please click here to view dainikshiksha website

এমসিকিউ তুলে দেয়া উচিত: মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা সচিব

নিজস্ব প্রতিবেদক | সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৭ - ২:১০ অপরাহ্ণ
dainikshiksha print

পাবলিক পরীক্ষায় বহুনির্বাচনী (এমসিকিউ) প্রশ্ন শিক্ষার্থীদের ধ্বংস করছে মন্তব্য করে তা সম্পূর্ণভাবে উঠিয়ে দেওয়ার পক্ষে মত দিয়েছেন মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা সচিব মোঃ সোহরাব হোসাইন। এমসিকিউ অংশ উঠিয়ে দেওয়ার বিষয়ে শিক্ষাবিদ ও সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলোচনায় বসা হবে বলেও জানান তিনি।

মঙ্গলবার (১২ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে মাধ্যমিক স্তরের পরিমার্জিত ছয়টি বই হস্তান্তর অনুষ্ঠানে নিজের মতামত ব্যক্ত করেন সোহরাব হোসাইন।

বর্তমানে এসএসসি ও এইচএসসিতে শুরুতে এমসিকিউ অংশের পরীক্ষা নেওয়া হয়ে থাকে। দুই পরীক্ষায় এমসিকিউ থেকে ১০ নম্বর কেটে সৃজনশীল অংশে যোগ করা হলেও এমসিকিউ অংশের উত্তর মেলানো নিয়ে অনেক দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে।

তিনি বলেন, এমসিকিউটা বোধহয় পরিপূর্ণভাবে উঠিয়ে দেওয়া উচিত, এটা আমার ব্যক্তিগত অভিমত। আমরা নিশ্চয় আগামীতে আপনাদের সঙ্গে বসব।

‘কেন বলছি, এমসিকিউ কিভাবে ধ্বংস করছে? বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান শিক্ষককে যে কোনো উপায়ে কনভিন্স করে ওই কক্ষের সব ছাত্রছাত্রী ৩০ মার্কস পেতে পারেন সেই ব্যবস্থা করে দিচ্ছেন। একজনকে বলে দিচ্ছেন তিনি আবার পাস করে দিচ্ছেন। এটা অর্থের বিনিময়ে হচ্ছে বলে আমাদের কাছে রিপোর্ট আসছে।’

এমসিকিউয়ে ভুল উত্তর দেওয়ার ঘটনাও ঘটছে বলে জানান শিক্ষাসচিব।

তিনি বলেন, আরেকটা ধ্বংস হচ্ছে যে ভুল আনসার দিচ্ছে। অনেকগুলো ঘটনা এমন ঘটেছে, সবগুলো সবজেক্টে যে আশির উপরে পেয়েছে কিন্তু একটা সাবজেক্টে গিয়ে দেখা গেছে মূল প্রশ্নে ঠিকমত পেয়েছে কিন্তু এমসিকিউতে গিয়ে সাত পেয়েছে, আট পেয়েছে। সেখানে ১০ পাওয়ার বাধ্যবাধকতা আছে, রাজউক কলেজে এ ঘটনা ঘটেছে। ১০জন ছাত্র ফেল করেছে, কারণ তারা এমসিকিউতে ৭-৮ পেয়েছে।

তবে তারা অন্য অভিযোগ করে বলেছে জানিয়ে শিক্ষাসচিব বলেন, সংশ্লিষ্ট শিক্ষক তাদের খাতা নিয়ে গেছে। নিশ্চয় কোনো কারণ ছিল নইলে খাতা নিয়ে গেল কেন? এরপরেও ঢাকা বোর্ডকে বিষয়টি তদন্ত করতে বলেছি যে তারা কি ৩০ নম্বরের উত্তর দিয়ে ৮ পেয়েছে নাকি ১০ নম্বরের উত্তর দিয়ে ৮ পেয়েছে। ধারণা করতে পারবো, খাতা নেওয়াটাই কারণ কি না? নাকি আসলেই কম পেয়েছে। তারা কম পাওয়ার মতো ছাত্র না।

শিক্ষাসচিব বলেন, প্রশ্ন ফাঁসের সূত্র পেলে আমরা সেটা ধরার চেষ্টা করি। কিন্তু অনেকেই সেই সূত্র দিতে চান না।এজন্য পরীক্ষার হলে প্রশ্ন ছাপানোর পরিকল্পনার কথাও বলেন শিক্ষাসচিব।

‘পরীক্ষার হলে তাৎক্ষণিকভাবে প্রশ্নপত্র ছাপিয়ে পরীক্ষা নেওয়া যায় কি না। এটা কায়কোবাদ স্যারকে (বুয়েট অধ্যাপক) সমন্বয় করে উনার সহযোগিতা নিতে হবে। আমরা চেষ্টা করেছি দেশের সেরা মানুষ যারা তাদের সহযোগিতা নেওয়ার জন্য’।

শিক্ষামন্ত্রী এবং শিক্ষাবিদদের সামনে শিক্ষাসচিব বলেন, আমাদের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ কাজ নিয়ে সমালোচনা হয়, আমরা জবাব দিতে পারি না। যেমন ধরুন, আমাদের প্রশ্নপত্র নিয়ে অনেক সমালোচনা হয়, কেউ কেউ এমনও লিখেছেন মন্ত্রী, সচিব, উচ্চপর্যায়ের কর্মকর্তারা টাকার বিনিময়ে প্রশ্ন আউট করে দিচ্ছেন। কিন্তু বোর্ডের চেয়ারম্যানেরও প্রশ্নপত্র দেখার কোনো সুযোগ নেই।

শিক্ষা আইন মন্ত্রিসভায় উপস্থাপনের জন্য প্রস্তুত হয়েছে বলেও জানান শিক্ষাসচিব।

তিনি বলেন, প্রায় ছয় বছর ধরে কাজ চলছে। শিক্ষা আইনের অভাবে আমরা অনেক কিছু করতে পারি না। সেটি বোধহয় এ সপ্তাহে মন্ত্রিসভায় তোলার জন্য মোটামুটি রেডি হয়ে গেছে।

‘খুব কঠিন কিছু বিষয় আছে সেখানে আপনাদের সাহায্য লাগবে, আপনাদের লেখালেখিতেও সাহায্য লাগবে। সেজন্য আমরা সব মহলের মতামত, সবার সমর্থন, সবকিছু নেওয়া চেষ্টা করেছি। এবং সেগুলো মন্ত্রিসভারও বিভিন্ন সদস্য অত্যন্ত গুরুত্বসহকারে দেখবেন, কারণ বিষয়টি সবাইকে স্পর্শ করবে’।

সংবাদটি শেয়ার করুন:


পাঠকের মন্তব্যঃ ১৪২টি

  1. Khasru says:

    সচিব স্যারের সাথে একমত।

  2. অচিন্ত্য মিস্ত্রী। সিনিয়র শিক্ষক, গাওখালী মা:বি:ও কলেজ, নাজিরপুর, পিরোজপুর।। says:

    Very Good.

