হল খোলার প্রশ্নে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে হবে - মতামত - দৈনিকশিক্ষা

হল খোলার প্রশ্নে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে হবে

দৈনিকশিক্ষা ডেস্ক |

একাধিক পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আবাসিক হলগুলো খুলে দেয়ার দাবি তুলেছে। আগামী ১৭ মে থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের হল ও ২৪ মে থেকে দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয় খোলার কথা জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী। কিন্তু শিক্ষার্থীরা সে পর্যন্ত অপেক্ষা করতে নারাজ। কোন কোন বিশ্ববিদ্যালয়ের হলের তালা ভেঙে সেখানে অবস্থান নিয়েছে শিক্ষার্থীরা। জাবি কর্তৃপক্ষ বলেছে, হল না ছাড়লে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নিবন্ধনে আরও জানা যায়, সরকার এখনই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে চাচ্ছে না কারণ কোভিড-১৯ মহামারীর ঝুঁকি এখনও চলে যায়নি। অগ্রাধিকারভিত্তিতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের করোনা ভ্যাকসিন নিশ্চিত করে বিশ্ববিদ্যালয় খোলার কথা বলা হচ্ছে।

দেশে করোনা যখন দ্রুত বিস্তৃত হচ্ছিল, এর সংক্রমণের চিত্র সম্পর্কে সুনির্দিষ্ট ধারণা পাওয়া যাচ্ছিল না তখন পোশাক কারখানা খুলে দেয়া হয়েছে। ৬৬ দিনের সাধারণ ছুটির মধ্যে হাজারও কারখানা চালু ছিল। ছুটি শেষ হওয়ার আগেই নানা পরিসরে খুলে দেয়া হয়েছিল ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান। ছুটির পর কিছুদিন মানা হলেও এখন গণপরিবহনে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি। এ অবস্থায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা কতটা যৌক্তিক সেই প্রশ্ন তুলছেন অনেকে। উন্নত অনেক দেশেই করোনার সংক্রমণের মধ্যেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে দেখা গেছে। শীত মৌসুম চলে যাওয়ার পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হতে পারে বলে সাধারণ মানুষ ধারণা করেছিলেন। ভ্যাকসিন আসার পর তাদের এ ধারণা আরও জোরালো হয়। কিন্তু ঈদ পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত তাদের হতাশ করেছে।

একটা যৌক্তিক সময়ের মধ্যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হবে সেটা আমাদের আশা। বিশ্ববিদ্যালয়ের হল খোলার বিষয়েও দ্রুত একটি সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে হবে। এক্ষেত্রে আবাসিক হলের শিক্ষার্থীদের সমস্যাগুলো আমলে নিতে হবে। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলে যেসব শিক্ষার্থী থাকে তারা করোনা মহামারীর সময় গত প্রায় এক বছর নানা প্রতিকূল পরিস্থিতি মোকাবিলা করেছে। তারা প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা ক্ষেত্রে পিছিয়ে পড়ছে, চাকরির বাজারে প্রবেশ বিলম্বিত হচ্ছে।

সমস্যা এখানেই সীমাবদ্ধ নয়। হলে থাকা-খাওয়ার সঙ্গে নিরাপত্তা ও আর্থিক সঙ্গতির যোগ রয়েছে। সমস্যাগুলো তারা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে হবে। শুধু আলটিমেটাম দিয়ে হল ছাড়ার কথা বললে সমস্যার সমাধান মিলবে না। বরং পরিস্থিতি আরও ঘোলাটে হতে পারে।

সূত্র: দৈনিক সংবাদ। 

১২ মাসে বিসিএস শেষ করার ক্রাশ প্রোগ্রাম, জানালেন পিএসি চেয়ারম্যান - dainik shiksha ১২ মাসে বিসিএস শেষ করার ক্রাশ প্রোগ্রাম, জানালেন পিএসি চেয়ারম্যান শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে মনোবিজ্ঞানী নিয়োগ শিগগিরই : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে মনোবিজ্ঞানী নিয়োগ শিগগিরই : শিক্ষামন্ত্রী আশঙ্কার চেয়েও কঠিন অপপ্রয়োগ হচ্ছে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের - dainik shiksha আশঙ্কার চেয়েও কঠিন অপপ্রয়োগ হচ্ছে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অনুদানের নামে প্রতারণা, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সতর্কতা - dainik shiksha অনুদানের নামে প্রতারণা, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সতর্কতা করোনাকালেও দুর্নীতি, মিনিষ্ট্রি অডিট চলছে রাজধানীর ১২ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে - dainik shiksha করোনাকালেও দুর্নীতি, মিনিষ্ট্রি অডিট চলছে রাজধানীর ১২ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সংশোধনের চিন্তাভাবনা নেই : আইনমন্ত্রী - dainik shiksha ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সংশোধনের চিন্তাভাবনা নেই : আইনমন্ত্রী ১০ মার্চের মধ্যে সব শিক্ষককে টিকা নেয়ার নির্দেশ - dainik shiksha ১০ মার্চের মধ্যে সব শিক্ষককে টিকা নেয়ার নির্দেশ নগদের পোর্টালে উপবৃত্তি পাওয়া শিক্ষার্থীদের তথ্য অন্তর্ভুক্তি শুরু ১৫ মার্চ - dainik shiksha নগদের পোর্টালে উপবৃত্তি পাওয়া শিক্ষার্থীদের তথ্য অন্তর্ভুক্তি শুরু ১৫ মার্চ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি আবেদনের ৭ জরুরি নির্দেশনা - dainik shiksha ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি আবেদনের ৭ জরুরি নির্দেশনা ৩ মাসের এমপিও হারালেন আরও ৪ প্রতিষ্ঠান প্রধান - dainik shiksha ৩ মাসের এমপিও হারালেন আরও ৪ প্রতিষ্ঠান প্রধান সরকারি প্রাথমিকের শিক্ষিকাকে এমপিওভুক্তির চেষ্টা, বেতন বন্ধ হলো অধ্যক্ষের - dainik shiksha সরকারি প্রাথমিকের শিক্ষিকাকে এমপিওভুক্তির চেষ্টা, বেতন বন্ধ হলো অধ্যক্ষের please click here to view dainikshiksha website