অ্যাসাইনমেন্ট বিক্রির প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ, প্রধান শিক্ষকের মোটর সাইকেল ভাংচুর - স্কুল - দৈনিকশিক্ষা

অ্যাসাইনমেন্ট বিক্রির প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ, প্রধান শিক্ষকের মোটর সাইকেল ভাংচুর

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি |

অ্যাসাইনমেন্ট বিক্রির প্রতিবাদে ছাত্র-ছাত্রীরা বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছে। অ্যাসাইনমেন্টগুলো শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে ওয়েসবসাইটে দেয়া হচ্ছে। সেগুলোই ডাউনলাড করে টাকা আদায় করার অভিযোগ। সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলার ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দৌলতপুর বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি পিয়ার হোসেন পেয়ারার ছেলে রবিউল করিমের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ।  

দ্বিতীয়দিনের মতো স্কুলটিতে কয়েক ঘণ্টা অবস্থান নিয়ে সহস্র্রাদিক ছাত্র-ছাত্রী অ্যাসাইনমেন্ট প্রশ্ন বাবদ আদায়কৃত দেড়-থেকে দুশো টাকা ফেরতের দাবিতে এই সমাবেশ করে। তখন স্কুলের সহকারী প্রধান শিক্ষক শাহ আলমের মোটর সাইকেল ভাংচুর করে বিক্ষুব্ধ ছাত্র-ছাত্রীরা।

 অবৈধভাবে  অ্যাসাইনমেন্ট প্রশ্ন বিক্রির প্রতিবাদে  শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছে। ছবি: সংগৃহীত

স্কুলের আন্দোলনকারী ছাত্র-ছাত্রীরা অভিযোগ করে জানান, করোনাকালে ছাত্র-ছাত্রীদের সংক্রামণের হাত থেকে রক্ষায় সরকারের যুগোপযোগী পদক্ষেপ হিসেবে আগামী বাৎসরিক পরীক্ষা বিকল্প পদ্ধতিতে নেবার জন্য স্কুল থেকে প্রশ্নপত্র দিয়ে বাড়িতেই তা লিখে স্কুলে জমাদানের আহ্বান জানানো হয়েছে ছাত্র-ছাত্রীদের। এরই অংশ হিসেবে শনিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত বেলকুচির দৌলতপুর বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে ৬ষ্ঠ থেকে ৯ম শ্রেণির প্রায় ১৮শ ছাত্র-ছাত্রীকে অ্যাসাইনমেন্ট প্রশ্ন বিতরণ করা হয়। তখন স্কুলের প্রধান শিক্ষক তাপস কুমার ম-লের যোগসাজশে স্কুল পরিচালনা পরিষদের সভাপতি হাজী পিয়ারার ছেলে রবিউল করিমের কিন্ডার হলি চাইল্ড প্রি-ক্যাডেট স্কুল থেকে এ প্রশ্ন দিয়ে দেড় থেকে দুশ টাকা করে ছাত্র-ছাত্রীদের নিকট থেকে আদায় করা হয়। তবে পার্শ্ববর্তী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নামমাত্র ২ টাকায় প্রশ্ন দেয়ায় দৌলতপুর বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। তখনও বিক্ষোভ করতে থাকে তারা। অবস্থা বেগতিক দেখে থানা পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সে সময় প্রধান শিক্ষক ও অর্থ আদায়কারী রবিউল করিম টাকা ফেরতের ঘোষণা দেন।

রোববার সকালে ঘোষণা মোতাবেক হাতিয়ে নেয়া অর্থ ফেরত না দিলে উপস্থিত সহস্র্রাদিক ছাত্র-ছাত্রী বিক্ষোভে ফেটে পড়ে। এ সময় শিক্ষক শাহ আলম ছাত্র-ছাত্রীদের ওপর চড়াও হলে তার মোটরসাইকেলটি ভাংচুর করা হয়। এরপর পুলিশ ও উপজেলা মাধ্যমিক সহকারী শিক্ষা অফিসার খোরশেদ আলম এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে টাকা ফেরত পায়নি শিক্ষার্থীরা। 

