please click here to view dainikshiksha website

সরকারি কাজে জি-মেইল, ইয়াহুর ব্যবহার বন্ধ হচ্ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক | আগস্ট ১৬, ২০১৭ - ৯:৪২ পূর্বাহ্ণ
dainikshiksha print

সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সরকারি কাজে ইলেকট্রনিক যোগাযোগের ক্ষেত্রে জি-মেইল, ইয়াহু আউটলুকসহ অন্যান্য ই-মেইল ব্যবহারে বিধি নিষেধ আসছে। এমনকি সরকারি কাজে কোনো ধরনের ব্যক্তিগত বা ইচ্ছেমত ইমেইল ব্যবহার করতে পারবেন না তারা। তাদের ইলেকট্রনিক যোগাযোগের ক্ষেত্রে সরকারের একটি অভিন্ন নীতিমালা অনুসরণ করতে হবে। সরকারি কার্যক্রমের গোপনীয়তা রক্ষা, অধিকতর স্বচ্ছতা নিশ্চিত করা ও সাইবার নিরাপত্তার জন্য ই-মেইল ব্যবহারের এ নীতিমালা করা হচ্ছে।

এটি চূড়ান্ত হলে সরকারি কোনো কাজে আর ব্যক্তিগত ই-মেইল ব্যবহার করা যাবে না। তখন কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রত্যেকেই মন্ত্রণালয়, বিভাগ, দফতর ও সংস্থার নামসহ ‘ডট বিডি’ ডোমেইনে একটি ই-মেইল আইডি তৈরি করে সেটা দিয়ে সরকারি কাজে মেইল আদান-প্রদান করতে হবে। এ ই-মেইল আইডি দিয়ে তারা শুধু সরকারি প্রতিষ্ঠানের কাজের জন্য যোগাযোগে ব্যবহার করতে পারবেন। এই ই-মেইল আইডি ব্যক্তিগত বা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যবহার করা যাবে না। অপরদিকে অভিন্ন ডোমেইনে এই ই-মেইল সেবা দেবে তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি)। তারা ই-মেইল সার্ভিস প্রোভাইডার (ইএসপি) হিসেবে কাজ করবে। অভিন্ন ইমেইল ব্যবহারের নীতিমালার ব্যাপারে তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা আবু নাসের জানান, বর্তমানে অনেক সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও আধা-স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানে বা সংস্থার নিজস্ব ডোমেইনের অধীনে ই-মেইল সেবা চালু থাকলেও কর্মকর্তা-কর্মচারীরা এখনো অফিসিয়াল যোগাযোগের জন্য জিমেইল, ইয়াহু বা আউটলুকের ই-মেইল ব্যবহার করেন।

এ ছাড়াও সরকার প্রতিষ্ঠানের মধ্যে গ্রহণযোগ্য ই-মেইল ব্যবহারের অভিন্নতা এবং নির্দেশনার অভাব রয়েছে। এছাড়া সরকারি কাজে গোপনীয়তা রক্ষা ও অধিকতর স্বচ্ছতা নিশ্চিত করার জন্য সরকারের নিয়ন্ত্রণাধীন একটি ডোমেইনে ইলেকট্রনিক যোগাযোগ ব্যবস্থা জরুরি। অপরদিকে সরকারের নিয়ন্ত্রণাধীন একটি ডোমেইনে ইলেকট্রনিক যোগাযোগ ব্যবস্থা থাকলে সেটার সাইবার নিরাপত্তা সরকার সহজেই দিতে পারবে। এসব দিক বিবেচনা করে কর্মকর্তাদের ই-মেইল ব্যবহারকে সুনির্দিষ্ট নিয়মের মধ্যে আনার ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় সম্প্রতি মন্ত্রণালয়ে একটি নির্দেশনা দেন। এই নির্দেশনা অনুসরণ করে প্রতিটি সরকারি প্রতিষ্ঠানের ইলেকট্রনিক যোগাযোগের জন্য ই-মেইল ব্যবহারকারীদের একই নিয়মের অধীনে আনতে এ নীতিমালা প্রণয়ন করা হচ্ছে।

