পদোন্নতি-টাইমস্কেল চান সরকারি কারিগরি শিক্ষকরা - কলেজ - দৈনিকশিক্ষা

পদোন্নতি-টাইমস্কেল চান সরকারি কারিগরি শিক্ষকরা

নিজস্ব প্রতিবেদক |

পদোন্নতি-টাইমস্কেল-সিলেকশন গ্রেড দেয়ার দাবি জানিয়েছেন দেশের ৬৪টি সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজের শিক্ষকরা। তারা বলছেন, শিক্ষকরা ২২-২৩ বছর একই পদে কর্মরত থাকার পরও কোন পদোন্নতি, সিলেকশন গ্রেড বা টাইমস্কেল পাননি। তাই সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজের শিক্ষকরা সরকারের কাছে পদোন্নতি, সিলেকশন গ্রেড বা টাইমস্কেল দেয়ার দাবি জানিয়েছেন। দাবি আদায়ে আগামী ৪ সেপ্টেম্বর কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর এর সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি ঘোষণা করেছেন শিক্ষকরা। 

শুক্রবার রাজধানীতে সম্মেলন করে এ কর্মসূচি ঘোষণা করে বাংলাদেশ টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ শিক্ষক সমিতি।  এমন তথ্য দিয়ে দৈনিক শিক্ষাডটকম-এ সংবাদ বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়েছেন তারা।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সমিতির সাধারণ সম্পাদক আ স ম আহছান ‌উল্লাহ্ ৬৪টি টিএসসিতে ২০০৪ খ্রিষ্টাব্দের পর থেকে কোন শিক্ষক-কর্মচারী নিয়োগ না দেয়ায় সরকারের লক্ষ্য অর্জনের জন্য টিএসসিতে কর্মরত শিক্ষকদের অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।

তিনি আলো বলেন, ২০১৭ থেকে ২০২০ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত বিনা পারিশ্রমিকে ৪ বছর মেয়াদি ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সের ১ম ও ২য় শিফটের কার্যক্রম শিক্ষকরা পরিচালনা করেছেন। ২০২১ খ্রিষ্টাব্দে ৬৪টি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজের অনুকুলে ২ হাজার ৬৯৫ টি পদ এবং ১০০টি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজের জন্য ৬ হাজার ৪০০টি নতুন পদ রাজস্বখাতে সৃজন করা হলেও আমলাতান্ত্রিক জটিলতার কারণে এখন পর্যন্ত টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজে কোনও শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হয়নি।

তিনি আরও বলেন, নিয়োগ বিধি ২০২০ এবং সরকারি চাকরি আইন এর বিধি ৮(১) পদোন্নতির সব শর্ত পূর্ণ থাকার পরেও দেশ-বিদেশে প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত দক্ষ শিক্ষকদেরকে পদোন্নতি দেয়া হচ্ছে না। টিএসসিতে কর্মরত শিক্ষকরা দীর্ঘ ২২-২৩ বছর চাকরি জীবন অতিবাহিত করায় তাদের মূলবেতন পদোন্নতির পর প্রাপ্য বেতন অপেক্ষা বেশি। এতে সকল শিক্ষকদের পদোন্নতি দেয়া হলে সরকারের আর্থিক ব্যয় বৃদ্ধি পাবে না। এতে টিএসসিতে কর্মরত শিক্ষকদের সামাজিক মর্যাদা বৃদ্ধির পাশাপাশি কারিগরি শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনায় তাদের কর্মস্পৃহা বৃদ্ধি পাবে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কর্মীদের কর্মস্পৃহা বাড়াতে সরকার কর্মচারীদের বিভিন্ন প্রণোদনা দিয়ে থাকেন, যেমন- সিলেকশন গ্রেড, টাইমস্কেল, ওভারটাইম, লভ্যাংশ, বোনাস ইত্যাদি। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের বিষয়, টিএসসিতে কর্মরত শিক্ষকরা ২২-২৩ বছর একই পদে কর্মরত থাকার পরও কোন সিলেকশন গ্রেড ও টাইমস্কেল পাননি। এতে করে দেশের কারিগরি শিক্ষা প্রদানকারী শিক্ষকরা হতাশার মধ্যে রয়েছেন এবং আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। টিএসসিতে কর্মরত শিক্ষকদের পদোন্নতি, টাইমস্কেল ও সিলেকশন গ্রেডের দাবি বার বার কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের কাছে জানানো সত্ত্বেও তা বাস্তবায়নের কোন দৃশ্যমান অগ্রগতি নেই।

