অনলাইনে পাবলিক পরীক্ষা নিয়ে যা বললেন সভাপতি - কলেজ - দৈনিকশিক্ষা

অনলাইনে পাবলিক পরীক্ষা নিয়ে যা বললেন সভাপতি

নিজস্ব প্রতিবেদক |

করোনা ভাইরাসের ঊর্ধ্বমূখী সংক্রমণের মুখে চলতি বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে অনিশ্চয়তা সৃষ্টি হয়েছে। এ পরিস্থিতিতে অনলাইনে পাবলিক পরীক্ষা নেয়ার বিষয়ে চিন্তা ভাবনা শুরু করেছে সরকার। এ লক্ষ্যে কমিটিও গঠন করা হয়েছে। তবে কমিটির সামনে এ মুহুর্তে সবচেয়ে বড় প্রশ্ন, কিভাবে নেয়া হবে অনলাইন পরীক্ষা? সে প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে কমিটি কাজ শুরু করেছে।

করোনার কারণে এক বছরের বেশি সময় ধরে ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ। সংক্ষিপ্ত পাঠ্যসূচিতে গত ৩০ মার্চ থেকে ৬০ দিন শ্রেণিকক্ষে ক্লাস করিয়ে এসএসসি এবং ৮০ দিন ক্লাস করিয়ে এইচএসসি পরীক্ষা নেয়ার পরিকল্পনা থাকলেও তা ভেস্তে গেছে। এ পরিস্থিতিতে অনলাইনে পাবলিক পরীক্ষা নেয়ার উপায় খুঁজছে সরকার। তবে, সংশ্লিষ্টরা বলছেন, আমাদের দেশের প্রেক্ষাপটে অনলাইনে পরীক্ষা নেয়া কিছুটা জটিল। 

বিষয়টি স্বীকার করেছেন অনলাইনে শ্রেণিভিত্তিক ও পাবলিক পরীক্ষা আয়োজনে গঠিত সুপারিশ কমিটির সভাপতি ও ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর নেহাল আহমেদ। রোববার (১১ এপ্রিল) দুপুরে তিনি দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, অনলাইনে পরীক্ষা আয়োজনের বিষয়ে আমরা সারাবিশ্ব থেকে তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করছি। সারা বিশ্বে কিভাবে পরীক্ষা নেয় সে বিষয়গুলো পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। আমাদের আইটি বিশেষজ্ঞরা তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করছে। তারা কমিটিকে এ বিষয়ে রিপোর্ট দেবে। তারপর আলোচনা করে আমরা একটি সিদ্ধান্তে আসতে পারবো। 

উন্নত দেশগুলোতে অপেন বুক পদ্ধতিতে অনলাইনে পরীক্ষা নেয়া হয়ে থাকে। বাংলাদেশে অনলাইনে ভর্তি পরীক্ষা নেয়া হলেও কি সে পদ্ধতি অনুসরণ করা হবে কি না- জানতে চাইলে বোর্ড চেয়ারম্যান দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, আসলে তথ্য উপাত্ত সংগ্রহের পর তা পর্যালোচনা করে এ বিষয়ে আমরা সিদ্ধান্ত নেবো। আমাদের দেশের প্রেক্ষাপটে অনলাইনে পরীক্ষা সাধারণ মানুষের কাছে কিছুটা জটিল। তবে, কমিটি সারা বিশ্ব থেকে তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করছে। তারপর সবাই আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

অধ্যাপক নেহাল আহমেদ আরও বলেন, এ মুহুর্তে আলোচনা করাও কঠিন। ঢাকা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত। আমরা অনলাইনে ভার্চুয়াল মিটিংয়ে আলোচনা করছি। তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ ও তা পর্যালোচনা করে কমিটি সিদ্ধান্ত নিয়ে তা শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে জানাবে। শিক্ষা মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে।   

গত ২৪ মার্চ মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মাহবুব হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে অনলাইনে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়েরর শ্রেণি পরীক্ষা ও পাবলিক পরীক্ষা গ্রহণের বিষয়ে সুপারিশ করতে ১১ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। মন্ত্রণালয় বলছে, এ কমিটি দেশে ও বিদেশে অনলাইনে পরীক্ষা গ্রহণের বর্তমান প্রাকটিসগুলো পর্যালোচনা করে স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদী রোডম্যাপ তৈরি করবে এবং এ বিষয়ে প্রতিবেদন মন্ত্রণালয়কে জানাবে।

শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে দৈনিক শিক্ষার চ্যানেলের সাথেই থাকুন। ভিডিওগুলো মিস করতে না চাইলে এখনই দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন এবং বেল বাটন ক্লিক করুন। বেল বাটন ক্লিক করার ফলে আপনার স্মার্ট ফোন বা কম্পিউটারে সয়ংক্রিয়ভাবে ভিডিওগুলোর নোটিফিকেশন পৌঁছে যাবে।

দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল  SUBSCRIBE  করতে ক্লিক করুন।

বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা ও স্টাডি সেন্টার বিদ্যমান আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক - dainik shiksha বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা ও স্টাডি সেন্টার বিদ্যমান আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক করোনার প্রভাবে শিক্ষক এখন কচু ব্যবসায়ী - dainik shiksha করোনার প্রভাবে শিক্ষক এখন কচু ব্যবসায়ী অনলাইন পরীক্ষা সুফল বয়ে আনবে না : উপাচার্য - dainik shiksha অনলাইন পরীক্ষা সুফল বয়ে আনবে না : উপাচার্য মিতু হত্যা : সাবেক এসপি বাবুল আক্তারকে প্রধান আসামি করে মামলা - dainik shiksha মিতু হত্যা : সাবেক এসপি বাবুল আক্তারকে প্রধান আসামি করে মামলা ঈদের আগে জামা-জুতার টাকা পেল না শিক্ষার্থীরা, উপবৃত্তি ৫০০ টাকায় উন্নীত করার সুপারিশ - dainik shiksha ঈদের আগে জামা-জুতার টাকা পেল না শিক্ষার্থীরা, উপবৃত্তি ৫০০ টাকায় উন্নীত করার সুপারিশ এমপিও কমিটির ভার্চুয়াল সভা ১৭ মে - dainik shiksha এমপিও কমিটির ভার্চুয়াল সভা ১৭ মে শিক্ষক পাবেন পাঁচ হাজার, কর্মচারী আড়াই হাজার টাকা করে - dainik shiksha শিক্ষক পাবেন পাঁচ হাজার, কর্মচারী আড়াই হাজার টাকা করে ২৫ শতাংশ পর্যন্ত শিক্ষার্থীর পড়াশোনা বন্ধ হয়ে গেছে - dainik shiksha ২৫ শতাংশ পর্যন্ত শিক্ষার্থীর পড়াশোনা বন্ধ হয়ে গেছে সেহরি ও ইফতারের সূচি - dainik shiksha সেহরি ও ইফতারের সূচি দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে - dainik shiksha দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে ‘কওমি মাদরাসায় জাতীয় চেতনা ও সংস্কৃতিবোধ উপেক্ষিত’ - dainik shiksha ‘কওমি মাদরাসায় জাতীয় চেতনা ও সংস্কৃতিবোধ উপেক্ষিত’ please click here to view dainikshiksha website