‘সরকারিকরণের আদেশ জারির দিন থেকে শিক্ষকদের আর্থিক সুবিধা দেয়ার চেষ্টা চলছে’ - কলেজ - দৈনিকশিক্ষা

‘সরকারিকরণের আদেশ জারির দিন থেকে শিক্ষকদের আর্থিক সুবিধা দেয়ার চেষ্টা চলছে’

নিজস্ব প্রতিবেদক |

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন বলেছেন, কলেজ সরকারিকরণের আদেশ জারির দিন থেকেই শিক্ষক কর্মচারীদের আর্থিক সুবিধা দেয়ার চেষ্টা চলছে। আমরা ইতোমধ্যেই জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সাথে কথা বলেছি। শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে ইতোমধ্যেই এ বিষয়ে একটি প্রস্তাব জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। আরও একটি প্রস্তাব আমরা পাঠাবো। 

বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে শিক্ষা বিষয়ক সাংবাদিকদের সঙ্গে এক ভার্চুয়াল আলোচনা অনুষ্ঠানে এসব তথ্য জানান তিনি।

সচিব আরও বলেন, সরকারিকৃত কলেজগুলোর প্রজ্ঞাপন দুই বছর আগে জারির পর শিক্ষক-কর্মচারীদের আত্তীকরণের কাজ শেষ হয়নি। এ কলেজগুলো থেকে অনেক শিক্ষক-কর্মচারী অবসরে চলে যাচ্ছেন। প্রচলিত বিধি অনুসারে শিক্ষক-কর্মচারীরা আত্তীকরণের আদেশ জারির দিন থেকে আর্থিক সুবিধা পান। কিন্তু এরফলে সরকারিকরণের পর অবসরে যাওয়া শিক্ষক-কর্মচারীরা বঞ্চিত হচ্ছে। এ জটিলতা নিরসনেই আমরা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সাথে আলোচনা চালাচ্ছি। 

 মাহবুব হোসেন আরও বলেন, টিভিতে প্রচারিত ক্লাস কোচিংয়ের বিকল্প হিসেবে ব্যবহারে চিন্তা করছে সরকার। একইসাথে শিক্ষার প্রকল্পগুলোতে অনলাইনে পাঠদানে সক্ষমতা বৃদ্ধির ওপর জোর দিতে শিক্ষামন্ত্রী মহোদয় নির্দেশ দিয়েছেন। আমরা সেভাবেই কাজ করছি। 

অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, এমপিও নীতিমালা সংশোধন ও পরিমার্জন করা হচ্ছে। আমরা নীতিমালার সংশোধনী প্রায় চূড়ান্ত করে ফেলেছি। আশা করছি আগামী মাসে সংশোধিত নীতিমালা জারি করা হবে। পরিমার্জিত নীতিমালা জারির পর নতুন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির আবেদন নেয়া হবে। 

তিনি আরও বলেন, আগের এমপিও নীতিমালায় কিছু অসঙ্গতি ছিল। সেগুলো নিয়ে আমরা কাজ করেছি। কয়েক দফায় এ নিয়ে আলোচনা করেছি। কর্মকর্তারা কয়েকদফা আলোচনা করে একটি খসড়া তৈরি করেছেন। সেটি চূড়ান্ত করতেও কয়েক দফা সভা হয়েছে। আশা করছি নীতিমালা ও জনবল কাঠামোর অসঙ্গতি দূর হবে। 

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে সিদ্ধান্ত আগামী সপ্তাহে জানানো হবে। পরীক্ষা সম্পর্কিত প্রতিটি বিষয় আমরা পর্যালোচনা করছি। বেশ কিছু অপশন আমাদের হাতে আছে। তবে, আমরা চাই আমাদের পরীক্ষার্থীরা যেন ভবিষ্যতে কোনভাবেই ক্ষতিগ্রস্থ না হয়। তাই, সার্বিক দিক পর্যালোচনা করা হচ্ছে। আগামী সপ্তাহের সোম বা মঙ্গলবার পরীক্ষা নিয়ে সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিতে পারবো। 

শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেলের সাথেই থাকুন। ভিডিওগুলো মিস করতে না চাইলে এখনই দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন এবং বেল বাটন ক্লিক করুন। বেল বাটন ক্লিক করার ফলে আপনার স্মার্ট ফোন বা কম্পিউটারে সয়ংক্রিয়ভাবে ভিডিওগুলোর নোটিফিকেশন পৌঁছে যাবে।
দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল  SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের আবেদনে ভুল সংশোধনের সুযোগ - dainik shiksha প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের আবেদনে ভুল সংশোধনের সুযোগ আসছে বছর থেকেই পাঠ্যপুস্তকে অন্তর্ভুক্ত হচ্ছে প্রোগ্রামিং - dainik shiksha আসছে বছর থেকেই পাঠ্যপুস্তকে অন্তর্ভুক্ত হচ্ছে প্রোগ্রামিং ৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত সংসদ টিভিতে মাধ্যমিকের ক্লাস রুটিন - dainik shiksha ৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত সংসদ টিভিতে মাধ্যমিকের ক্লাস রুটিন ইবতেদায়ি ও দাখিল শিক্ষার্থীদের পঞ্চম সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ - dainik shiksha ইবতেদায়ি ও দাখিল শিক্ষার্থীদের পঞ্চম সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বেতনও ইএফটিতে - dainik shiksha প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বেতনও ইএফটিতে ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষার দায়িত্ব মাদরাসা বোর্ডের - dainik shiksha ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষার দায়িত্ব মাদরাসা বোর্ডের প্রতি স্কুলের তিন শিক্ষককে করতে হবে কৈশোরকালীন পুষ্টি প্রশিক্ষণ - dainik shiksha প্রতি স্কুলের তিন শিক্ষককে করতে হবে কৈশোরকালীন পুষ্টি প্রশিক্ষণ please click here to view dainikshiksha website