৫০ দেশের প্রতিযোগীদের পেছনে ফেলে সেরা বুয়েট ছাত্রী - বিশ্ববিদ্যালয় - দৈনিকশিক্ষা

৫০ দেশের প্রতিযোগীদের পেছনে ফেলে সেরা বুয়েট ছাত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক |

তামাকের ব্যবহার বন্ধের উদ্দেশ্যে একটি বৈশ্বিক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে দ্বিতীয় হয়েছেন বাংলাদেশে প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী তাওরেম সানানু। ৫০টি দেশের ৭০০ প্রতিযোগীর মধ্যে তিনি এই গৌরব অর্জন করেছেন। তাওরেম সানানু বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপত্যবিদ্যা বিভাগের ছাত্রী।

আরও পড়ুন : দৈনিক শিক্ষাডটকম পরিবারের প্রিন্ট পত্রিকা ‘দৈনিক আমাদের বার্তা’

জানা গেছে, বিশ্বব্যাপী তামাকের ব্যবহার বন্ধের লক্ষ্যে চলতি বছরের গ্লোবাল মিডিয়া প্রতিযোগিতার ইনফোগ্রাফিক্স বিভাগে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেন তাওরেম সানানু। ইনফোগ্রাফিক্সে তিনি বিশ্বব্যাপী তামাকের ব্যবহারের কারণে কী পরিমাণ ক্ষতি হয় সে চিত্র তুলে ধরেছেন।

এতে দেখানো হয়েছে, প্রতি বছর বিশ্বের শীর্ষ চার অর্থনীতির দেশ ১২০ কোটি ইউরো ট্যাক্স পরিশোধ করে না। এ ছাড়া এর কারণে বছরে দেড় লাখ শিশু ও ২৫ লাখ নারীর মৃত্যু হয়। তামাক চাষের জন্য বিপুল পরিমাণ বনভূমিও প্রতি বছর উজাড় হয়ে যাচ্ছে। পাশাপাশি এক লাখ ৪০ হাজার কোটি ডলার নষ্ট হচ্ছে স্বাস্থ্যসেবা ও উৎপাদনশীলতার ক্ষতির কারণে।

তাওরেম সানানু নিজের ফেসবুক আইডিতেও এই অর্জনের কথা শেয়ার করেছেন। সেখানে তিনি লিখেছেন, গ্ল্যোবাল সেন্টার ফর গুড গভর্ন্যান্স ইন টোব্যাকো কনট্রোল (জিজিটিসি) এর আয়োজক। এতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) তামাক নিয়ন্ত্রণ বিষয়ক ফ্রেমওয়ার্কেরও সংশ্লিষ্টরা রয়েছে।

দৈনিক আমাদের বার্তার ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব ও ফেসবুক পেইজটি ফলো করুন

তিনি বলেন, ‘টোব্যাকো ইজ নট গোয়িং অ্যালোন’ থিমে তিনি এ প্রতিযোগিতায় অংশ নেন। তামাক শিল্প শুধু ভোক্তারই নয়, আরও অনেক খাতের ক্ষতি করছে। এতে তামাককে একটি ডুবন্ত জাহাজের সঙ্গে তুলনা করা হয়েছে। ওই জাহাজের কোনো জীবন রক্ষার সক্ষমতা নেই। এই জাহাজ নিরপরাধ মানুষের জীবন নিয়ে নিচ্ছে, পরিবেশের ক্ষতি করছে।

এটি আরও বেশি ক্ষতি করার আগেই থামিয়ে দেওয়ার আহবান জানিয়েছেন তিনি। এ প্রতিযোগিতায় শীর্ষস্থান অর্জনের পেছনে যারা সহযোগিতা করেছে তাদের সবাইকে কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন তিনি।

৪৩ লাখ শিক্ষার্থীর টিউশন ফি-উপবৃত্তির হাজার কোটি টাকা বিতরণ শুরু - dainik shiksha ৪৩ লাখ শিক্ষার্থীর টিউশন ফি-উপবৃত্তির হাজার কোটি টাকা বিতরণ শুরু এসএসসি-এইসএসসি পরীক্ষা নিয়ে সিদ্ধান্ত শিগগির : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha এসএসসি-এইসএসসি পরীক্ষা নিয়ে সিদ্ধান্ত শিগগির : শিক্ষামন্ত্রী দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে - dainik shiksha দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবিতে ‘শিক্ষক-অভিভাবক’ সমাবেশ ২৬ জুন - dainik shiksha শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবিতে ‘শিক্ষক-অভিভাবক’ সমাবেশ ২৬ জুন এনজিওর হাতে যাচ্ছে সরকারি হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা! - dainik shiksha এনজিওর হাতে যাচ্ছে সরকারি হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা! বিলের মধ্যে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্র: এক চিঠিতেই আটকে গেল ভূমি অধিগ্রহণ - dainik shiksha বিলের মধ্যে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্র: এক চিঠিতেই আটকে গেল ভূমি অধিগ্রহণ ঢাকার রাস্তায় প্রাইভেট ক্যামেরা, ফুটেজের ব্যবসা! - dainik shiksha ঢাকার রাস্তায় প্রাইভেট ক্যামেরা, ফুটেজের ব্যবসা! নির্মাণাধীন ম্যাটসে মেঝে ভরাটে বালুর পরির্বতে মাটি - dainik shiksha নির্মাণাধীন ম্যাটসে মেঝে ভরাটে বালুর পরির্বতে মাটি উচ্চশিক্ষার ক্ষতি পোষাতে শিক্ষাবর্ষের সময় কমানো ও ছুটি বাতিলের পরামর্শ - dainik shiksha উচ্চশিক্ষার ক্ষতি পোষাতে শিক্ষাবর্ষের সময় কমানো ও ছুটি বাতিলের পরামর্শ please click here to view dainikshiksha website