‘উপাচার্য করার জন্য উপযুক্ত লোকের অভাব’ - বিশ্ববিদ্যালয় - দৈনিকশিক্ষা

‘উপাচার্য করার জন্য উপযুক্ত লোকের অভাব’

দৈনিকশিক্ষা ডেস্ক |

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে এখন উপাচার্য (ভিসি) পাওয়া মুশকিল। কারণ ভিসি নিয়োগের জন্য তিনজনের নামের তালিকা জমা দিতে হয়। জমা দেয়া ওই তিনজনকেই ভিসি পদের জন্য যোগ্য হতে হবে। এটি এমন নয়, একজন যোগ্য বাকিরা অযোগ্য হলেও চলবে। তালিকা জমা দেয়ার পর মন্ত্রণালয় যাচাই-বাছাই করে। এরপর ওই তিনজনের মধ্য থেকে একজনকে উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়। কিন্তু যাচাই-বাছাইয়ে অযোগ্য প্রমাণ হলে তালিকা ফেরত পাঠিয়ে দেয়। এ নিয়ে ভীষণ ঝামেলাও হয়। আসলে ভিসি পদে যোগ্য লোকের অভাব রয়েছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমিতির সভাপতি শেখ কবির হোসেন। বুধবার (১৩ জানুয়ারি) ভোরের কাগজ পত্রিকায় প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা যায়।

তিনি বলেন, সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপকদের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য পদে নিয়োগ দেয়া হয়। কর্মরত অধ্যাপকদের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ দিতে চাইলে তারা অনেক টাকা বেতন চান। কিন্তু বহু বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এত টাকা বেতন দিতে পারে না। টাকা না দিতে পারার কারণেও উপাচার্য নিয়োগ দেয়া সম্ভব হয় না।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ভূমিকার কথা উল্লেখ করে শেখ কবির বলেন, বেশ কয়েকটি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে কোষাধ্যক্ষ পদে কলেজ শিক্ষকদের নিয়োগ দেয় মন্ত্রণালয়। অথচ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের বেলায় সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষককে উপাচার্য, উপ-উপাচার্য ও কোষাধ্যক্ষ নিয়োগ দিতে হয়। তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের বেলায় এক আইন, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের বেলায় আরেক আইন কেন? এটি নিরসনে আমরা বহুবার বলেছি। কিন্তু কেউ আমাদের কথা রাখছেই না।

অনুদানের টাকা পেতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের অনলাইন আবেদন শুরু ১ ফেব্রুয়ারি - dainik shiksha অনুদানের টাকা পেতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের অনলাইন আবেদন শুরু ১ ফেব্রুয়ারি উপবৃ্ত্তি পেতে প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের জন্ম নিবন্ধন বাধ্যতামূলক - dainik shiksha উপবৃ্ত্তি পেতে প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের জন্ম নিবন্ধন বাধ্যতামূলক করোনায় শিক্ষা কার্যক্রম চলমান রাখতে আলোচনায় বসছেন দুই মন্ত্রণালয়ের কর্তারা - dainik shiksha করোনায় শিক্ষা কার্যক্রম চলমান রাখতে আলোচনায় বসছেন দুই মন্ত্রণালয়ের কর্তারা পিকে হালদার কাণ্ডে এন আই খানের নাম ভুলভাবে যুক্ত হওয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংকের আবেদন - dainik shiksha পিকে হালদার কাণ্ডে এন আই খানের নাম ভুলভাবে যুক্ত হওয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংকের আবেদন শিক্ষার্থী বাড়ানোর প্রস্তাব রেখে এমপিওর নীতিমালা চূড়ান্ত - dainik shiksha শিক্ষার্থী বাড়ানোর প্রস্তাব রেখে এমপিওর নীতিমালা চূড়ান্ত স্কুল খোলার পক্ষে ৭৫ শতাংশ শিক্ষার্থী - dainik shiksha স্কুল খোলার পক্ষে ৭৫ শতাংশ শিক্ষার্থী অনলাইন ক্লাসে অংশ নেয়নি ৬৯ শতাংশ শিক্ষার্থী - dainik shiksha অনলাইন ক্লাসে অংশ নেয়নি ৬৯ শতাংশ শিক্ষার্থী ফেব্রুয়ারি থেকে অনলাইনে শিক্ষকদের বদলি শুরুর পরিকল্পনা - dainik shiksha ফেব্রুয়ারি থেকে অনলাইনে শিক্ষকদের বদলি শুরুর পরিকল্পনা পরীক্ষা ছাড়া ফল প্রকাশে তিনটি বিল সংসদে উত্থাপিত - dainik shiksha পরীক্ষা ছাড়া ফল প্রকাশে তিনটি বিল সংসদে উত্থাপিত তিন বিভাগে ৭৬ শিক্ষার্থী, শিক্ষক ৬৭ : জটিল পরিস্থিতি - dainik shiksha তিন বিভাগে ৭৬ শিক্ষার্থী, শিক্ষক ৬৭ : জটিল পরিস্থিতি বিশ্ববিদ্যালয়ে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষায় ন্যূনতম ফি নেয়ার সিদ্ধান্ত - dainik shiksha বিশ্ববিদ্যালয়ে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষায় ন্যূনতম ফি নেয়ার সিদ্ধান্ত please click here to view dainikshiksha website