সমিতির নেতারা সংবাদ সম্মেলন থেকে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করেন। কর্মসূচির মধ্যে ১৫ আগস্ট টিএসসিতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন, ২২ আগস্ট টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ শাখা কমিটি কর্তৃক অধ্যক্ষের মাধ্যমে কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের সচিবকে স্মারকলিপি, ২৩-৩১ আগস্ট দেশের প্রতিটি বিভাগে বিভাগীয় প্রেস ক্লাব সম্মুখে প্রতিবাদ সমাবেশ। একই সঙ্গে আগামী ৪ সেপ্টেম্বর কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি ঘোষণা করেন তারা।

নেতারা বলেন, এরপরও দাবি বাস্তবায়নে দৃশ্যমান অগ্রগতি না হলে পরবর্তীতে কঠোর আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন সংগঠনের সভাপতি সিদ্দিক আহমেদ।

শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেলের সাথেই থাকুন। ভিডিওগুলো মিস করতে না চাইলে এখনই দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন এবং বেল বাটন ক্লিক করুন। বেল বাটন ক্লিক করার ফলে আপনার স্মার্ট ফোন বা কম্পিউটারে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভিডিওগুলোর নোটিফিকেশন পৌঁছে যাবে।

দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল  SUBSCRIBE  করতে ক্লিক করুন।

ডিজেলের দাম ১১৪ টাকা, অকটেন ১৩৫ - dainik shiksha ডিজেলের দাম ১১৪ টাকা, অকটেন ১৩৫ স্কুলে কর্মচারী নিয়োগ : প্রার্থীদের খাতা ছিঁড়ে ফেললেন ম্যানেজিং কমিটির সদস্য - dainik shiksha স্কুলে কর্মচারী নিয়োগ : প্রার্থীদের খাতা ছিঁড়ে ফেললেন ম্যানেজিং কমিটির সদস্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যেসব নির্দেশ ছয় বছরেও বাস্তবায়ন করেনি যশোর বোর্ড - dainik shiksha শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যেসব নির্দেশ ছয় বছরেও বাস্তবায়ন করেনি যশোর বোর্ড শিক্ষকের বেত্রাঘাতে ছাত্রের মৃত্যু! - dainik shiksha শিক্ষকের বেত্রাঘাতে ছাত্রের মৃত্যু! পদোন্নতি-টাইমস্কেল চান সরকারি কারিগরি শিক্ষকরা - dainik shiksha পদোন্নতি-টাইমস্কেল চান সরকারি কারিগরি শিক্ষকরা আমলা দিয়ে শিক্ষকদের আর কোণঠাসা করার প্রয়োজন নেই - dainik shiksha আমলা দিয়ে শিক্ষকদের আর কোণঠাসা করার প্রয়োজন নেই প্রাথমিক-জুনিয়র বৃত্তিবঞ্চিত দেড় লাখ শিক্ষার্থী - dainik shiksha প্রাথমিক-জুনিয়র বৃত্তিবঞ্চিত দেড় লাখ শিক্ষার্থী স্ত্রীর রাগ ভাঙাতে ছুটি চাইলেন শিক্ষা কর্মকর্তা! - dainik shiksha স্ত্রীর রাগ ভাঙাতে ছুটি চাইলেন শিক্ষা কর্মকর্তা! please click here to view dainikshiksha website