  3. মোখলেছুর রহহমান says:

    এমসিকিউ উঠানো জরুরী।

  4. শরিফুল ইসলাম says:

    এম সি কিউ এর উত্তর পরীক্ষার হলে শোনাশুনির মাধ্যমে শিক্ষার্থী গণ লিখে থাকে। ফলে প্রকৃত মেধা যাচাই হয় না। সেজন্য এটা তুলে দেওয়াই সমীচীন।
    শরিফুল ইসলাম
    বিভাগীয় প্রধান,বাংলা
    পাংশা সরকারি কলেজ,রাজবাড়ী।

  5. মুহা.সাইফুল্লহ বিন জাকারিয়া.পিরোজপুর, মঠবাড়ীয়া. মুঠোফোন-01719-482639 says:

    শিক্ষার ক্ষেত্রে এত কিছু করা হয় ,কিন্তুু আইসিটি /কম্পিউটার শিক্ষকদের এমপিওর জন্য কেউ কোন কথা বলার সাহস পায়না জানিনা কি কারনে. আর এটাও জানিনা যে আমরা কি অপরাধ করেছি, দীর্ঘ চার /পাচ বছর যাবৎ বৈধভাবে আইসিটি /কম্পিউটার শিক্ষক পদে নিয়োগ প্রাপ্ত হয়েও আজ পর্যন্ত ভালো কোন খরব পাওয়া যাইনি.

  6. মুহা আনোয়ার হোসাইন খুটামারা জলঢাকা নীলফামারী says:

    লিখিত পরীক্ষা নয়া হোক

  7. জহুরুল ইসলাম says:

    সবই উ‌চিত। শুধু সৃষ্টপ‌দের শিক্ষক‌দের এম‌পিও দেওয়া উ‌চিত নয়।

  8. জহুরুল ইসলাম says:

    সবই উ‌চিত। শুধু সৃষ্টপ‌দের শিক্ষক‌দের এম‌পিও দেওয়া উ‌চিত নয় ।

  9. Md.Shaidur Rahman says:

    বদলির ব্যাবস্থা করুন।

  10. R.H.Riyad says:

    MCQ উঠিয়ে দেওয়া উচিত । পাশাপাশি সৃজনশীল প্রশ্নের নম্বর 10 থেকে বাড়িয়ে 15 করা অথবা প্রশ্ন পত্রের কাঠামোর পরিবর্তন আনা দরকার ।

  11. মুহাম্মদ শাহ আলম says:

    অবশ্যই এমসিকিউ উঠিয়ে দেওয়া উচিত।এটা কোন পরীক্ষার মধ্যেই পড়ে না।এম সি কিউ বিষয়ের আইডিয়াটাই ফালতু । বিষয়টি সচিব মহোদয়ের নজর কেড়েছে তাই সচিব মহোদয়কে ধন্যবাদ।

  12. Sheikh Shahed. Lecturer of math. Barahar School and college says:

    Right concept.

  13. ওবাইদুললাহ বাংগুরি দাখিল মাদরাসা মিজাপুর টাংঈাইল। says:

    এম.পি.ওভুত্ত শিক্ষকদের বদলির ব্যাবস্তা করুন।।

  14. সিকদার হুমায়ুন কবির,সহকারী প্রধান শিক্ষক,এ.ডি.এম.উচ্চ বিদ্যালয়,মির্জাপুর,টাংগাইল। says:

    আপনার সাথে একমত।এমসিকিউ তুলে দেয়া হোক।

  15. সিকদার হুমায়ুন কবির,সহকারী প্রধান শিক্ষক,এ.ডি.এম.উচ্চ বিদ্যালয়,মির্জাপুর,টাংগাইল। says:

    আপনার সাথে একমত।এমসিকিউ তুলে দেয়া হোক।

  16. robi khan says:

    MCQ পদ্ধতি উঠানো সময়ের দাবি। এবং সৃজনশীল প্রশ্ন পদ্ধতি নিয়েও ভাবা উচিৎ।
    যেখানে অধিকাংশ শিক্ষক মহোদয়গনেরই সৃজনশীল বুঝতে কষ্ট হচ্ছে সেখানে পরীক্ষার হলে এতো অল্প সময়ে শিক্ষার্থীদের সৃজন করা বহু কষ্টের বিষয়! আর
    আমরা যারা পড়াই প্রায় সবাই গাইড বই থেকেই প্রশ্ন করে থাকি !

  17. Biswajit ,Ray says:

    সচিব স্যারের সাথে একমত।

  18. সঠিক লোক says:

    কিন্তু ২/১ দিন পরপরই কেন পদ্ধতি পরিবর্তন করেন? শুরুতে মনে ছিলনা যে এধরনের সমস্যা হতে পারে?

  19. শুধু নামেই অধ্যাপক says:

    এমসিকিউ তুলে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রি ও অনার্সের মত পরীক্ষা পদ্ধতি চালু করা উচিত এবং শিক্ষকদের বোর্ড পরীক্ষার খাতা মূল্যায়নের সম্মানিও দ্বিগুণ করা উচিত

  20. অমিত কুমার মল্লিক says:

    MCQ না থাকাটাই ভাল এবং গণিতে সৃজনশীল তুলে দেওয়া উওম হবে।

  21. শফিউর রহমান, সহকারী শিক্ষক, হরিণ সিংহা অাদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়, গাইবান্ধা সদর। says:

    আমিও একমত
    এমসিকিও তুলে দেওয়াই উচিত!!!

  22. মোহা: এনামুল হক , সহকারী শিক্ষক , নোয়াখালী সপ্তগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয় ৷ সুনামগঞ্জ ৷ says:

    আপনার মন্তব্য : ১৩তম নিবন্ধনধারীদের দিকে একটু তাকান !! আর কত এভাবে বেকার থাকব ? বাবা মাকে হারিয়ে ভাইয়ের আশ্রয়ে আছি ! আর ভাল লাগছেনা এই জীবন !!!

  23. এম.সোলায়মান এম.এ says:

    সচিব স্যার উত্তম প্রস্তাব রেখেছেন তবে, আইসিটি স্যারদের বেতনের কথা এক বারের জন্যও কি প্রস্তাব করা যাবেনা? আমরা না খেয়ে ৫টি বছর ক্লাস নিচ্ছি এটা কি অমানবিক নয়

  24. শিবুব্রত মন্ডল says:

    মাননীয় সচিব মহোদয়কে ধন্যবাদ।

  25. মোস্তফা কামাল says:

    এমসিকিউ ও সৃজনশীল পদ্ধতি শিক্ষা ব্যবস্থাটাকে ধ্বংস করে দিয়েছে৷আমি একজন শিক্ষক,আমার ছাত্র জীবনের ও শিক্ষকতা জীবনের অভিজ্ঞতা থেকে বলছি,এই পদ্ধতি তুলে দিয়ে 2000 সালের দিকে চলে যাওয়া উচিত৷শিক্ষার্থীরা যাতে বোর্ড বই পড়ে প্রশ্নের উত্তর দেয়৷তবেই তাদের জ্ঞানের ঝুলি ভারী হবে৷

  26. মোফাজ্জল হোসেন says:

    শিক্ষা নিয়ে এত সুন্দর চিন্তা কিন্তু ict শিক্ষকের পেটে ভাত নেই সেই চিন্তা মাথায় আসেনা?

