please click here to view dainikshiksha website

দিনাজপুর টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টার

কর্মচারীর হাতে প্রশিক্ষক লাঞ্ছিত

দিনাজপুর  | আগস্ট ১১, ২০১৭ - ৯:১৭ পূর্বাহ্ণ
dainikshiksha print

দিনাজপুর টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টারের (ডিটিটিসি) ওয়ার্কশপ অ্যাটেনডেন্ট আবু তৈয়বের বিরুদ্ধে গত শনিবার জ্যেষ্ঠ প্রশিক্ষক মো. ওবায়দুল্লাহকে লাঞ্ছিত করার ঘটনা ঘটেছে। ওই কর্মচারীর শাস্তির দাবিতে প্রশিক্ষকেরা প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষের কাছে ওই দিনই লিখিত অভিযোগ দেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, শনিবার মো. ওবায়দুল্লাহ প্রধান প্রশিক্ষকের কক্ষে ছিলেন। তখন আবু তৈয়ব সেখানে এসে তাঁকে অকথ্য ভাষায় গালি দেন এবং আঘাত করেন। পরে তৈয়ব দ্রুত সেখান থেকে পালানোর চেষ্টা করেন। এ সময় অফিসের কয়েকজন কর্মকর্তা তাঁকে আটক করে অধ্যক্ষের কক্ষে নিয়ে আসেন। মো. ওবায়দুল্লাহ সেখানে শরীরে আঘাতের চিহ্ন দেখান। ওই দিনই প্রশিক্ষকেরা অধ্যক্ষের কাছে লিখিত অভিযোগ দেন।

পরদিন ৬ আগস্ট ওই কর্মচারীর শাস্তির দাবিতে সব প্রশিক্ষক অধ্যক্ষ বরাবর স্মারকলিপি দেন। এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) মো. মাসুদ রানা পরিচালকের (প্রশিক্ষণ পরিচালনা) দৃষ্টি আকর্ষণ করে জনশক্তি ও কর্মসংস্থান ব্যুরোর মহাপরিচালক বরাবরে অভিযোগ দেন। এতে বলা হয়, ২০০৪ সালে নিয়োগের পর থেকেই আবু তৈয়ব দায়িত্বে অবহেলা করতে শুরু করেন। প্রথমে তাঁকে মৌখিকভাবে সতর্ক করা হয়। কয়েকবার একই অভিযোগে কয়েকটি শাখায় দায়িত্ব পরিবর্তন করা হয়। ৫ আগস্ট তিনি এক প্রশিক্ষককে লাঞ্ছিত করেন। আবু তৈয়বের আচরণে প্রতিষ্ঠানের কর্মরত সব প্রশিক্ষক কাজের আগ্রহ হারিয়ে ফেলছেন। এতে প্রশিক্ষণ কার্যক্রমসহ প্রতিষ্ঠানের সার্বিক শৃঙ্খলা ব্যাহত হচ্ছে।

ঘটনা স্বীকার করে আবু তৈয়ব বলেন, ‘আমি চারজন শিক্ষকের অধীনে ব্যবহারিক জিনিসপত্র রক্ষণাবেক্ষণ করি। একসঙ্গে এতগুলো কাজ করা কঠিন। কিন্তু তাঁরা আমার নামে মিথ্যা কথা বলে বেড়ান।’ তিনি অভিযোগ করেন, ওই ঘটনার পরে অধ্যক্ষের কার্যালয়ে নিয়ে সিসি ক্যামেরা বন্ধ করে তাঁকে মারধর করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন:


আপনার মন্তব্য দিন