এ ব্যাপারে সভাপতির ছেলে রবিউল করিম জানান, আমি প্রধান শিক্ষকের নির্দেশেই প্রশ্ন বাবদ ৬০-৬৫ টাকা করে নিয়েছি। তবে এই টাকা ফেরত দেবার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

আর স্কুলের প্রধান শিক্ষক তাপস কুমার ম-ল জানান, রবিউলকে আমি দায়িত্ব দেইনি প্রশ্ন বিক্রির জন্য। সে মিথ্যা বলেছে। তবে যে টাকা নেয়া হয়েছে আমরা তা ফিরিয়ে দেবার ঘোষণা দিয়েছি।

এদিকে অ্যাসাইনমেন্ট প্রশ্ন বিক্রির বিষয়ে সিরাজগঞ্জ জেলা শিক্ষা অফিসার মো. শফিউল্লাহ জানান, ঘটনাটি শুনেছি। তা ক্ষতিয়ে দেখে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সব মাদরাসা খুলতে প্রস্তুতি ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে, গাইড লাইন প্রকাশ - dainik shiksha সব মাদরাসা খুলতে প্রস্তুতি ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে, গাইড লাইন প্রকাশ পত্রিকা-টিভিতে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে দুর্নীতির ভয়ংকর চিত্র : মন্ত্রণালয় নির্বিকার - dainik shiksha পত্রিকা-টিভিতে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে দুর্নীতির ভয়ংকর চিত্র : মন্ত্রণালয় নির্বিকার প্রাথমিক-অষ্টম শ্রেণির পরীক্ষা স্থায়ীভাবে বাতিলের পরামর্শ - dainik shiksha প্রাথমিক-অষ্টম শ্রেণির পরীক্ষা স্থায়ীভাবে বাতিলের পরামর্শ শিক্ষকদের অন্য কোনো পদে মোহ থাকা উচিত নয় : এস এম এ ফায়েজ - dainik shiksha শিক্ষকদের অন্য কোনো পদে মোহ থাকা উচিত নয় : এস এম এ ফায়েজ ‘যোগ্যতাবিহীন’ শিক্ষকদের অবসরভাতা দেওয়ার প্রস্তুতি চলছে: প্রতিমন্ত্রী - dainik shiksha ‘যোগ্যতাবিহীন’ শিক্ষকদের অবসরভাতা দেওয়ার প্রস্তুতি চলছে: প্রতিমন্ত্রী আপাতত ক্লাস সপ্তাহে ১ দিন : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha আপাতত ক্লাস সপ্তাহে ১ দিন : শিক্ষামন্ত্রী পরীক্ষা ছাড়া এইচএসসির ফল প্রকাশে আইন পাস, দু’দিনেই প্রজ্ঞাপন - dainik shiksha পরীক্ষা ছাড়া এইচএসসির ফল প্রকাশে আইন পাস, দু’দিনেই প্রজ্ঞাপন ৯ম গ্রেডে উন্নীত করার দাবিতে একাট্টা হচ্ছে সব সরকারি কর্মচারী সংগঠন - dainik shiksha ৯ম গ্রেডে উন্নীত করার দাবিতে একাট্টা হচ্ছে সব সরকারি কর্মচারী সংগঠন নো মাস্ক নো স্কুল, ক্লাস হবে শিফটে : দুশ্চিন্তায় বড় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান - dainik shiksha নো মাস্ক নো স্কুল, ক্লাস হবে শিফটে : দুশ্চিন্তায় বড় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সাংবাদিকতার অনন্য উচ্চতায় পৌঁছে গিয়েছিলেন মিজানুর রহমান : স্মরণসভায় জেলা জজ - dainik shiksha সাংবাদিকতার অনন্য উচ্চতায় পৌঁছে গিয়েছিলেন মিজানুর রহমান : স্মরণসভায় জেলা জজ মাদরাসা শিক্ষার সমস্যার সমাধান দ্রুতই : শিক্ষা উপমন্ত্রী - dainik shiksha মাদরাসা শিক্ষার সমস্যার সমাধান দ্রুতই : শিক্ষা উপমন্ত্রী please click here to view dainikshiksha website