  27. মো: আবুল কাশেম সহকারী শিক্ষক লাকেশ্বর দাখিল মাদ্রাসা ছাতক সুনামগঞ্জ says:

    এমসিকিউ পদ্ধতি যত তাড়াতাড়ি সম্ভব উঠিয়ে দেয়া হউক।

  28. মো: আবুল কাশেম সহকারী শিক্ষক লাকেশ্বর দাখিল মাদ্রাসা ছাতক সুনামগঞ্জ says:

    তুলে দেয়া হবে সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত।

  29. আইনে নকলবাজ শিক্ষক ,ছাত্রের শাস্তির বিধান চাই । says:

    তারা তারি তুলে দিন । জাতির আর ক্ষতি করবেন না। টাকা নিয়ে শিক্ষক 30 নম্বর বলা দেয় ।

  30. ফারুক এ্যাকিউম্যান says:

    এমসিকিউ তুলে দিয়ে নৈর্ব্যক্তিক বা শূন্যস্থান দেওয়া যায়। অথবা সৃজনশীল প্রশ্নের মান বাড়িয়ে দেওয়া যায়। না হয় এতে অল্প সময়ে ১০ টা সৃজনশীল লেখা কষ্ট হয়ে যাবে।

  31. ফারুক এ্যাকিউম্যান, শিক্ষা ও গবেষণা ইন্সটিটিউট, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়। says:

    এমসিকিউ তুলে দিয়ে নৈর্ব্যক্তিক বা শূন্যস্থান দেওয়া যায়। অথবা সৃজনশীল প্রশ্নের মান বাড়িয়ে দেওয়া যায়। না হয় এতে অল্প সময়ে ১০ টা সৃজনশীল লেখা কষ্ট হয়ে যাবে।

  32. মো. হাফিজুর রহমান, প্র/ শি,বারইহাটি এ. এ. কে উচ্চ বিদ্যালয়, গফরগাঁও, ময়মনসিংহ। says:

    স্যারকে ধন্যবাদ।

  33. Mizan says:

    সরকারি স্কুল ও কলেজের মত এমপিওভুক্ত বেসরকারি শিক্ষকরা যদি নিজেদের বেতন নিজেরা করতে পারত তাহলে শিক্ষক হয়রানি অনেক কম হত। বেসরকারি স্কুল ও কলেজের শিক্ষকদের বদলির ব্যবস্থাটা করা একান্ত জরুরি। এক জায়গা থাকতে থাকতে এক নায়ক তন্ত্র ও একঘেয়েমি চলে আসে। আশা করি মাননীয় শিক্ষক শিক্ষা সচিব মহোদয় বিষয়টি বিবেচনা করবেন।

  34. অনুপ রায় says:

    সচিব স্যারের অনুধাবন সঠিক, MCQ বাদ দিলে, A+ কম পাবে, MCQ এর জন্যই এত A+
    কিন্তু মেধাহীন।
    MCQ এর ৩০ নম্বর যায়গায়, পুরাতন পদ্ধতির ৩ টি প্রশ্ন রাখলে(১০ নম্বর) শিক্ষার্থী বই মুখি হবে।

  35. Monir says:

    MCQ বাদ দেওয়া উচিত।

  36. Md.Abul Kalam Azad.Vhuarkandi Dakhil Madrasa,Faridpur. says:

    100% right dicision.

  37. Monir, Lecturer(ICT) Panchkandi Degree College, Monohardi, Narsingdi. says:

    MCQ বাদ দেওয়া উচিত। কারন exam হলে মুখে মুখে উত্তর ছড়িয়ে যায় নিমিষেই।

  38. নিয়ন স্যার says:

    মন্ত্রণালয়ে মাধ্যমিক স্তরের পরিমার্জিত ছয়টি বই কি কি হবে। কেউ কি জানান? জানালে উপকৃত হতাম।

  39. সিদ্দিকুর রহমান লেখক ও উপন্যাসিক দিরাই সুনামগঞ্জ says:

    সঠিক সিদ্ধান্ত, এর সাথে পরীক্ষার সময় সঠিক তদারকি করাও প্রয়োজন কেননা অনেক পরীক্ষা কেন্দ্রে ইংরেজি পরীক্ষার দিন গ্রামার অংশ সম্পূর্ণ বলে দেওয়া হয়।

  40. Harun Or Rashid says:

    এমসিকিউ তুলে দেওয়া হোক

  41. দুর্জয় বাড়ৈ,প্রভাষক(উৎপাদন ব্যবস্থাপনা ও বিপণন)শেখ রাসেল ডিগ্রী কলেজ, মাদারীপুর। says:

    উৎপাদন ব্যবস্থাপনা ও বিপণন বিষয়ে নিয়োগকৃত শিক্ষকদের দ্রুত MPO দিন। MCQ পদ্ধতি উঠিয়ে দিন।

  42. mostafa kamal says:

    Shikkhar man tolanite. MCQ tule dile student ra puro boi porbe na. amni sudu a+ ar pass ar jonno pore.dekha dekhi kore lekhe ata proshasonik durbolota. matha bathar jonno mathha kata arki!

  43. মণি রহমান says:

    শুধু এমসিকিউ কেন স্যার ? তথাকথিত সৃজনশীলের নামে ক.খ.গ.ঘ. জ্ঞান-অনুধাবন-প্রয়োগ-উচ্চতর দক্ষতা- এগুলোর জটিল উত্তর কী শিক্ষার্থীদের স্কুল-কলেজ তথা শিক্ষা বিমুখ করে তুলছে না ? সরল, সরাসরি ও আসল জ্ঞানটুকু লাভের বদলে শিক্ষার্থীরা আসলে কী এমন উচ্চতর দক্ষতা অর্জন করছে তা এখনও ভেবে দেখার সময় কী হয়নি স্যার ?

