মন্তব্য লিখতে লগইন অথবা রেজিস্টার করুন

মন্তব্যের তালিকা

Mohammed Mozammel Hoque, ১১ মে, ২০২১
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকা কালে দায়িত্বটা শিক্ষকদের দিলে শিকার্থীরা বেশি উপকৃত হবে।
Faruk Rahman, ১১ মে, ২০২১
ইউনিয়ন পরিষদে গেলে বলে অনলাইন সার্ভারে কাজ হচ্ছে না। এমতাবস্থায় জন্ম সনদ ডিজিটাল কিভাবে করবে? শুধু নির্দেশ দিলেই হবে না। সার্বিক অবস্থা বিবেচনা করতে হবে।
Tabiatkowser, ১০ মে, ২০২১
প্রত্যেক শিক্ষার্থীদের অনলাইন জন্ম নিবন্ধন সনদ করার ক্ষেত্রে সহজ পন্থা অবলম্বন করার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি।
jalaluddin, ১০ মে, ২০২১
এটি একটি ভাল উদ্যেগ। তবে সমস্যা হচ্ছে, আধুনিকতার অর্থই হচ্ছে সহজ পদ্ধতিতে, কম খরচেও ঘরে বসে সুবিধা ভোগ করা। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে আমাদের দেশে ডিজিটাইলেজেশনের নামে যখনই নতুন কিছু উদ্ভব হয়, তখনই ফায়দা লুটে সরকারী আমলারা। প্রায়শয়ই, ঘুষ ছাড়া টেবিল ছাড়েনা। অনুরুপভাবে জন্মনিবন্ধনের ক্ষেত্রে পরিষদের সচিবরা গ্রাহকদের বাধ্য ও হেনস্হা করে রিসিভবিহীন ভাবে ৩০০-৩০০০ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে এক-একটা জন্ম সনদ প্রদান করার মাধ্যমে।তাই, সরকারের কাছে আহবান জানাচ্ছি জন্ম নিবন্ধনের ক্ষেত্রে এমন কোনো পথ-পদ্ধতি বের করুন যাতে সরকারও লাভবান হয়, পাশাপাশি জনগনও হেনস্হা থেকে মুক্তি পায়।
jalaluddin, ১০ মে, ২০২১
এটি একটি ভাল উদ্যেগ। তবে সমস্যা হচ্ছে, আধুনিকতার অর্থই হচ্ছে সহজ পদ্ধতিতে, কম খরচেও ঘরে বসে সুবিধা ভোগ করা। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে আমাদের দেশে ডিজিটাইলেজেশনের নামে যখনই নতুন কিছু উদ্ভব হয়, তখনই ফায়দা লুটে সরকারী আমলারা। প্রায়শয়ই, ঘুষ ছাড়া টেবিল ছাড়েনা। অনুরুপভাবে জন্মনিবন্ধনের ক্ষেত্রে পরিষদের সচিবরা গ্রাহকদের বাধ্য ও হেনস্হা করে রিসিভবিহীন ভাবে ৩০০-৩০০০ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে এক-একটা জন্ম সনদ প্রদান করার মাধ্যমে।তাই, সরকারের কাছে আহবান জানাচ্ছি জন্ম নিবন্ধনের ক্ষেত্রে এমন কোনো পথ-পদ্ধতি বের করুন যাতে সরকারও লাভবান হয়, পাশাপাশি জনগনও হেনস্হা থেকে মুক্তি পায়।