please click here to view dainikshiksha website

কোটালীপাড়ায় পরীক্ষার ফরম পূরণে অতিরিক্ত ফি আদায়!

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি | আগস্ট ৩, ২০১৭ - ৫:৪৩ অপরাহ্ণ
dainikshiksha print

গোপালগঞ্জ কোটালীপাড়া উপজেলায় জেএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণে অতিরিক্ত ফি আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। বোর্ডের নির্দেশনা অপেক্ষা করে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান তাদের ইচ্ছা মতো টাকা নিয়ে ফরম পূরণ করছে।

জানা গেছে, এ বছর জেএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড একশত টাকা নির্ধারণ করেছে। কিন্তু উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ফরম পূরণের জন্য শিক্ষার্থীদের কাজ থেকে তিনশত টাকা থেকে ১৩শত টাকা পর্যন্ত আদায় করছে।

সরেজমিনে গত মঙ্গলবার উপজেলার ওয়েস্ট কোটালীপাড়া ইউনিয়ন ইনস্টিটিউশনে গিয়ে ১৩শত টাকা করে দিয়ে শিক্ষার্থীদের ফরম পূরণ করতে দেখা যায়।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের একাধিক শিক্ষার্থী ১৩শত টাকা করে দিয়ে ফরম পূরণ করেছে বলে জানায়।

ওয়েস্ট কোটালীপাড়া ইউনিয়ন ইনস্টিটিউশনের প্রধান শিক্ষক মোশারফ হোসেন বলেন, এ বছর আমাদের বিদ্যালয় থেকে ১৫৩ জন শিক্ষার্থী জেএসসি পরীক্ষা দিবে। এদের মধ্যে থেকে আমরা ৪০ জনের কাছ থেকে ১৩শত টাকা করে নিয়ে ছিলাম। কিন্তু পরবর্তীতে তিনশত টাকা করে রেখে এক হাজার টাকা করে সবাইকে ফেরত দেওয়া হয়েছে।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মাহাবুবুর রহমান বলেন, কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান যদি বোর্ডের নির্ধারিত ফির চেয়ে অতিরিক্ত ফি নিয়ে ফরম পূরণ করে থাকে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয়ভাবে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন:


পাঠকের মন্তব্যঃ ৩টি

  1. মোহাম্মদ উল্লাহ ছিদ্দিকী,সহকারী অধ্যাপক,বেঙ্গুরা সিনিয়র মাদরাসা বোয়ালখালী চট্টগ্রাম। says:

    বোর্ডের পক্ষ থেকে যদিও বা ফি নির্ধারণ করে থাকে তার পরেও অনেক স্কুল,কলেজ,মাদরাসা অতিরিক্ত ফি নিয়ে থাকে।তাই এ ব্যাপারে আরো কঠোর নির্দেশনার প্রয়োজন রয়েছে।

  2. Sk. Rokon Uddin says:

    JSC পরীক্ষার ফিস ঃ
    বোর্ড ফি ১০০ টাকা
    কেন্দ্র ফি ১৫০ টাকা
    ——————
    মোট ২৫০ টাকা। হা হা হা ……………।

  3. হুমায়ুন কবির says:

    সারা দেশেই এখন “শিক্ষা দোকান” খুলে শিক্ষা ব্যবসায়ীরা চালাচ্ছে রমরমা ব্যবসা! এখন শিক্ষা ব্যবসায়ই সবচে লাভজনক ও লোকসানের ঝুঁকিমুক্ত! “রাজায় রাজায় যুদ্ধ চলে, নল খাগড়ার প্রাণ যায়!” কমিটি আর অসাধু শিক্ষা ব্যবসায়ীদের যোগসাজসে সারা দেশেই ধুমছে চলছে এই ব্যবসা! আর শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের বাজছে বারোটা!

আপনার মন্তব্য দিন