  44. রতন কুমার বর্মন says:

    দুর্নী‌তি আরো বার‌বে কিন্তু কম‌বেনা। কারন MCQ পত্র মে‌সি‌নের মাধ্য‌মে কাটা হয়। আর লি‌খিত পরীক্ষা মা‌নে দুর্নী‌তির ছড়াছ‌ড়ি

  45. Md.Amir Hussain says:

    সকল পরীক্ষায় এম সি কিউ উঠানো উচিত।

  46. মোঃ সাজ্জাদুর রহমান,লক্ষীপুর স্কুল ও কলেজ says:

    সৃজনশীল পদ্ধতি অবশ্যই ভাল । তবে প্রশ্নপত্র প্রনয়ণে আরও সৃষ্টিশীল থাকতে হবে।MCQ তুলে দেওয়ায় উচিৎ।

  47. Md. Abdul Baten Faruki, HT, Syed Habibul Huq High School, Kishoreganj Sadar. says:

    আপনার মন্তব্য এমসিকিউ পদ্ধতি মেধা ও জ্ঞান যাচাইয়ের অধিকতর ভালো পদ্ধতি। তবে আমাদের দেশে হয়তো ব্যর্থ কারণ আমরা নীতিতে দুর্বল। তাই বলে মাথা ব্যথার জন্য মাথা কাটা সমীচীন নয়। কিন্তু তার চেয়েও ভয়াবহ অবস্থা সৃজনশীল পদ্ধতি নিয়ে অথচ এটিও মেধা যাচাইয়ের স্বীকৃত পদ্ধতি। আসলে আমাদেরকে সমাধান খুঁজতে হবে বাস্তবায়নের।

  48. মোঃ সাইফুল আলম says:

    প্রশ্ন পদ্ধতি ই পরিবর্তন করা দরকার, m c q তুলে দেওয়ার সাথে এক মত।

  49. zead hossain says:

    এমসিকিউ উঠিয়ে দিন তার পরিবর্তে ছয়টি সৃজন শীল দিন যার নম্বর হবে 6×15=90।বাকি10নম্বরের জন্য5টি সাধারন প্রশ্ন হতে পারে(5×2)।

  50. humayun kabir says:

    প্রস্তাবটি ১০০% যৌক্তিক।

  51. Mahabubur Rahaman says:

    আপনার মন্তব্য

  52. Mahabubur Rahaman says:

    আপনার মন্তব্য
    এমপিও শিক্ষকদের বদলির ব্যবস্থা করুন।
    প্রধান ও সহকারি প্রধান শিক্ষক নিয়োগ যত
    তাড়াতাড়ি বন্ধ করবেন শিক্ষার মান তত
    তাড়াতাড়ি ভালো হবে এবং জাতির ও মঙ্গল
    হবে।

  53. Mahabubur Rahaman says:

    আপনার মন্তব্য
    এমপিও শিক্ষকদের বদলির ব্যবস্থা করুন।
    প্রধান ও সহকারি প্রধান শিক্ষক নিয়োগ যত
    তাড়াতাড়ি বন্ধ করবেন শিক্ষার মান তত
    তাড়াতাড়ি ভালো হবে এবং জাতির ও মঙ্গল
    হবে।………

  54. মো: সাইকুল ইসলাম , সহকারী শিক্ষক, আল-এমদাদ উচ্চ বিদ্যালয়, চন্দরপুর ,গোলাপগঞ্জ, সিলেট । says:

    প্রত্যেক শিক্ষকের দৃষ্টিভঙ্গি বদলানো প্রয়োজন ।

  55. মোঃ দেলোয়ার হোসেন মিজি says:

    দীর্ঘদিন পরে হলেও বর্তমান শিক্ষাসচিব মহোদয় বহুনির্বাচনি প্রশ্ন তুলে দেওয়ার গুরুত্ব উপলব্ধি করতে পেরেছেন, সেজন্য তাঁকে ধন্যবাদ। যে বিদ্যা একজন শিক্ষার্থীকে চুরি শেখায়, সে বিদ্যা কারো উপকারে আসে না। বহুনির্বাচনি প্রশ্নের উত্তরের সময় শিক্ষার্থীরা দেখাদেখি এবং বলাবলিকে অপরাধ মনে করে না। এমনকি পরীক্ষা হল পর্যবেক্ষকগণও শিক্ষার্থীকে উত্তর বলে দিতে সহযোগিতা করাকে অপরাধ মনে করে না। আমার মতে বহুনির্বাচনি প্রশ্নের সাথে সৃজনশীল প্রশ্ন পদ্ধতিও বাতিল করা উচিত। কারণ সৃজনশীল প্রশ্ন পদ্ধতিতে সরাসরি কোন প্রশ্ন পরীক্ষায় আসে না বলে অধিকাংশ শিক্ষার্থী ঠিকমত পড়ালেখা করে না। অন্যদিকে শিক্ষকরা নিজে নিজে সৃজনশীল প্রশ্ন তৈরি না করে গাইয বই কিংবা নোট বই থেকে প্রশ্ন করেন। কারণ সৃজনশীল প্রশ্ন তৈরি করতে যে সময়ের প্রয়োজন কিংবা যে দক্ষতার প্রয়োজন শিক্ষক সে পরিমাণ সময় ব্যয় করেন না কিংবা নিজের দক্ষতা বাড়াতে চেষ্টা করেন না। সৃজনশীল পদ্ধতি বহাল থাকলে নোট বই ও গাইড বই তুলে দিতে হবে এবং পরীক্ষার উত্তরপত্র যথাযথভাবে মূল্যায়ন করতে হবে। পরীক্ষার হলে কোন শিক্ষার্থীকে দেখাদেখি করা কিংবা অন্যকে উত্তর বলে দেওয়ার সুযোগ রহিত করতে হবে। তাহলে শিক্ষার্থীরা পড়ামুখী হবে।

  56. শেখ আব্দুস সবুর,পল্লীশ্রী মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ডুমুরিয়া, খুলনা। says:

    MCQ তুলে দেয়া উচিৎ, কারণ এ পদ্ধতিতে শিক্ষার্থীরা দেখাদেখি করে এবং অনেক শিক্ষক সহায়তা করে। সচিব মহোদয়কে ধন্যবাদ, বিষয়টি বুঝতে পারার জন্য।

    • এস এম জিল্লুর রহমান সহকারি শিক্ষক ( বি এস সি- গণিত), ঝিকরগাছা বি এম হাইস্কুল , ঝিকরগাছা, যশোর। says:

      সচিব মহোদয়কে অসংখ্য ধন্যবাদ। কারণ পরীক্ষা কেন্দ্র এখন অলিতে গলিতে, নিয়ন্ত্রন করার সাধ্য নেই কোনো প্রশাসনের। পরীক্ষা কক্ষে পরিদর্শক ব্যাচ লাগাতে লজ্জা করে । কারন বিবেক বর্জিত হয়ে যায়। মেধা শূন্য হওয়ার আগে সতর্ক হওয়া ভাল। যদি যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়া যায়। আগাছা হলে তার পরিস্কারের ব্যবস্থা না করে যাতে না হয় তার ব্যবস্থা ভাল নয় কি? তাই এম সি কিউ তুলে দিলে মেধা বাড়বে বৈই কমবে না্

  57. Nazir Ahmed, Ashulia College. Dhaka. says:

    Right secession .

