চুল বড় রাখায় ছাত্রকে পেটালেন শিক্ষক - স্কুল - দৈনিকশিক্ষা

চুল বড় রাখায় ছাত্রকে পেটালেন শিক্ষক

নাঙ্গলকোট (কুমিল্লা) প্রতিনিধি |

কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার তুলাতুলী উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির এক ছাত্রকে ক্লাস চলাকালীন বেত দিয়ে বেধড়ক পেটানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে ওই স্কুলের সহকারী প্রধান শিক্ষক আলী আক্কাসের বিরুদ্ধে।  চুল বড় রাখায় ওই ছাত্রকে পেটানো হয় বলে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী জানিয়েছে।   

বুধবার ওই স্কুলের শ্রেণিকক্ষে ছাত্র-ছাত্রীদের সামনে এ ঘটনা ঘটে। আহত ইকবাল হোসেন রাকিব ওই স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্র। সে তুলাতুলি গ্রামের রফিকের ছেলে।

জানা যায়, বুধবার সকালে দশম শ্রেণির কক্ষে শতাধিক ছাত্র ছাত্রীদের ইংরেজি ক্লাস চলমান অবস্থায় চুল বড় রাখার অজুহাতে শিক্ষক আলী আক্কাস বেত দিয়ে বেধড়ক পিটিয়ে ও চড় থাপ্পড় মেরে আহত করে টেনে-হেঁচড়ে স্কুল থেকে বের করে দেয়া হয়। ওই শিক্ষক জেলা সদরে থাকেন নিয়মিত স্কুলে আসেন না ও শিক্ষকদের সঙ্গে প্রভাব খাটিয়ে চলেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী ইকবাল হোসেন রাকিব বলেন, ‘শিক্ষক আলী আক্কাস ক্লাস রুমে ঢুকেই বলে এই তোর চুল এত বড় কেন? আমি বলেছি, স্যার আমার চুল তো ছোট আমার থেকে অনেক ছাত্রের চুল বড় এ কথা বলার পর স্যার আমাকে বেড়ধক পিটিয়ে ও চড় থাপ্পড় মারতে মারতে টেনে-হেঁচড়ে স্কুল থেকে বের করে দেন। আমি এ ঘটনার বিচার চাই।’

অভিযুক্ত শিক্ষক আলী আক্কাস বেত্রাঘাতের কথা অস্বীকার করে বলেন, ‘কাউকে মারিনি আপনাদের কাছে এভিডেন্স থাকলে যা পারেন করেন।’

এ বিষয় তুলাতলী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রুহুল আমিন বলেন, ঘটনাটি কিছুক্ষণ আগে শুনেছি। ভুক্তভোগী ছাত্র থেকে শুনে ব্যবস্থা নেব।

নাঙ্গলকোট উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নাছির উদ্দীন বলেন, খোঁজ নিয়ে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রায়হান মেহেবুব এর সরকারি নাম্বারে একাধিক বার কল দিলেও তিনি রিসিভ করেননি।

মাদরাসা শিক্ষকদের উৎসব ভাতার চেক ছাড় - dainik shiksha মাদরাসা শিক্ষকদের উৎসব ভাতার চেক ছাড় শিক্ষক হত্যায় অভিযুক্ত ছাত্র জিতু গ্রেফতার - dainik shiksha শিক্ষক হত্যায় অভিযুক্ত ছাত্র জিতু গ্রেফতার শিক্ষক হত্যায় অভিযুক্ত ছাত্রের বয়স উনিশের বেশি, জেডিসি পাস - dainik shiksha শিক্ষক হত্যায় অভিযুক্ত ছাত্রের বয়স উনিশের বেশি, জেডিসি পাস ‘মনে হয়েছিল আত্মহত্যা করি’, বললেন লাঞ্ছিত হওয়া সেই অধ্যক্ষ - dainik shiksha ‘মনে হয়েছিল আত্মহত্যা করি’, বললেন লাঞ্ছিত হওয়া সেই অধ্যক্ষ শিশুদের কে জি স্কুলে ভর্তি হওয়ার প্রবণতা দুঃখজনক : মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী - dainik shiksha শিশুদের কে জি স্কুলে ভর্তি হওয়ার প্রবণতা দুঃখজনক : মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী স্ত্রীর আবদার পূরণে দুর্নীতি করবেন না : দুদক কমিশনার - dainik shiksha স্ত্রীর আবদার পূরণে দুর্নীতি করবেন না : দুদক কমিশনার ইবতেদায়ি শিক্ষকদের তিন মাসের অনুদানের চেক ছাড় - dainik shiksha ইবতেদায়ি শিক্ষকদের তিন মাসের অনুদানের চেক ছাড় please click here to view dainikshiksha website