুলাই) অফিস থেকে মোবাইলে এসএমএস দিয়ে বরখাস্তপত্র নিতে ডাকা হয়। শুক্রবার অফিসে গেলে পাওনাদি ছাড়াই বরখাস্তপত্র হাতিয়ে ধরিয়ে দেয়া হয়েছে।
 
তিনি বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে আমার স্বামীর চাকরি চলে গেছে। এখন বিনা নোটিশে আমার চাকরিও চলে যাওয়ায় বিপাকে পড়তে হয়েছে। প্রয়োজনীয় বাজার করা এবং বাসাভাড়াও দিতে পারছি না।
 
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক চাকরিচ্যুত আরেক কর্মকর্তা জানান, দীর্ঘদিন ধরে এ বিশ্ববিদ্যালয়ে কাজ করছিলেন তিনি। হঠাৎ করে মোবাইলে এসএমএস দিয়ে তাদের বরখাস্তের সিদ্ধান্ত জানানো হয় এবং পরে কাগজ ধরিয়ে দেয়া হচ্ছে। এমনিতে চার মাস ধরে ঠিকমতো বেতন দেয়া হচ্ছে না। তার ওপর বেতন ছাড়া ছাঁটাই হওয়ায় চাকরিচ্যুতরা মহাবিপদের মধ্যে পড়েছেন।
 
আরেক ভুক্তভোগী বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের দুটি শাখার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিনা কারণে ছাঁটাই করতে তালিকা করা হয়েছে। সবাইকে ডেকে বরখাস্তপত্র হাতে ধরিয়ে দেয়া হচ্ছে। গত চার মাস থেকে অর্ধেক বেতন দিচ্ছে কর্তৃপক্ষ। এখন বেতন ছাড়াই সবাইকে ছাঁটাই করা হচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে চাকরিচ্যুতরা পরিবার নিয়ে বিপদে পড়েছেন।
 
এ বিষয়ে স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ফাতিনাজ ফিরোজকে ফোন করা হলে তিনি রেজিস্ট্রারের সাথে কথা বলতে বলেন। রেজিস্ট্রার আব্দুল মতিনকে একাধিকবার কল দিলেও তারা সাড়া মেলেনি।
 
জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা সুপা সাদিয়া বলেন, এটা বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরীণ বিষয়। আমাদের ধানমন্ডি এবং সিদ্ধেশ্বরীতে মোট দুটি ক্যাম্পাস রয়েছে। আমাদের ইউজিসি থেকে নির্দেশনা আছে, ধানমন্ডি ক্যাম্পাস পুরোপুরি গুটিয়ে সিদ্ধেশ্বরী চলে আসার জন্য। তাই একটা ক্যাম্পাসে একই বিভাগে অধিক কর্মী নিয়োগ হওয়ায় এবং অন্যান্য কিছু কারণে কিছু কর্মীকে দুঃখজনকভাবে ছাঁটাইয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ।
 
তিনি বলেন, কোভিড-১৯ এর জন্য বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেভিনিউর ওপর বেশ চাপ পড়েছে। পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে এবং কর্মকর্তা-কর্মচারী প্রয়োজন হলে এদের অগ্রাধিকারভিত্তিতে নিয়োগ দেয়া হবে বলে কর্তৃপক্ষ আশ্বস্ত করেন।
নাছির মাহমুদসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে পরীমণির মামলা - dainik shiksha নাছির মাহমুদসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে পরীমণির মামলা পরীক্ষা পেছাতে পারে পাঁচ-ছয় মাস তবু অটোপাস নয় : চেয়ারম্যান - dainik shiksha পরীক্ষা পেছাতে পারে পাঁচ-ছয় মাস তবু অটোপাস নয় : চেয়ারম্যান দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে - dainik shiksha দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে ডিজিটাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ৮০ ভাগ শিক্ষার্থীই অনলাইনে পরীক্ষায় অনাগ্রহী - dainik shiksha ডিজিটাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ৮০ ভাগ শিক্ষার্থীই অনলাইনে পরীক্ষায় অনাগ্রহী শিক্ষামন্ত্রীও এক বছর ছুটিতে গেলে দেশের কী ক্ষতি হবে, প্রশ্ন মিলনের - dainik shiksha শিক্ষামন্ত্রীও এক বছর ছুটিতে গেলে দেশের কী ক্ষতি হবে, প্রশ্ন মিলনের আগামী বছরের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের ১ম সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ - dainik shiksha আগামী বছরের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের ১ম সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ পরীমণিকে নির্যাতনকারী কে এই নাছির মাহমুদ? - dainik shiksha পরীমণিকে নির্যাতনকারী কে এই নাছির মাহমুদ? পরীক্ষা এক বছর না দিলে ক্ষতি হবে না : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha পরীক্ষা এক বছর না দিলে ক্ষতি হবে না : শিক্ষামন্ত্রী সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি ৩০ জুন পর্যন্ত - dainik shiksha সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি ৩০ জুন পর্যন্ত ৬ষ্ঠ-৯ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ষষ্ঠ সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ - dainik shiksha ৬ষ্ঠ-৯ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ষষ্ঠ সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ please click here to view dainikshiksha website