  58. MOKABBAR HOSSAIN, Assistant Teacher,CHAPADAHA B L HIGH SCHOOL says:

    এমসিকিউ তুলে দেয়া হউক।কারন শিক্ষার্থীরা না জানিয়া আনদাজে উত্তর দিয়ে থাকে।

  59. মো: হান্নান সরদার. সহকারী শিক্খক(গণিত), মস্তফাপুর উচ্চ বিদ্যালয়,মাদারীপুর। says:

    এম সি কিউ বাতিল করা দরকার

  60. Md.shahidul islam says:

    আপনার মন্তব্য সবি করেন এমপিওদের জন্য বদলি ব্যবস্হা করেন।

  61. nazmul hasnat sarker says:

    আমি MCQ উঠানোর বিষয়ে একমত।

  62. ফারহানা,ইংরেজী প্রভাষক says:

    এমসিকিউ তুলে দিয়ে text থেকে বেশি বেশি ছোট প্রশ্ন করলে ছাত্ররা text বই পড়ায় মনোযোগী হবে।

  63. S M Anisul Haque says:

    MCQ দরকার নেই স্যার ঠিক বলছেন

  64. মোঃ সাদিকুর রহমান, সহকারী শিক্ষক, সম্মিলনী মাধ্যমিক বিদ্যালয়, চালিতাতলা, নড়াইল। says:

    বিষয়টি আমার কাছে ও বেশ ইতিবাচক মনে হয়। সেই সাথে যদি মধ্যম ও দূর্বল শ্রেণির শিক্ষর্থীদের কথা বিবেচনা করে গণিত বিষয়ে সৃজনশীল প্রশ্ন পদ্ধতি তুলে দিলে ভাল হয়।

  65. sultan mahmud says:

    শুধু এমসিকিউ কেন, সৃজনশীল প্রশ্ন নিয়েও ভাবা উচিৎ।

  66. Md.Abdul Motalab says:

    অবশ্যই এমসিকিউ উঠিয়ে দেওয়া উচিত।এটা কোন পরীক্ষার মধ্যেই পড়ে না।এম সি কিউ বিষয়ের আইডিয়াটাই ফালতু । বিষয়টি সচিব মহোদয়ের নজর কেড়েছে তাই সচিব মহোদয়কে ধন্যবাদ।

  67. ehsan uddin, Lecturer of physics, Paharchanda Fazil Madrasah. says:

    আমরা সবাই স্বার্থপর।

  68. Simul says:

    জানিনা আমাদের মন্তব্য আপনারা পড়েন কিনা ।তবে mcq শিখন পদ্ধতির অন্যতম গুরত্বপুর্ন অংশ, এটাকে সম্পূর্নরুপে বাদ দিয়ে শিক্ষা পূর্ণতা লাভ করতে পারবে না।mcq বই সম্পুর্ন রুপে অধ্যায়ন করতে সহায়তা করে ।তাই এই পদ্ধতি চালু রাখা উচিত বলে আমি মনে করি ।

  69. আব্দুর রউফ says:

    বিজ্ঞান শিক্ষকদের এমিও নাই অগ্রসর হবেন কি নিয়ে

  70. জাহাংগীর কবির. নাজিরপুর কলেজ, পিরোজপুর says:

    যেহেতু বিভিন্ন ভর্তি পরীক্ষা এবং চাকুরির ক্ষেত্রে নিয়োগ পরীক্ষা MCQ পদ্ধতিতে নেওয়া হয় পসেহেতু মূল পরীক্ষার অংশ থেকে MCQ বাদ দিয়ে আলাদা ভাবে 100 নম্বরের পরীক্ষার ব্যবস্হা করলে শিখা এবং পরবর্তি প্রস্তুতি হয়তো কিছুটা ভাল হতে পারে।

  71. Abdul kaiyum says:

    100% সঠিক সিদ্ধান্ত হবে।

  72. Abdul Quayum says:

    ১০০% সঠিক সিন্ধান্ত হবে ।

  73. সাহাবদ্দিন এম,এস-সি শ্রীবরদী এ পি পি আই। says:

    ok

  74. সুবোধ চন্দ্র দাস,সুকরিপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়,হবিগঞ্জ। says:

    এম,সি,কিউ যদি ওঠানো হয়,তাহলে সৃজনশীল প্রশ্ন থাকবে কি?

  75. moni says:

    বড় বড় কথা না আইসিটি শিক্ক দের এমপিও দেন।মাননীয় সচিব সাহেব মন্তী কে বলেন তার কথা রক্কা করতে।

  76. নূরমোহাম্মদ says:

    এম সি কিউ উঠিয়ে সময়ের দাবী।

  77. নূরমোহাম্মদ says:

    এম সি কিউ উঠিয়ে দেয়া সময়ের দাবী।

  78. আক্তারুজ্জামান says:

    ডিগ্রী পর্যায়ে আছে দশ নাম্বারের অতি সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন, চল্লিশ নাম্বারের ছোট প্রশ্ন, পঞ্চাশ নাম্বারের বড় প্রশ্নের সিস্টেম। এই সিস্টেমটা চালু করুন।

  79. মোঃইব্রাহীম খলিল, বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপটিন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর কলেজ says:

    এমসিকিউ অষ্টম শ্রেণীর পরথেকে তুলে দেওয়া উচিত।কারন পরীক্ষার হলে দুই জন শিক্ষকের পক্ষে সমস্ত কাজ করে ছাত্রদের তদারকি করা অসম্ভ।অনেক সমায় দেখা যায় ছাত্র/ছাত্রী সাইট টক করে প্রশ্ন সমাধান করে এতে মেধাবি ছাত্ররা পরীক্ষার হল সমস্যায় পরে।তবে শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের বৈঠকে অনেক কিছু পাশ হয় বহু বছর যাবত ননএমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিওর ব্যপারে কিছু শুনতে পাইনা। শিক্ষা মন্ত্রীর মুখে কুলুপ লেগে গেছে।যদি ননএমপিও প্রতিষ্ঠান এমপিও দিতে নাপারেন তাহলে পদত্যাগ করা উচিত।শুধু শিক্ষকদের অভিসাপ কেন নিতে যাবেন।ননএমপিও প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা রোহিঙ্গাদের চেয়ো খারাপ অবস্থায় আছে কারন রহিঙ্গাদের ত্রানের ব্যবস্থা আছে বিভিনন অঙ্গ সংগঠন সাহায্যের হাত বারিয়ে দিচ্ছে এমন কি প্রধান মন্ত্রী তাদের দেখতে গেছেন।কিন্তু ননএমপিও প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা কিভাবা জীবনজাপন করছে তাদের কথা একবারো ভাবা হচ্ছেনা।

  80. আঃ হক says:

    সকল চাকুরীর পরিক্ষায় MCQ বাতিল করা হোক অথবা পরিক্ষা চলা কালিন সময় মোবাইল নেটওয়ার্ক বন্ধ রাখা হোক তাহলে কেবল মেধাবীরা সুযোগ পাবে

