পিটিআই সুপারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ - কলেজ - দৈনিকশিক্ষা

পিটিআই সুপারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি |

গোপালগঞ্জে পিটিআই সুপারিনটেনডেন্টের বিরুদ্ধে প্রশিক্ষণ পরিচালনায় নানান দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ করেছেন ট্রেইনিং অব মাস্টার ট্রেনারস্ ইন ইংলিশ’র (টিএমটিই) প্রশিক্ষণার্থীরা। 

সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বরাবরে ভুক্তভোগী প্রশিক্ষণার্থীরা এসব অভিযোগ করেন। 

এদিকে গত ১৯ সেপ্টেম্বর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ৫ শিক্ষক ও প্রশিক্ষণার্থীর বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহনের নির্দেশ দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। ওই শিক্ষকরা হলেন শমসের সরদার, মো. নাসির উদ্দিন, মো. নজরুল ইসলাম, বিপুল কান্তি বিশ্বাস ও আসাদুজ্জামান।

প্রশিক্ষণার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, প্রাথমিক শিক্ষকদের ইংরেজি ভাষার উপর দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে বাংলাদেশ সরকার ও ব্রিটিশ কাউন্সিলের সহায়তায় প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর মাস্টার ট্রেইনার হিসেবে প্রশিক্ষণের উদ্যোগ নেয়। মেধাবী শিক্ষকদের মধ্য থেকে এপটিস টেস্টের মাধ্যমে চতুর্থ ব্যাচের জন্য ১৪ সপ্তাহের প্রশিক্ষণের জন্য গোপালগঞ্জ, ফরিদপুর, মাদারীপুর, শরিয়তপুর, খুলনা, বাগেরহাট ও সাতক্ষীরা জেলা থেকে ৪৪ জন প্রশিক্ষণার্থীকে নির্বাচন করা হয়। গত ৫ জুন থেকে পিটিআই গোপালগঞ্জে এ প্রশিক্ষণ শুরু ও ১৫ সেপ্টেম্বর শেষ হয়।

ভুক্তভোগী প্রশিক্ষণার্থীরা জানান, খাবার রিফ্রেশমেন্টের বাবদ প্রতিদিন জনপ্রতি ৬৬০ টাকা বরাদ্দ থাকা সত্ত্বেও প্রশিক্ষণ শুরুর দিন থেকে তাদের অতি নিম্নমানের ও অস্বাস্থ্যকর খাবার পরিবেশন করে পিটিআই কর্তৃপক্ষ। এছাড়া সংস্থাপন বিলের নামে প্রত্যেক প্রশিক্ষণার্থীর কাছ থেকে টাকা দাবি করা হয়। 

ভুক্তভোগীরা আরও জানান, এছাড়া গত ৫ জুন থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত ২৬ দিনের মধ্যে শুক্র ও শনিবার খাবার ভাতা দেয়া হলেও আকস্মিকভাবে ১ জুলাই থেকে শুক্র ও শনিবারের টাকা না দেয়ার কথা জানানো হয়। ঈদের ছুটির পর করোনা রিপোর্টের নেগেটিভ সার্টিফিকেট থাকার পরও নারী প্রশিক্ষণার্থীসহ অন্যান্য প্রশিক্ষণার্থীদের পিটিআইতে প্রবেশ করতে না দিয়ে হোটেলে থাকতে বাধ্য করে।

এসব সমস্যা সমাধানে প্রশিক্ষণার্থীরা পিটিআই’র সুপারিনটেনডেন্টের কাছে অভিযোগ জানালে  তিনি প্রশিক্ষণার্থীদের উপর ক্ষিপ্ত হন এবং প্রশিক্ষণার্থীদের বিভিন্ন রকম অসহযোগিতা করা হয়। পানির লাইন বন্ধ করে দেওয়া হয় ও ওয়াশরুম থেকে হ্যান্ড ওয়াশ, সাবান ইত্যাদি সরিয়ে ফেলা হয়।

এসব ছাড়াও প্রশিক্ষার্থীদের সম্মানী ভাতা ও ট্রান্সপোর্টেশন থেকেও বিভিন্ন অযুহাতে টাকা কর্তন করে নিচ্ছেন বলে অভিযোগে তারা জানান। এর প্রতিবাদ করায় ৫ মুক্তিযোদ্ধার সন্তানসহ প্রশিক্ষণার্থীদের সনদ আটকে দেয়ার হুমকি দেন পিটিআই সুপার কৃষ্ণা রানী বসু।

গোপালগঞ্জের পিটিআই সুপারিনটেনডেন্ট কৃষ্ণা রানী বসু বলেন, তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগসমূহ অসত্য। কতিপয় প্রশিক্ষণার্থী বানোয়াট ও উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে এসব বিভ্রান্তি সৃষ্টি করছে।

প্রসঙ্গত, এর আগেও পিটিআই সুপারিনটেনডেন্টের বিরুদ্ধে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় ব্যাচের টিএমটিই প্রশিক্ষণার্থীরা একই ধরনের অভিযোগ করেন। 

মাদরাসার এমপিও শিটে পদবি সংশোধন না হলে ডিজির প্রতিনিধি নয় - dainik shiksha মাদরাসার এমপিও শিটে পদবি সংশোধন না হলে ডিজির প্রতিনিধি নয় ইডেন ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ১০ - dainik shiksha ইডেন ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ১০ সুন্দরীদের বাছাই করে কু-প্রস্তাব, ইডেন ছাত্রলীগ নেত্রীর অভিযোগ - dainik shiksha সুন্দরীদের বাছাই করে কু-প্রস্তাব, ইডেন ছাত্রলীগ নেত্রীর অভিযোগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছড়াচ্ছে ‘চোখ ওঠা’ - dainik shiksha শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছড়াচ্ছে ‘চোখ ওঠা’ মনিপুর স্কুলে অবৈধ অধ্যক্ষ ফরহাদ - dainik shiksha মনিপুর স্কুলে অবৈধ অধ্যক্ষ ফরহাদ ফি বাড়লো সরকারি চাকরির পরীক্ষার - dainik shiksha ফি বাড়লো সরকারি চাকরির পরীক্ষার প্রশ্নফাঁস : ৫ শিক্ষক ও পিয়ন বরখাস্ত - dainik shiksha প্রশ্নফাঁস : ৫ শিক্ষক ও পিয়ন বরখাস্ত please click here to view dainikshiksha website