‘প্রতিহিংসামূলক’ বদলিতে শিক্ষা ক্যাডারে ক্ষোভ - কলেজ - দৈনিকশিক্ষা

‘প্রতিহিংসামূলক’ বদলিতে শিক্ষা ক্যাডারে ক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক |

বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারভুক্ত সরকারি কলেজের কয়েকজন শিক্ষককে বদলির ঘটনাকে ‘প্রতিহিংসা’ হিসেবে চিহ্নিত করেছেন শিক্ষা ক্যাডারের অধিকাংশ কর্মকর্তা। গতকাল ১১ সেপ্টেম্বর শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ  থেকে এ বদলির আদেশ জারি হয়।   এতে দেখা যায় ‘প্রতিহিংসামূলক’ বদলির শিকার হয়েছেন বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারের মর্যাদা রক্ষার আন্দোলনে ‘তুর্কী তরুণ’ হিসেবে খ্যাতি পাওয়া দুইজন কর্মকর্তা। তারা ঢাকার বাইরের কলেজেই চাকরি করছিলেন। কিন্তু বদলির আবেদন না করলেও হঠাৎই তাদেরকে কয়েকশত মাইল দূরের কলেজে বদলি করে দেয়া হয়েছে। শিক্ষা ক্যাডারের অধিকাংশ কর্মকর্তা এমন বদলির জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের একজন বিতর্কিত কর্মকর্তাকে দায়ী করছেন। ফেসবুকসহ নানা মাধ্যমে সমালোচনার ঝড় বইছে। সদ্য মেয়াদ শেষ হওয়া বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতির সভাপতি অধ্যাপক আইকে সেলিম উল্লাহ খোন্দকার তার ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। যেখানে তিনিও মর্যাদা রক্ষা কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে বদলির বিষয়টি ‘একটি বিশেষ মহলের উস্কানিতে হয়েছে’ বলে উল্লেখ করেন। বদলির আদেশ বাতিল করতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিবের সাথে কথা বলেছেন সভাপতি।জনস্বার্থে সরকারি কর্মকর্তাদের বদলি একটি স্বাভাবিক বিষয় বলেও মন্তব্য করেছেন সভাপতি।

উল্লেখ্য, শিক্ষা প্রশাসনে কুখ্যাত বাড়ৈ সিন্ডিকেটের সদস্যদের বিরুদ্ধে নতুন খোলসে শিক্ষা প্রশাসনের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদ দখল করার অভিযোগ করে আসছেন সচেতন শিক্ষকরা। শিক্ষা প্রশাসনে নানা অপকর্মের হোতা বাড়ৈ সিন্ডিকেটের প্রায় ৩০ জন সদস্যকে ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দে ঢাকার বাইরে বদলি করেন সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। কিন্তু কয়েকমাসের মধ্যেই তারা আরও গুরুত্বপূর্ণ পদে ফিরে আসেন। সমিতিতে নিয়মানুযায়ী নির্বাচন না দিয়ে টালবাহানা করে সময় নষ্ট করায় এই সিন্ডিকেটের ওপর ক্ষুব্ধ সমিতির অধিকাংশ সদস্য। আসন্ন নির্বাচনে ভরাডুবি ঠেকাতে পদ-পদবির লোভ দেখিয়ে কাউকে কাউকে দলে টানার চেষ্টা করারও অভিযোগ তাদের বিরুদ্ধে। দল ভারী করতে তারা জামাত-বিএনপিপন্থিদেরও শিক্ষা প্রশাসনের ভালো পদে বসানের অভিযোগ উঠেছে। 

সম্প্রতি নির্বাচন নিয়ে ঢাকা কলেজে কয়েকটি সভা অনুষ্ঠিত হয় শিক্ষা ক্যাডারের সিনিয়র ও জুনিয়র সদস্যদের নিয়ে। শিক্ষা প্রশাসনের কর্তাদের সাথেও বৈঠক হয়। এরপরপরই প্রতিহিংসামূলক বদলি শুরু হয় বলে দৈনিক শিক্ষাকে জানান কয়েকজন কর্মকর্তা।

উল্লেখ্য, বাড়ৈ সিন্ডিকেটের প্রধান মন্মথ বাড়ৈ কোনও ছুটি ছাড়াই সপরিবারে যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমিয়েছেন একাদশ সংসদ নির্বাচনের ঠিক আগে।

হল না খোলার শর্তে সাত কলেজের পরীক্ষা গ্রহণের অনুমতি - dainik shiksha হল না খোলার শর্তে সাত কলেজের পরীক্ষা গ্রহণের অনুমতি স্কুল-কলেজ খুলে দেওয়ার উসকানিদাতারা দেশের শত্রু: আমু - dainik shiksha স্কুল-কলেজ খুলে দেওয়ার উসকানিদাতারা দেশের শত্রু: আমু রাস্তা ছাড়লেন সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা, যান চলাচল শুরু - dainik shiksha রাস্তা ছাড়লেন সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা, যান চলাচল শুরু শিক্ষক নেতা বাশারকে উচ্ছেদে শিক্ষা ভবনের সেই চিঠি, পদবি নিয়েও প্রতারণা - dainik shiksha শিক্ষক নেতা বাশারকে উচ্ছেদে শিক্ষা ভবনের সেই চিঠি, পদবি নিয়েও প্রতারণা যত দ্রুত সম্ভব স্কুল খুলে দেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত : প্রতিমন্ত্রী - dainik shiksha যত দ্রুত সম্ভব স্কুল খুলে দেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত : প্রতিমন্ত্রী এনসিটিবির ওয়েবসাইট ও ইমেইল হ্যাক করে সব স্কুলে চিঠি - dainik shiksha এনসিটিবির ওয়েবসাইট ও ইমেইল হ্যাক করে সব স্কুলে চিঠি পেছাচ্ছে না ৪০-৪২তম বিসিএস পরীক্ষার সময় - dainik shiksha পেছাচ্ছে না ৪০-৪২তম বিসিএস পরীক্ষার সময় ১৭ মে ঢাবির হল খোলার আগে পরীক্ষার সূচি নয় - dainik shiksha ১৭ মে ঢাবির হল খোলার আগে পরীক্ষার সূচি নয় এমপিওভুক্ত করা হবে আরো ৬৬১ শিক্ষককে - dainik shiksha এমপিওভুক্ত করা হবে আরো ৬৬১ শিক্ষককে please click here to view dainikshiksha website