    • মোঃ দিদারুল আলম says:

      মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী ও শিক্ষা সচিব মহোদয় আপনারাই বলেছিলেন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে সৃষ্ট পদে দুই বৎসর পর এমপিও এর জন্য আবেদন করতে পারবে। এখন আপনারাই তা ভুলে গেছেন। এমপিও ভূক্তির জন্য আবেদন করতে পারবে না। নতুন করে প্রজ্ঞাপন জারী করেছেন। স্যার দয়া করে ২০১৩ থেকে ২০১৭ সাল সময়ের সকল সৃষ্ট পদের শিক্ষককে এমপিও ভূক্তির ব্যাপারে পদক্ষেপ নিয়ে আমাদের রক্ষা করুন।

  81. Aminul Islam says:

    সৃজনশীল উঠিয়ে আগের নিয়ম বহাল রাখলেই ভাল হয়

  82. মো. আজিজুর রহমান says:

    100% সঠিক ভাবনা। বিশেষ করে গণিত ও উচ্চতর গণিত এর অধিকর সঠিক।

  83. মো. আজিজুর রহমান says:

    100% সঠিক সিদ্ধান্ত। বিশেষ করে গণিত ও উচ্চতর গণিত এর অধিকর সঠিক।

  84. মাসুদ আকন্দ says:

    MCQ তুলে দেওয়াই উচিত– সচিব স্যারের সাথে একমত।

  85. Bidhan kumar Tarafder says:

    এমসিকিউ বাদ দেওয়া উচিত।

  86. মো: আব্দুল কুদ্দুস says:

    মন্মানিত শিক্ষা সচিব জনাব সোরহাব হোসাইন এম,সি,কিউ পদ্ধতি বাদ দেওয়ার জন্য যে মতবাদ পোষন করেছেন,তাতে আমিও একমত।

  87. Md Mahfuzul Hoque, Senior Teache, C.I.R Afazia High School, Hatiya, Noakhali. says:

    এম সি কিউ তুলে দেওয়া উচিত

  88. মিঠুন দত্ত says:

    যাঁরা হল ডিউটি দেন তাঁরায় শুধু জানেন এম সি কিউ তে কত নোংরা দুর্নীতি হয়।

  89. মিঠুন দত্ত says:

    MCQ বাতিল করা হোক।

  90. শারমীন মিতু says:

    ধন্নবাদ, গনিত এর সৃজনশিল উঠিয়ে দেয়া উচিত

  91. saiful Islam says:

    EXACT. No late. As soon as possible it would Fully Close.

  92. মোঃ আলমামুন says:

    সাচিব স্যার ঠিক বলেছেন। এর পরিবর্তে জ্ঞান মূলক প্রশ্ন বাড়ানো হউক।

  93. মোঃইমরান উদ্দীন,সহযোগী অধ্যাপক,শেরপুর সরকারি কলেজ,শেরপুর says:

    এমসিকিউ যে দিন থেকে চালু হয়েছে সেদিন থেকে আমি তার বিপক্ষে।কিন্তুআমাদের তো আর কিছু করার ছিল না।যাক সচিব মহোদয় বিষয়টি নিয়ে ভেবেছেন,এজন্য স্যারকেধন্যবাদ জানাই।আর দ্রুত এর বাস্তবায়ন আশা করছি।

  94. মোঃ ছাদেক আলী,সহকারী শিঃ,শরীফ উল্লাহ উঃ বিঃ,মতলব উঃ,চঁাদপুর। says:

    Right concept

  95. মোঃ ছাদেক আলী,সহকারী শিঃ,শরীফ উল্লাহ উঃ বিঃ,মতলব উঃ,চঁাদপুর। says:

    Right concept

  96. Md. Sikim Ali says:

    Pls involve the root level teachers in decision making otherwise your all decision will prove wrong in the long run.

  97. শেখ মোঃ আতিকুল্লাহ says:

    আপনার মন্তব্য স্যার আচ্ছালামু আলাইকুম। বর্তমানে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বাধ্যতামুলক একটি কঠিন বিষয়। কিন্তু পাঠদানের জন্য কোন শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হয়নাই। এমতাবস্থায় উক্ত বিষয়ের জন্য শিক্ষক নিয়োগ একান্ত আবশ্যক।

  98. গয়াছ আলী says:

    ঠিক এমসি কিঊ তুলে নেয়া হউক সময়ের দাবি।

  99. Md.Lokman Hossain Mozumder, Head Teacher, Harishchar Union High School says:

    উক্তিটি যথার্ত। এ বিষয়ে খুব দ্রুত সিদ্ধান্ত নেয়া প্রয়োজন।

  100. Nazir Hossain says:

    আপনারা কি শিক্ষক আর শিক্ষার্থীদেরকে গিনিপিগ মনে করেন ?
    দুইদিন পর পর যা ইচ্ছা তাই পরিবর্তন কোন গবেষণা ছাড়াই।

  101. মোঃরফিকুল ইসলাম দাতভাংগা দাখিল মাদ্রাসা,রৌমারী,কুড়িগ্রাম। says:

    এম সি কিউ পদ্ধতি একটি বাজে পদ্ধতি,এই পদ্ধতি মেধাবীদেরকে মারার পদ্ধতি কেননা এই পদ্ধতির ফলে অমেধাবীরা মোবাইলে এস এম এস এর মাধ্ধমে ৯০-৯৫ নম্বর পেয়ে কৃতকায্ হয়, আর মেধাবীরা আজীবন পিছিয়ে পড়ে যায়।

  102. M.M says:

    স্যার আপনি তো অপরাধীদের শাস্তির কথা না বলে শুধু বাচার উপায় টার জন্য তা মত দিলেন কিন্তু সেটা বাচা না শংকা নিয়ে র ভয় নিয়ে বাচা।যে সব অসৎ শিক্ষকের কারনে আপনারা দেশকে বাঁচানোর চেষ্টা করছেন ওদের কে শাস্তি দিন ধ্বংস করুন দেশ বেচে যাবে।মুষ্টিমেয় কয়েক ব্যাক্তির কারনে শিক্ষা ব্যাবস্থায় এত পরিবর্তন দেশের মেধাবীদের নতুন এক দুর্যোগের সামনে দাড় করানোর আর দুর্যোগের ফলাফল কি হই তা সবার জানা।

  103. Moula Mia says:

    স্যার আপনি তো অপরাধীদের শাস্তির কথা না বলে শুধু বাচার উপায় টার জন্য তা মত দিলেন কিন্তু সেটা বাচা না শংকা নিয়ে র ভয় নিয়ে বাচা।যে সব অসৎ শিক্ষকের কারনে আপনারা দেশকে বাঁচানোর চেষ্টা করছেন ওদের কে শাস্তি দিন ধ্বংস করুন দেশ বেচে যাবে।মুষ্টিমেয় কয়েক ব্যাক্তির কারনে শিক্ষা ব্যাবস্থায় এত পরিবর্তন দেশের মেধাবীদের নতুন এক দুর্যোগের সামনে দাড় করানোর আর দুর্যোগের ফলাফল কি হই তা সবার জানা।

  104. Md. Rafiqul Islam, English Teacher, Udaypur Muslim Akand Secondary School,Kazirhat,Barisal says:

    Good idea, Sir.

