ক্লাসে দেরি করায় শিক্ষক লাঞ্ছিত : প্রধান শিক্ষকের অপসারণ দাবি - স্কুল - দৈনিকশিক্ষা

ক্লাসে দেরি করায় শিক্ষক লাঞ্ছিত : প্রধান শিক্ষকের অপসারণ দাবি

মির্জাগঞ্জ (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি |

পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ উপজেলার একটি স্কুলে ক্লাসে যেতে দেরি করায় একজন সহকারী শিক্ষককে লাঞ্ছিত করার অভিযোগ উঠেছে ওই প্রতিষ্ঠানটির প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে। গতকাল রোববার উপজেলার দেউলী পল্লী মঙ্গল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।

স্কুলটির সিনিয়র সহকারী শিক্ষক মো. আসাদুজ্জামানের অভিযোগ, ওই স্কুলে প্রধান শিক্ষক মো. আবদুস সালাম তাকে গালিগালাজ ও শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেছেন। এদিকে ওই শিক্ষককে লাঞ্ছিত করার অভিযোগে প্রধান শিক্ষক মো. আবদুস সালামের অপসারণ ও তার বিচার দাবিতে সোমবার মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছেন স্কুলের অভিভাবক ও সাবেক শিক্ষার্থীরা। আর প্রধান শিক্ষক তার ভুল স্বীকার করে এ ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

সোমবার দুপুরে দেউলী বাঁধঘাট এলাকায় মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেন প্রতিষ্ঠানটির প্রাক্তন শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। তারা মানববন্ধনে জানান, গত রোববার বিদ্যালয়ের সিনিয়র সহকারী শিক্ষক মো. আসাদুজ্জামান ক্লাসে যেতে দেরি করায় প্রধান শিক্ষক তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ এবং শারীরিক নির্যাতন করেছেন। এ অভিযোগে তারা প্রধান শিক্ষক আবদুস সালামের অপসারণ ও তার বিচার দাবি করেছেন। মানববন্ধন শেষে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে সমাবেশে মিলিত হয়। এতে উপস্থিত  ছিলেন, রুবেল সিকদার, মো. আমজেদ খান, শামীম, মুক্তা খান, মো. আদনান হোসেন শাওন, আরাফাত, ইমু, ইমরানসহ স্থানীয় অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা। 

এ বিষয়ে স্কুলের সিনিয়র সহকারী শিক্ষক মো. আসাদুজ্জামান দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, ‘বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় ঘণ্টায় নবম শ্রেণিতে আমার ক্লাস ছিলো। কিন্তু রুটিন পরিবর্তন করে প্রথম ঘণ্টায় দেয়া হয়েছে, কিন্তু তা আমাকে তা জানানো হয়নি। তাই আমি প্রথম ঘণ্টায় লাইব্রেরিতে বসেছিলাম। শ্রেণি কক্ষে না যাওয়ায় প্রধান শিক্ষক আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ এবং শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেছেন।’

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আবদুস সালাম দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, ‘যে ঘটনাটি ঘটেছে তা দুঃখজনক। সকলের সামনে আসাদুজ্জামান স্যারকে রাগ করা আমার ভুল হয়েছে।  আমি তাকে সরি বলেছি। সবাই বসে বিষয়টি মীমাংসা হয়েছে।’

বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও দেউলী সুবিদখালী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মো. মনিরুজ্জামান খান দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, ‘সবাইকে নিয়ে ঘটনাটি মিলমিশ করা হয়েছে।’ 

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. রেজাউল কবির দৈনিক শিক্ষাডটকমকে জানান, ‘এরকম একটা ঘটনা শুনেছি। এখনো লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগে পেলে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।’

মাদরাসা শিক্ষকদের উৎসব ভাতার চেক ছাড় - dainik shiksha মাদরাসা শিক্ষকদের উৎসব ভাতার চেক ছাড় শিক্ষক হত্যায় অভিযুক্ত ছাত্র জিতু গ্রেফতার - dainik shiksha শিক্ষক হত্যায় অভিযুক্ত ছাত্র জিতু গ্রেফতার শিক্ষক হত্যায় অভিযুক্ত ছাত্রের বয়স উনিশের বেশি, জেডিসি পাস - dainik shiksha শিক্ষক হত্যায় অভিযুক্ত ছাত্রের বয়স উনিশের বেশি, জেডিসি পাস ‘মনে হয়েছিল আত্মহত্যা করি’, বললেন লাঞ্ছিত হওয়া সেই অধ্যক্ষ - dainik shiksha ‘মনে হয়েছিল আত্মহত্যা করি’, বললেন লাঞ্ছিত হওয়া সেই অধ্যক্ষ শিশুদের কে জি স্কুলে ভর্তি হওয়ার প্রবণতা দুঃখজনক : মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী - dainik shiksha শিশুদের কে জি স্কুলে ভর্তি হওয়ার প্রবণতা দুঃখজনক : মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী স্ত্রীর আবদার পূরণে দুর্নীতি করবেন না : দুদক কমিশনার - dainik shiksha স্ত্রীর আবদার পূরণে দুর্নীতি করবেন না : দুদক কমিশনার ইবতেদায়ি শিক্ষকদের তিন মাসের অনুদানের চেক ছাড় - dainik shiksha ইবতেদায়ি শিক্ষকদের তিন মাসের অনুদানের চেক ছাড় please click here to view dainikshiksha website