পুলিশকে ভুল ঠিকানা দিয়েছে বাবুল আক্তার - বিবিধ - দৈনিকশিক্ষা

পুলিশকে ভুল ঠিকানা দিয়েছে বাবুল আক্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক |

মাহমুদা খানম মিতু হত্যা মামলার আসামি সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তার পুলিশকে তার বাসার ভুল ঠিকানা দিয়েছেন। কেন কী উদ্দেশ্যে ভুল ঠিকানা দেওয়া হলো- এ ব্যাপারে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে জানিয়েছেন পিবিআই এর প্রধান বনজ কুমার মজুমদার।

পিবিআই প্রধান বলেন, বাবুল হয়তো তার বর্তমান স্ত্রীকে পুলিশের মুখোমুখি করতে চাননি। তাই বাসার ভুল ঠিকানা সরবাহ করেছেন। মামলার এজাহারেও ভুল ঠিকানা লেখা হয়েছে। তবে এটা বাবুলের অস্থায়ী ঠিকানা। স্থায়ী ঠিকানা সঠিক থাকায় অস্থায়ী ঠিকানা ভুল হলেও এটা মামলার পরিচালনার জন্য বড় কোনো সমস্যা নয়।

বাবুল মোহাম্মদপুরের বাবর রোডের সি ব্লকের, ১১ নম্বর সড়কের ২২ নম্বর বাসার আট তলায় বসবাস করেন বলে দাবি করলেও সেখানে আদতে তিনি বসবাস করছিলেন না। আসলে মোহাম্মদপুরের যে বাসায় বাবুল সর্বশেষ বসবাস করছিলেন গত সোমবার থেকে সেখানে তার বর্তমান স্ত্রী ও সন্তানরা নেই। সোমবার বাসা তালাবদ্ধ করে তারা চলে গেছেন।

তদন্ত সংশ্লিষ্ট সূত্র বলছে, এর আগেও একাধিক দফায় মামলার বাদী হিসেবে বাবুল চট্টগ্রামে গিয়ে তার বক্তব্য দিয়েছেন। তবে সেটা দিয়েছেন যখন মামলাটি গোয়েন্দা পুলিশের কাছে তদন্তের ভার ন্যাস্ত ছিল। পিবিআই’র কাছে মামলার বাদী হিসেবে বক্তব্য দিতে চট্টগ্রামে প্রথমবারের মতো বাবুল যাওয়ার পর কেন তার পরিবারের পক্ষ থেকে ফোন করে মিতু স্বজনের কাছে ফোন করা হলো। বাবুলের ঢাকায় ফেরা নিয়ে কী কারণে তার বর্তমান স্ত্রী সংশয় প্রকাশ করলেন- এর নেপথ্য কারণ অনুসন্ধান করা হবে।

তদন্ত সংশ্লিষ্ট সূত্র আরও বলছে, এখন পর্যন্ত মিতু হত্যা মিশনে বাবুল তিন লাখ টাকা খরচ করেছেন এমন প্রমাণ মিলছে। তবে এই অঙ্ক আরও বড় বলে অপর একটি সূত্র জানিয়েছে। এ বিষয়টি নিশ্চিত হতে বিশদ তদন্ত চলছে।

তবে এখন পর্যন্ত তদন্তে উঠে এসেছে- স্ত্রী হত্যার তিন দিন পর বাবুল আক্তার তার ব্যবসায়িক অংশীদার সাইফুল হককে বলেন, তার লাভের অংশ থেকে তাকে যেন তিন লাখ টাকা দেওয়া হয়। সাইফুল বিকাশের মাধ্যমে ওই টাকা গাজী আল মামুনকে পাঠান। গাজী আল মামুন ওই টাকা মুসা, ওয়াসিমসহ আসামিদের ভাগ করে দেন।

পরীক্ষা এক বছর না দিলে ক্ষতি হবে না : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha পরীক্ষা এক বছর না দিলে ক্ষতি হবে না : শিক্ষামন্ত্রী সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি ৩০ জুন পর্যন্ত - dainik shiksha সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি ৩০ জুন পর্যন্ত ৫ শর্তে অনলাইনে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়োগ পরীক্ষা নেয়ার অনুমতি দিলো ইউজিসি - dainik shiksha ৫ শর্তে অনলাইনে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়োগ পরীক্ষা নেয়ার অনুমতি দিলো ইউজিসি এনটিআরসিএর নতুন চেয়ারম্যানকে আদালত অবমাননার মামলায় অন্তর্ভুক্তির নির্দেশ - dainik shiksha এনটিআরসিএর নতুন চেয়ারম্যানকে আদালত অবমাননার মামলায় অন্তর্ভুক্তির নির্দেশ এক স্কুলশিক্ষার্থীর শরীরে করোনা পেয়েই তড়িঘড়ি ৩ দিনের লকডাউন - dainik shiksha এক স্কুলশিক্ষার্থীর শরীরে করোনা পেয়েই তড়িঘড়ি ৩ দিনের লকডাউন গভীর রাতে পরীক্ষার সময় রেখে পাবিপ্রবিতে রুটিন প্রকাশ - dainik shiksha গভীর রাতে পরীক্ষার সময় রেখে পাবিপ্রবিতে রুটিন প্রকাশ ২০ বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত - dainik shiksha ২০ বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত লকডাউন বাড়লে পেছাতে পারে বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষা - dainik shiksha লকডাউন বাড়লে পেছাতে পারে বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষা দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে - dainik shiksha দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে ৬ষ্ঠ-৯ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ষষ্ঠ সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ - dainik shiksha ৬ষ্ঠ-৯ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ষষ্ঠ সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ please click here to view dainikshiksha website