  105. মোঃ আব্দুল ওয়াহেদ মিঞা says:

    যত তাড়াতাড়ি এমসিকিঊ ঊঠানো যায় ততই জাতির জন্য মঙ্গল।

  106. Abu Hanif says:

    MCQ- সৃজনশীল এর পাশে মানায় না। একে চিরতরের জন্য বিদায় দেওয়া উচিত ।

  107. মিজানুর রহমান says:

    তাড়তাড়ি করুণ।

  108. Md.Sirajul Hoque says:

    স্যারের কথার সাথে একমত।

  109. ‌মোঃ আ‌নিসুর রহমান, প্রভাষক (ব্যবস্থাপনা), জুরানপুর আদর্শ ক‌লেজ, দাউদকা‌ন্দি, কু‌মিল্লা। says:

    MCQ তু‌লে দেয়া হোক।

  110. Md.syeduzzaman mir.principal,Delpara little genius school. says:

    MCQ system should be withdrawn immediately.

  111. K. M. Nurul Amin says:

    সচিব মহোদয়ের বক্তব্যে আমাদের পাবলিক পরীক্ষার বাস্তব চিত্র ফুটে উঠেছে। শুধু MCQ প্রশ্ন তুললেই হবে না। পরীক্ষা নকল মুক্ত পরিবেশে নিতে হলে আরো কিছু বিষয়ের প্রতি নজর দিতে হবে। যেমন:
    ১. প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় Exam. Complex তৈরি করতে হবে। একটি উপজেলায় একটি পরীক্ষা ভবন থাকবে এবং এখানেই সব পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।
    ২. যে সকল শিক্ষক প্রাইভেট পড়ান, কোচিং সেন্টারের সাথে সংশ্লিষ্ট, শিক্ষক প্রতিনিধি এবং রানীতিনৈক কর্মি তারা পরীক্ষার হলে কোন দ্বায়ীত্ব পালন এমনকি প্রবেশ করতে পারবে না।
    ৩. চিহ্নিত দুর্নীতি পরায়ন প্রতিষ্ঠান প্রধান পরীক্ষার সাথে সংযুক্ত থাকবেন না।
    ৪. কেন্দ্র প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা ভেন্যু কেন্দ্রে নেয়া হয়। এখানে শুধু কেন্দ্র প্রতিষ্ঠানে পরীক্ষার্থীদেরই পরীক্ষার আসন বিন্যাস হয় অন্য কোন প্রতিষ্ঠানের পরীক্ষর্থী থাকে না ফলে তারা নকলের মহোৎসব করে। এই ভেন্যু প্রথা বতিল করতে হবে।
    ৫. কেন্দ্রস্থ প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক অন্য কেন্দ্রে কর্তব্য পালন করবেন।
    ৬. কোন কোন এলাকার মাঠ প্রশাসন রাজনৈতিক দূর্বলতা ও চাপের কারণে তাদের দ্বায়ীত্ব যথাযথ ভাবে পালন করেন না। এই ধরনের দুর্বল কর্মকর্তাদের পরীক্ষার দ্বায়ীত্বে না রাখা।
    ৭. পরীক্ষা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের যে বিষয়টি থাকলে কোন নতুন আইনেরই প্রয়োজন হবে না তা হলো সত, কর্তব্যপরায়ন ও নীতিবান এবং নৈতিকগুণ সম্পন্ন হওয়া, তবেই জাতির মেরুদন্ড মজবুদ ও খাঁটি হবে।
    শিক্ষা ক্ষেত্রে বৈষম্য দুর করতে হবে। সরকারি ও বেসরকারি শব্দ দু’টি এক করে সরকারি করা হলে শিক্ষার মান বৃদ্ধি পাবে এবং শিক্ষার মত মৌলিক অধিকার সকলের জন্য সমান উপভোগ্য হবে।

  112. মোঃ নওয়াব আলী, প্রধান শিখক, কে এ হাই স্কুল, কুষ্টিয়া says:

    jsc খাতা মুল্লাওন করতে গিয়া দেখি এক বান্ডিলে সকল খাতাই বহুনিরবাচনিতে ১০০% নাম্বার পেল, কিন্তু রচনামুলকে অনেকে ০% নম্বার পেল, যা হলের দুরনিতির মাধমে করা সম্ভবপর।সেহেতু বহু নিরবাচনি বন্ধ
    হয়া আবশ্যক।

  113. মনিরুল ইসলাম says:

    সচিব স্যার এর সাথে আমিও একমত। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এম সি কিউ তুলে দেওয়া জরুরি। এ ব্যাপারে সন্দেহ নাই।

  114. moni says:

    সচিব স্যার আপনি কাছে চির কৃতজ্ঞ থাকমু।আপনি আমরা যারা আইসিটি শিক্কক আছি।তাদের এমপিও ব্যবস্হা করে দেন।আপনার জন্য দোয়া করমু। মন্তি স্যার আপনি আমাদের জন্য কিছু করেন না হয় মেরে পেলেন।আর জীবন বাচাতে পারি না।আপনি আমাদের জন্য এমপিও ব্যবস্হা করুন। না হয় মেরে পেলুন।

  115. শিবুব্রত মন্ডল says:

    MCQ সম্পূর্ণরূপে তুলে দেবার আবেদন করছি।

  116. মোঃ সুজন মাহমুদ । ict শিক্ষক ০১৭১০০০২৭০৫ says:

    সচিব স্যার সবকিছুর আগে, ict শিক্ষক দের, mpo দিন দয়া করে।

  117. নূরমোহাম্মদ says:

    এম সি কিউ উঠিয়ে দেয়া উচিত।

  118. হাসান রাফিউল ইসলাম, প্রধান শিক্ষক, says:

    সচিব মহোদয়কে ধন্যবাদ। এমসিকিউ তুলে দেওয়ার পাশাপাশি বেসরকারি শিক্ষকদের তিন বছর পরপর স্থানান্তর করুন দেথবেন শিক্ষার মান কত ভালো হয়। এক্ষেত্রে আমার একটি সুপারিশ প্রত্যেক শিক্ষক তিন বছর জেলা সদর তিন বছর উপজেলা সদর বাকী সময় তিন বছর পরপর মফস্বল এলাকায় চাকুরি করবেন এবং জীবনের শেষ তিন বা তার কম নিজ উপজেলায় শিক্ষকতা করবেন। স্যার শিক্ষকরা দীর্ঘদিন একজায়গায় থাকাতে সামাজিক বিভিন্ন কর্মকন্ডের সাথে জডিয়ে পডে এতে পাবলিক পরীক্ষায় বিভিন্ন সমস্যার সমুখিন হতে হয়। যেমন স্যার আমার ছেলে/মেয়ে পরীক্ষা দেয় একটু খেয়াল রাখবেন, আরও অনেক কিছু। এতে করে যারা পরীক্ষার দায়িত্বে থাকে তাদের অনেক সমস্যার সমুক্ষিন হতে হয়।

