শিক্ষক নির্যাতনে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি বাকশিক-বিপিসির - সমিতি সংবাদ - দৈনিকশিক্ষা

শিক্ষক নির্যাতনে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি বাকশিক-বিপিসির

নিজস্ব প্রতিবেদক |

দেশের বিভিন্ন স্থানে উচ্ছৃঙ্খল শিক্ষার্থী ও স্থানীয় ব্যক্তি দ্বারা শিক্ষকরা নির্যাতিত হচ্ছেন বলে অভিযোগ তুলেছে বাংলাদেশ অধ্যক্ষ পরিষদ (বিপিসি) ও বাংলাদেশ কলেজ শিক্ষক সমিতি (বাকশিস)। সংগঠন দুই, এসব ঘটনায় উদ্বোগ ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছে। একইসঙ্গে শিক্ষক নির্যাতনে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়েছেন বাকশিস-বিপিসির নেতারা।

বুধবার দৈনিক শিক্ষাডটকমে পাঠানো এক সংবাদ বিবৃতিতে এ দাবি জানান বিপিসি সভাপতি অধ্যক্ষ মোহাম্মদ মাজহারুল হান্নান ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ হারুনর রশীদ পাঠান এবং বাকশিস সভাপতি অধ্যক্ষ ইসহাক হোসেন ও ভারপ্রাপ্ত মহাসম্পাদক ড. এ কে এম আব্দুল্লাহ। 

দেশের বিভিন্ন স্থানে শিক্ষক নির্যাতন ও সামাজিকভাবে অপমানিত হওয়ার ঘটনায় উদ্বেগ ও ক্ষোভ প্রকাশ করে নেতারা বিবৃতিতে বলেছেন, সম্প্রতি বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদ মাধ্যমে আমরা লক্ষ করেছি, দেশের বিভিন্ন স্থানে কিছু উচ্ছৃঙ্খল শিক্ষার্থী ও স্থানীয় ব্যক্তি দ্বারা শিক্ষক নিগৃহীত ও লাঞ্ছিত হচ্ছে, এমনকি শিক্ষক হত্যা করা হচ্ছে। শিক্ষক নির্যাতনের মত হীন কর্মকাণ্ডে আমরা ভীষণভাবে উদ্বিগ্ন এবং এর তীব্র নিন্দা জানাই। 

নেতারা আরও বলেন, অবিলম্বে এই জঘন্য ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের চিহ্নিত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানাচ্ছি যাতে ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনা আর না ঘটে। এ ব্যাপারে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্যে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন শিক্ষক নেতারা।

শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেলের সাথেই থাকুন। ভিডিওগুলো মিস করতে না চাইলে এখনই দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন এবং বেল বাটন ক্লিক করুন। বেল বাটন ক্লিক করার ফলে আপনার স্মার্ট ফোন বা কম্পিউটারে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভিডিওগুলোর নোটিফিকেশন পৌঁছে যাবে।

দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল   SUBSCRIBE  করতে ক্লিক করুন।

জন্মতারিখের প্রমাণ ছাড়া জন্মনিবন্ধন করা যাবে না - dainik shiksha জন্মতারিখের প্রমাণ ছাড়া জন্মনিবন্ধন করা যাবে না ১৩ লাখ টাকা ঘুষ দিয়েও চাকরি হয়নি, লাশ নিয়ে সভাপতির বাড়িতে অবস্থান - dainik shiksha ১৩ লাখ টাকা ঘুষ দিয়েও চাকরি হয়নি, লাশ নিয়ে সভাপতির বাড়িতে অবস্থান শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাপ্তাহিক ছুটি দুই দিন করার চিন্তা - dainik shiksha শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাপ্তাহিক ছুটি দুই দিন করার চিন্তা আগের সরকার নিয়মের তোয়াক্কা না করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করেছে : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha আগের সরকার নিয়মের তোয়াক্কা না করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করেছে : শিক্ষামন্ত্রী অনুমতি ছাড়াই দুই বছরের বেশি ছুটিতে প্রধান শিক্ষক, সহকারী শিক্ষকও নেই - dainik shiksha অনুমতি ছাড়াই দুই বছরের বেশি ছুটিতে প্রধান শিক্ষক, সহকারী শিক্ষকও নেই মেডিক্যালের প্রশ্নফাঁস চক্রে ছয় চিকিৎসকসহ জড়িত ৪২ - dainik shiksha মেডিক্যালের প্রশ্নফাঁস চক্রে ছয় চিকিৎসকসহ জড়িত ৪২ বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে অবৈধ স্টাডি সেন্টার, ব্যবস্থা নিচ্ছে না মন্ত্রণালয় - dainik shiksha বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে অবৈধ স্টাডি সেন্টার, ব্যবস্থা নিচ্ছে না মন্ত্রণালয় please click here to view dainikshiksha website