আইনের অধ্যাপকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা - বিশ্ববিদ্যালয় - দৈনিকশিক্ষা

আইনের অধ্যাপকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

ঢাবি প্রতিনিধি |

ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অভিযোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) আইন বিভাগের অধ্যাপক শেখ হাফিজুর রহমান কার্জনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে৷

বাংলাদেশ হিন্দু যুব পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক অমিত ভৌমিক গতকাল রোববার অধ্যাপক কার্জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন বলে নিশ্চিত করেছেন শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মাহফুজুল হক ভূঁইয়া৷ এর আগে অমিত ভৌমিক একটি সাধারণ ডায়েরি করেছিলেন৷

গত ২২ জুলাই হাফিজুর রহমান কার্জন ফেসবুকে একটি লেখা পোস্ট করেন। সেখানে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অভিযোগ উঠলে তিনি সঙ্গে সঙ্গে লেখাটি মুছে ফেলে ক্ষমা চান৷

মামলার এজাহারে বলা হয়, হাফিজুর রহমান কার্জন মানহানিকর সর্বোপরি সনাতন ধর্মের ভগবানকে নিয়ে হেয় করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করেছেন৷ যেটি ইতোমধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে। এর মাধ্যমে তিনি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট, ধর্মীয় উগ্রবাদ সৃষ্টি, অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশে অস্থিতিশীল এবং সরকারকে বিব্রত করার মানসে স্বেচ্ছায় ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করেছেন৷'

জানতে চাইলে অধ্যাপক কার্জন বলেন, 'আমি কৌতুক করে লিখলেও সেটি যদি কোনো সম্প্রদায়কে আঘাত করে থাকে, তাহলে সেটি কোনোভাবেই ঠিক হয়নি৷ আমার লেখা যে তাদের অনুভূতিতে আঘাত করবে, সেটি আমার অজানা ছিল৷ অবগত হওয়ার পর আমি নিজেই ক্ষমা চেয়েছি এবং লেখাটি মুছে ফেলেছি৷'

তিনি আরও বলেন, 'গল্প, চলচ্চিত্র এবং গানে অনেক সময় অনেক কিছু রূপক অর্থে ভগবানের সঙ্গে তুলনা করা হয়৷ সে অর্থে আমার স্ট্যাটাসটি কৌতুক করে লেখা ছিল৷ তবে এর জন্য আমি ক্ষমা প্রার্থনা করেছি, ভুল স্বীকার করেছি৷ এরপরেও মামলা করা হয়েছে৷ আমি মনে করি, আমাকে হয়রানীর উদ্দেশ্যে অহেতুক মামলা করা হলো৷ আমি যদি লেখাকে সমর্থন করতাম, তাহলে মামলা করা যেত৷'

'আমি আইনের শিক্ষক হিসেবে আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল৷ আমি করোনায় আক্রান্ত হয়ে বাসায় চিকিৎসা নিচ্ছি৷ সুস্থ হলে আদালতে আত্মসমর্পণ করব৷ আদালত যে রায় দেবে সেটি মেনে নেবো,' যোগ করেন অধ্যাপক কার্জন।

দৈনিক সংবাদ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক ছিলেন কার্জন। তিনি বিভিন্ন পত্রিকায় নিয়মিত কলাম লেখেন। 

অ্যাসাইনমেন্টের সঙ্গে স্কুলের বেতনের সম্পর্ক নেই : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha অ্যাসাইনমেন্টের সঙ্গে স্কুলের বেতনের সম্পর্ক নেই : শিক্ষামন্ত্রী শিক্ষকদের একটা বড় অংশ ঘটনাচক্রে শিক্ষক : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha শিক্ষকদের একটা বড় অংশ ঘটনাচক্রে শিক্ষক : শিক্ষামন্ত্রী শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হয় তদবিরে : সেতুমন্ত্রী - dainik shiksha শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হয় তদবিরে : সেতুমন্ত্রী ছাত্রীর চুল কেটে দেওয়ায় শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা - dainik shiksha ছাত্রীর চুল কেটে দেওয়ায় শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা এ সপ্তাহে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সারপ্রাইজ ভিজিট শুরু - dainik shiksha এ সপ্তাহে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সারপ্রাইজ ভিজিট শুরু অষ্টম-নবম শ্রেণির ক্লাস দুই দিন : নতুন রুটিন প্রকাশ - dainik shiksha অষ্টম-নবম শ্রেণির ক্লাস দুই দিন : নতুন রুটিন প্রকাশ করোনার বন্ধে এক স্কুলেই অর্ধশতাধিক বাল্যবিবাহ - dainik shiksha করোনার বন্ধে এক স্কুলেই অর্ধশতাধিক বাল্যবিবাহ please click here to view dainikshiksha website