  119. তারিকুল ইসলাম খান says:

    স্যার, MCQ টা তুলে সৃজনশীল প্রশ্নে পরীক্ষা হলেই প্রকৃত মেধার জাতি পাওয়া সম্ভব। একমত পোষণ করছি। ধন্যবাদ।

  120. সুবর্ন সাহা says:

    এমসিকিউ ও সৃজনশীল প্রশ্ন দুটোই তুলে নেওয়া উচিত বলে, আমি মনে করি।

  121. মোঃ মহিজুর রহমান says:

    শিক্ষাক্ষেত্রে রোজ রোজ এত পরিবর্তন করলে কোনো ফল হবে না। যে দায়িত্ব পায় সেই আগের পদ্ধতি পরিবর্তন করে। কোনো স্থায়ী পরিকল্পনার কথা ভাবুন আর ছাত্র-ছাত্রীদের একই ধারায় নিয়ে আসুন। এক পদ্ধতিতে পড়ে এসে অন্য পদ্ধতির শিক্ষক হচ্ছেন, এবং এ সকল শিক্ষকের নেই কোনো প্রশিক্ষন, নেই কোনো উপযুক্ত সম্মানী তাহলে এতে কি লাভ হবে।

  122. Hasan says:

    দুটিই তুলে দেয়া দরকার !! কারন সৃজনশীল এর কারনে বর্তমানে Normal subject ও প্রাইভেট পড়তে হয় এবং students রা teacher দের কাছে জিম্মি থাকে। সব teacher যে এমন তা বলছি না but students দের যেরকম মেধা এক না তেমনি সব teacher দের মেধা ও স্বভাব এক না। তাই দুটোই বাদ দেয়া উচিৎ —–

  123. এম মোস্তাফিজুর রহমান,কুয়াকাটা খানাবাদ ডিগ্রি কলেজ। says:

    উপজেলা সদর বাদে কেন্দ্র থাকা মোটেই ঠিকনা। লোকাল কেন্দ্রগুলোতে যা হয় ওটাকে পরীক্ষা বলা যায় না।
    বাড়ি বাড়ি কেন্দ্র দিয়ে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রণ করা ১% ও সম্ভব নয়।

    দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকরতারা,
    সেতো সামান্য ইয়েতেই হাতের মুঠোয়।
    আমার কথা হয়তবা অনেকেই বিশ্বাস করবেননা,

    কিন্তু এটাই সত্য এটাই বাস্তবতা

  124. এম মোস্তাফিজুর রহমান,কুয়াকাটা খানাবাদ ডিগ্রি কলেজ। says:

    এম সি কিউ
    ওটা পরীক্ষা বলা যায় না। এক রুমে একজনের ২০ টা কারেক্টতো সবারই ২০ টা।
    আর সৃজনশীল!!!!!
    উদ্দিপক তুলে রাখলেই ৩+৪=৭ নিশ্চিত।
    wait & see
    আগামি ২/৪ বছর পর এ দেশে দরখাস্ত লিখতে বিদেশ থেকে consultent নিয়োগ দিতে হবে

  125. Ibrahim khalil Asst teacher in English Uttatda High School Laksam says:

    এম সি কিউ এর উত্তর পরীক্ষার হলে দেখাদেখি করে শিক্ষার্থী গণ লিখে থাকে। ফলে প্রকৃত মেধা যাচাই হয় না। সেজন্য এটা তুলে দেওয়াই ভালো ।

  126. NikitaOgb says:

    Oh God. I don’t know what to do as I have Lots of work to do next week summer. Plus the university exams are close, it will be a stretch. I am already being anxious maybe I should readmore to calm down a little bit. Hopefully it will all go well. Wish me luck.

  127. এম এ খালেক, সহকারী প্রধান শিক্ষক(অবঃ), বদরগঞ্জ মডেল বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়। says:

    আর কত পরীক্ষা নীরিক্ষা চলবে শিক্ষা নিয়ে। বহুনির্বাচনীর যথার্থতা না বুঝেই বলে দেয়া হল, এটি থাকা উচিত নয়। মাথা ব্যাথা হলে মাথা কেটে ফেলতে হবে-তাইতো। একটি পাঠ্যবইয়ের গুটি কতক প্রশ্ন দিয়ে (রচনামূলক/সৃজনশীল) শিক্ষার্থীর অনুধাবন যোগ্যতা মূল্যায়ন করা সম্ভব হয় না। আবার এই পদ্ধতিতে কোন কোন অধ্যায় বাদ দিয়ে পড়ার সুযোগ তৈরি হয় বলেই বহুনির্বাচনী প্রবর্তিত হয়। শিক্ষকবৃন্দ আন্তরিক হলে অথবা তিনি যদি তার রুজির হক আদায় করতেন তাহলে আর এমনটি ভাবনা ভাবতে হত না। শিক্ষা মন্ত্রী, শিক্ষা সচিব মহোদয় সহ শিক্ষা সংশ্লিষ্ট সকলকে অনুরোধ করবো উচ্চ মেধা সম্পন্ন শিক্ষক নিয়োগের পদ্ধতি আরোপ করুন। শিক্ষককে তার মর্যদার বেতন দিন। আপাতত পরীক্ষার কক্ষে সি সি ক্যামেরা লাগিয়ে দিলেই টুকাটুকি বন্ধ হওয়া সম্ভব। বাজারের নোট-গাইড বন্ধ করার ব্যবস্থা করুন। শিক্ষকদের পরিশ্রম করতে পদ্ধতিগতভাবে বাধ্য করুন। সরকারের হাজার হাজার কোটি টাকার প্রশিক্ষণ শিক্ষকবৃন্দ কাজে লাগাচ্ছেন না। কন্টেন্ট তৈরির ট্রেনিং নিয়েও ক্লাসে প্রয়োগ করছেন না। ড্যাস বোর্ডে মিথ্যা তথ্য দিচ্ছেন। এগুলো বন্ধ করা দরকার। গণিতে বহুনির্বাচনী আরো বেশি প্রয়োজন এজন্য যে কোন অধ্যায়ের বহুনির্বাচনী তাকে পারতে হলে অবশ্যিই তাকে ঐ অধ্যায় ভালভাবে বুঝতে হবে।

  128. Shaheedul Islam, Headmaster, Bangalpara High School, Austogram, Kishoreganj. says:

    Thank you , sir.Please do something education sector.

আপনার মন্তব্য দিন