মন্তব্য লিখতে লগইন অথবা রেজিস্টার করুন

মন্তব্যের তালিকা

Tabiatkowser, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০
অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হয় নাই শুধু কওমীদের খুলে দেওয়া হয়েছে। সরকারের পক্ষ থেকে শর্ত দেওয়া হয়েছিল যে, তারা স্বাস্থ্যবিধি মান্য করে প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করবেন। আসলে কি তা হচ্ছে আকস্মিকভাবে যদি এসব মাদ্রাসায় গিয়ে পর্যবেক্ষণ করা হয়, তাহলে দেখা যাবে শিক্ষার্থীদের মধ্যে এবং শিক্ষকদের মধ্যে কোন স্বাস্থ্যবিধি নিয়মকানুন মনে হচ্ছে না। বরং ঠাসাঠাসি করে শিক্ষার্থীদেরকে বসানো হয়েছে। সুতরাং স্বাস্থ্য বিধি মানার জন্য এসব কওমি মাদ্রাসা ক্ষেত্রে কঠোর আইন বাস্তবায়ন করা হোক এবং প্রয়োজনে তা মনিটরিং করা হোক।
Tabiatkowser, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০
চট্টগ্রামের হাটহাজারীর আল-জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম মাদরাসায় স্নাতকোত্তর পরীক্ষা শুরু হয়। আর নির্দেশনা অমান্য করার পর মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) মাদরাসাটিকে পরীক্ষা নেয়ার অনুমতি দেয়া হয়েছে। একই সাথে মাদরাসাটি অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে জারি করা আদেশটি স্থগিত করা হয়েছে। তাহলে এতে বুঝা যায় সরকার এসব কওমীদের কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছে। এর দ্বারা আরও প্রতীয়মান হয় যে মূলত দেশের তারাই (হেফাজতরাই) জঙ্গি।