নীতিমালার খসড়ায় একটি অভিন্ন ডোমেইন ‘ডট বিডি’র ঠিকানা যুক্ত ই-মেইল ব্যবহার বাধ্যতামূলক করার প্রস্তাব করা হয়েছে। সংশ্লিষ্টদের মতামতের জন্য ই-মেইল নীতিমালার এই খসড়াটি ওয়েবসাইটে প্রকাশ করেছে তথ্যপ্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগ। নীতিমালাটির প্রথম খসড়া ওয়েবসাইটে দেওয়ার পর অনেক মতামত এসেছে। সেগুলোকে গুরুত্ব দিয়ে বেশকিছু বিষয়ে পরিবর্তন এনে খসড়া-২ হিসেবে সেটি আবারো আপলোড করা হয়েছে। সবার মতামত পাওয়ার পর সেগুলো যাচাই-বাছাই করে নীতিমালায় সংযোজন-বিয়োজন করে খসড়া চূড়ান্ত করবে তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের কমিটি। পরে সেটি চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য মন্ত্রিসভায় পাঠানো হবে।

তিনি আরো জানিয়েছেন, ই-মেইল ব্যবহার নীতিমালায় যা বলা হয়েছে তা কর্মকর্তাদের অবশ্যই মানতে হবে। যদি কেউ এর ব্যত্যয় ঘটান তবে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেবে। তবে এ নীতিমালা জাতীয় নিরাপত্তার কাজে নিয়োজিত সংস্থা, আইন প্রয়োগকারী সংস্থা, অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠান এবং বিদেশে বাংলাদেশ মিশনসহ স্পর্শকাতর প্রতিষ্ঠানগুলোর ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নয়। তারা ইলেকট্রনিক যোগাযোগের জন্য তাদের কর্তৃপক্ষের নিয়মে ই-মেইল ব্যবহার করবে।

তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়সূত্র জানায়, খসড়া নীতিমালা অনুযায়ী, প্রত্যেক কর্মকর্তা ও কর্মচারী দুটি করে ই-মেইল আইডি খুলতে পারবেন। সেক্ষেত্রে একটি হবে তার পদবি দিয়ে এবং অন্যটি নাম দিয়ে। তবে যোগাযোগের ক্ষেত্রেও আইডি দুটি দুই ধরনের কাজে ব্যবহার করতে হবে তাদের। আবার যেসব কর্মকর্তা অবসরে যাবেন বা চাকরির বয়স ২৫ বছর পূর্ণ হবে, তারা পরবর্তী এক বছর পর্যন্ত ওই নামের মেইল সরকারি যোগাযোগে ব্যবহার করতে পারবেন। এক বছর পর তাদের থেকে ওই আইডি ও পাসওয়ার্ড বাজেয়াপ্ত করবে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

সংবাদটি শেয়ার করুন:


পাঠকের মন্তব্যঃ ৪টি

  1. মোঃ নূরে আলম সিদ্দিকী says:

    শিক্ষার স্তর ভেদে একই রকম ওয়েব সাইট হলে ভাল হয়।

  2. রঞ্জন বড়ুয়া says:

    ভাল। নীতিমালা অনুসরণ করতে হবে ।অন্য মেইল গুলো পাইবেসী থাকে না ।

  3. ঝুলন কুমার সরকার, সহকারী শিক্ষক, গোবিন্দপুর উচ্চ বিদ্যালয়, কলমাকান্দা, নেত্রকোণা। says:

    উদ্যোগটি অতি সত্বর বাস্তবায়িত করার আশাবাদ ব্যক্ত করছি।

  4. Mohammad Ataur Rahman says:

    Best Planning, so need to implement…..

আপনার মন্তব্য দিন