পোকায় খাচ্ছে বিনামূল্যের পাঠ্যবই - স্কুল - দৈনিকশিক্ষা

পোকায় খাচ্ছে বিনামূল্যের পাঠ্যবই

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি |

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে উইপোকায় খাচ্ছে সরকারের দেওয়া বিনা মূল্যের বই। বছরের আট মাস অতিক্রান্ত হলেও বিতরণ না হওয়ায় বইগুলো উইপোকার খাদ্যে পরিণত হয়েছে।

গফরগাঁওয়ে মোট শিক্ষার্থীর চেয়ে ৪১ হাজার ৪৬১ সেট অতিরিক্ত বই বিদ্যালয়গুলোতে পাঠানো হয়। এতে সরকারের কোটি কোটি টাকা অপচয় হলেও সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের কোনো মাথাব্যথা নেই।

উপজেলার লংগাইর সরকারি বালিকা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, অফিসকক্ষে প্লাস্টিকের বস্তায় বিনা মূল্যের অসংখ্য বই পড়ে আছে। দীর্ঘদিন বস্তাবন্দি থাকায় বইগুলো উইপোকার খাদ্যে পরিণত হয়েছে। এত বই পড়ে থাকার কারণ জানতে চাইলে প্রধান শিক্ষক রায়হানা নাহার বলেন, বিতরণের পর অতিরিক্ত বই বস্তায় রাখা হয়েছে। চাহিদা অনুযায়ী বই উত্তোলনের পর অতিরিক্ত হওয়ার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, অনেক শিক্ষার্থী স্কুলে ভর্তি না হওয়ায় বই অতিরিক্ত হয়েছে।

লংগাইর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অফিসকক্ষে অতিরিক্ত বই পড়ে থাকতে দেখে কারণ জানতে চাইলে প্রধান শিক্ষক মোশারফ হোসেন বলেন, জরিপকৃত শিক্ষার্থীর চেয়ে কম শিক্ষার্থী ভর্তি হওয়ায় তাদের অবিতরণকৃত বইগুলো পড়ে রয়েছে।

উপজেলার লংগাইর, পাইথল, নিগুয়ারী, টাঙ্গাব এবং চরআলগী ইউনিয়নের প্রায় অর্ধশত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে একই চিত্র পাওয়া যায়।

জানা যায়, ডিসেম্বর মাসের শেষ ১০ দিন প্রত্যেক বিদ্যালয়ের ক্যাচমেন্ট এরিয়ায় ঘরে ঘরে উপস্থিত হয়ে শিক্ষকরা জরিপের মাধ্যমে ওই এলাকার বিভিন্ন শ্রেণির শিক্ষার্থীর নাম লিখে চাহিদাপত্র তৈরি করে উপজেলা শিক্ষা অফিসে জমা দেন। পরে চাহিদাপত্র অনুযায়ী বই সংগ্রহ করে বছরের প্রথম দিন বই বিতরণ উৎসব করা হয়।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, চলতি শিক্ষাবর্ষে গফরগাঁওয়ে প্রাক-প্রাথমিক থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত মোট শিক্ষার্থী রয়েছে ৪৩ হাজার ৮৩৯ জন। এরাই উপজেলার বিভিন্ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কিন্ডারগার্টেন স্কুলে পড়ালেখা করে। কিন্তু শিক্ষা অফিস চলতি শিক্ষাবর্ষে ৮৫ হাজার ৩০০ সেট বই বিতরণ করে। এতে মোট শিক্ষার্থীর চেয়ে ৪১ হাজার ৪৬১ সেট অতিরিক্ত বই বিদ্যালয়গুলোতে পাঠানো হয়। মোট শিক্ষার্থীর চেয়ে অতিরিক্ত চাহিদা দেখিয়ে সংগ্রহ করা বই উপজেলার বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অফিসকক্ষে পড়ে রয়েছে। অতিরিক্ত চাহিদাপত্র দিয়ে সংগ্রহ করা এসব  বই কেজি দরে বিক্রির অভিযোগ রয়েছে।

এক শিক্ষার্থীর অভিভাবক সাজেদুল আলম বলেন, ‘ভালো পড়ালেখার জন্য কেজি স্কুলে বাচ্চাদের পড়াই আর উপবৃত্তির জন্য সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভর্তি করি। ’

শিক্ষার্থী জরিপ সম্পর্কে জানতে চাইলে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) সাইফুল মালিক বলেন, শিক্ষকদের প্রেরিত তালিকা অনুযায়ী শিক্ষা অফিস থেকে বই সংগ্রহ করে বিতরণ করা হয়।

বিভিন্ন বিদ্যালয়ে অতিরিক্ত বই পড়ে থাকা সম্পর্কে তিনি বলেন, বছর শেষে এগুলো ফেরত এনে সরকারি টেন্ডারের মাধ্যমে বিক্রি করা হয়।

শেহজাদ আমার ও বুবলীর সন্তান : শাকিব খান - dainik shiksha শেহজাদ আমার ও বুবলীর সন্তান : শাকিব খান ৪০তম বিসিএস : নন-ক্যাডার নিয়োগে নতুন নিয়ম আসছে - dainik shiksha ৪০তম বিসিএস : নন-ক্যাডার নিয়োগে নতুন নিয়ম আসছে ফাঁস ঠেকাতে প্রশ্ন ব্যবস্থাপনা বদলাচ্ছে - dainik shiksha ফাঁস ঠেকাতে প্রশ্ন ব্যবস্থাপনা বদলাচ্ছে মাদরাসা শিক্ষকদের সেপ্টেম্বর মাসের এমপিওর চেক ছাড় - dainik shiksha মাদরাসা শিক্ষকদের সেপ্টেম্বর মাসের এমপিওর চেক ছাড় অনুমোদন ছাড়া কর্মরত ষাটোর্ধ্ব প্রধান শিক্ষকদের দায়িত্ব ছাড়ার নির্দেশ - dainik shiksha অনুমোদন ছাড়া কর্মরত ষাটোর্ধ্ব প্রধান শিক্ষকদের দায়িত্ব ছাড়ার নির্দেশ সভাপতি হতে সন্তানকে দুই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি - dainik shiksha সভাপতি হতে সন্তানকে দুই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি একইদিনে এসএসসি ও এমএড পরীক্ষা : শিক্ষকরা বিপাকে - dainik shiksha একইদিনে এসএসসি ও এমএড পরীক্ষা : শিক্ষকরা বিপাকে স্কুল-কলেজ শিক্ষকদের সেপ্টেম্বরের এমপিওর চেক ছাড় - dainik shiksha স্কুল-কলেজ শিক্ষকদের সেপ্টেম্বরের এমপিওর চেক ছাড় please click here to view dainikshiksha website